২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

‘নিক্সনের চীন সফরের মতো মুহূর্ত’


যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা রবিবার এক ঐতিহাসিক সফরে কিউবা যান। ১৯২৮ সালের পর ৮৮ বছরের মধ্যে এই প্রথম মার্কিন কোন প্রেসিডেন্ট কিউবা সফরে গেলেন। তার সফরের প্রধান লক্ষ্য হলো সমাজতান্ত্রিক প্রতিবেশী দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা। তবে এই সফরে কিউবার ওপর থেকে মার্কিন অবরোধ তুলে নেয়ার ঘোষণা দেয়া হবে কিনা এবং গুয়ানতানামো বে কারাগারের ভবিষ্যত কি হতে পারে তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। খবর আল জাজিরার।

দেশ দুটির মধ্যকার লৌহযবনিকা সরে গিয়ে উষ্ণ সম্পর্কের বাতাবরণ শুরু হয় ২০১৩ সালে, দক্ষিণ আফ্রিকায় ওবামা আর কিউবার প্রেসিডেন্ট রাউল ক্যাস্ট্রো করমর্দন করেন। দুই বছর পর আরও একবার পানামায়। এই ছোট ইশারার মাধ্যমেই বৈরী দেশ দুটির মধ্যকার দ্বন্দ্ব আর শত্রুতার বরফ গলতে শুরু করে। যা আমেরিকার ১১ জন প্রেসিডেন্ট পারেনি। ওবামা প্রশাসন আশা করছে যে, দ্বীপ দেশটিতে ওবামার এই সফর ভবিষ্যতের জন্য একটা স্থায়ী প্রভাব রেখে যাবে। চলতি বছরই ওবামার মেয়াদের শেষ বছর। প্রশাসন বলেছে, এই সফরের উদ্দেশ্য হলো, পাঁচ দশকের বিরোধের পর কিউবার সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা। তবে অনেকে এটিকে আরও বেশি কিছু হিসেবে দেখছে। এটি এক ধরনের উপলব্ধিও যে, ৫৪ বছর ধরে কিউবার বিরুদ্ধে মার্কিন নীতি কোন কাজে আসেনি। ওয়াশিংটন ডিসির ন্যাশনাল সিকিউরিটি আর্কাইভের কিউবা ডক্যুমেন্টেশন প্রজক্টের পরিচালক পিটার কর্নব্লু বলেছেন, এই সফর কিউবা বিপ্লবকে স্বীকৃতি দিল এবং সম্মান জানানোর একটি চর্চা। এটি ওবামার ‘নিক্সনের চীনে যাওয়ার মতো’ মুহূর্ত এবং প্রেসিডেন্ট হিসেবে ওবামা ক্যারিবীয় দেশ কিউবার সঙ্গে স্নায়ুযুদ্ধের সম্পূর্ণ অবসান ঘটাবেন। ১৯৭২ সালে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট রিচার্ড নিক্সন বেজিং সফর করে চীনের সঙ্গে কয়েক দশকের শত্রুতার অবসান ঘটিয়েছিলেন। দুইদিনের হাভানা সফরে ওবামা রাউল, কিউবান উদ্যোক্তা ও সম্প্রদায়ের কর্মীদের সঙ্গে দেখা করবেন, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক শক্তিশালী করতে নতুন পদক্ষেপের ঘোষণা দেবেন, মেজন লিগ বাস্কেটবলের একটি খেলা দেখবেন এবং কিউবানদের উদ্দেশ্যে সরাসরি ভাষণ দেবেন। এই সফরে তার সঙ্গে যাচ্ছেন ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা, তাদের দুই মেয়ে মালিয়া ও শাসা, প্রতিনিধি পরিষদের সংখ্যালঘু নেতা ন্যান্সি পেলোসি ও ১৬ জন হাউস ডেমোক্র্যাট। এই সফরে ওবামা কিউবার আইকন ফিদেল ক্যাস্ট্রোর সঙ্গে সাক্ষাত করবেন না বলে জানা গেছে।