২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

জিয়া বেঁচে থাকতে কখনও স্বাধীনতার ঘোষক দাবি করেননি ॥ ডেপুটি স্পীকার


বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ জিয়াউর রহমান বেঁচে থাকতে নিজেকে কখনও স্বাধীনতার ঘোষক হিসেবে দাবি করেননি, এমনকি তার ক্ষমতাকালীন দেশের কোন পত্র-পত্রিকা, গণমাধ্যমেও তাকে স্বাধীনতার ঘোষক হিসেবে প্রচার করা হয়নি। অথচ জিয়া মারা যাওয়ার পর বিএনপি ক্ষমতায় এসে স্বাধীনতার ঘোষক হিসেবে জিয়ার নাম প্রতিষ্ঠা করার মিথ্যাচার শুরু করে। এই মিথ্যাচারের মাধ্যমে তারা পুরো জাতির সঙ্গে প্রতারণা করেছে। ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে বিএনপি নেতৃবৃন্দকে এ জন্য কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে। শনিবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রমেশ চন্দ্র (আরসি) মজুমদার মিলনায়তনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭তম জন্মদিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে এসব কথা বলেন ডেপুটি স্পীকার ফজলে রাব্বি মিয়া। বাংলাদেশ-ভারত সম্প্রীতি পরিষদ এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

পরিষদের সভাপতি এ কে এম রহমতউল্লাহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ-ভারত সম্প্রীতি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান উপদেষ্টা এ্যাডভোকেট এম এ বারী।

এ সময় ডেপুটি স্পীকার আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন একটি ইতিহাস, একটি আন্দোলন, একটি দেশের পিতা। বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী পাঠ্যবইয়ের অন্তর্ভুক্ত করা দরকার। কারণ, জাতির সঠিক ইতিহাস জানতে হলে এটি পড়া দরকার।

তিনি বলেন, রাজাকার, আল বদরদের সঙ্গে মুক্তিযোদ্ধাদের কোন তুলনা নেই। কিন্ত বর্তমান সময়েও এ দুয়ের মধ্যে পার্থক্য দেখা যায়। রাজাকারদের মধ্যে ইউনিটি আছে আর মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিদের ইউনিটি নেই। তিনি এ ইউনিটি গড়ে তোলার আহ্বান জানান বাংলাদেশ-ভারত সম্প্রীতি পরিষদের সদস্যবৃন্দের কাছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: