২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ঘুরে দাঁড়াতে চায় প্রোটিয়ারা


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ টি২০ বিশ্বকাপে আজ মুখোমুখি হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা ও আফগানিস্তান। দু’দলেরই শুরুটা ভাল হয়নি। আগনরা হেরেছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কার কাছে। তবে ইংল্যান্ডের কাছে প্রোটিয়াদের হারটা আলোচিত। মুম্বাইয়ে পরশু ২২৯/৪ রানের বিশাল স্কোর গড়েও ইংল্যান্ডের কাছে ২ উইকেটে হেরে যায় ফাফ ডুপ্লেসিসের দক্ষিণ আফ্রিকা! তবু শক্তি সামর্থ্য, পরিসংখ্যান সব বিচারেই আজ প্রোটিয়ারাই এগিয়ে থাকবে। এই ম্যাচ দিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া ডুপ্লেসিস বলেন, ‘আগের ম্যাচে কি হয়েছে, আমরা সেটি ভুলে যেতে চাই। আফগানিস্তান ভাল দল। আমাদের তাই সেরাটা দিতে হবে। বিশ্বকাপে ঘুরে দাঁড়াতে আত্মবিশ্বাসী আমরা’।

প্রোটিয়ারা প্রথম ম্যাচে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেও বোলারদের বদান্যতায় হেরে যায়। ঘুরিয়ে বললে অবিশ্বাস্য জয় তুলে নেয় প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড। সেদিন দক্ষিণ আফ্রিকানদের ব্যাট থেকে তিন-তিনটি হাফসেঞ্চুরি আসে। হাশিম আমলা ৩১ বলে ৫৮, কুইন্টন ডি কক ২৪ বলে ৫২, জেডি ডুমিনি ২৮ বলে করেন ৫৪ রান। ব্যাট হাতে দৃশ্যপট বদলে দেয়ার সামর্থ্য রাখেন এবি ডি ভিলিয়ার্স আর আর ডেভিড মিলারও। পেস আক্রমণে কাগিসো রাবাদার সঙ্গে আছেন অভিজ্ঞ ডেল স্টেইন। স্পিনে ইমরান তাহিরের কথা আলাদা করে বলতে হবে। কারণ কন্ডিশন। ভারতের ধীর গতির উইকেটে ঘূর্ণি বলে ‘ফ্যাক্টর’ হয়ে উঠতে পারেন পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত এই স্পিনার। লেগস্পিনাররা সাধারণত বেশি রান দিয়ে থাকনে, এজন্য তাদের টেস্টেই বেশি উপযুক্ত মনে করা হয়। তাহির সেখানে ব্যতিক্রম।

ওয়ানডে-টি২০তেও বলের ওপর অসাধারণ নিয়ন্ত্রণ তার। ২০১৩ থেকে টি২০’র ২৪ ম্যাচ খেলে নিয়েছেন ৩৭ উইকেট। সেরা ৪/২১। রান বন্যার আগের ম্যাচেও ২৮ রানে ১ উইকেট নিয়ে ছিলেন দলের সেরা বোলার। লাহোরে জন্ম নেয়া প্রোটিয়া ডানহাতি আজ আফগান ব্যাটসম্যাদের জন্য হুমকি হয়ে আবির্ভূত হতে পারেন। অন্যদিকে প্রথম পর্বে টেস্ট খেলুড়ে জিম্বাবুইয়েকে ছিটকে দিয়ে আফগানিস্তান ‘সুপার টেনে’ জায়গা করে নিয়েছে। ইনফর্ম ওপেনার ও উইকেটরক্ষক শেহজাদের দিকে বিশেষ দৃষ্টি থাকবে। গত কয়েক বছরে ৩৪.৬৬ গড়ে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৬২৪ রান। এর মধ্যে ছিল জানুয়ারিতে জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে ৬৭ বলে করা ১১৮ রানের ম্যারাথন সেঞ্চুরির ইনিংস। ব্যাটিংয়ে অসাধারণ দক্ষতার পাশাপাশি ৩১ বছর বয়সী এই খেলোয়াড় উইকেটের পেছনে থেকে দলকে উজ্জীবিত করতে মুখ্য ভূমিকাও পালন করে থাকেন।

আছেন দারুণ নৈপুণ্যে আন্তর্জাতিক খ্যাতি পেয়ে যাওয়া অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবী। সামনে থেকে নেতৃত্ব দেয়া আসগর স্টানিকজাই। ২০১০ ইংল্যান্ড টি২০ বিশ্বকাপের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক আসরে খেলতে আসা আফগানরা এরপর প্রতিটি বড় টুর্নামেন্টেই প্রতিনিধিত্বের যোগ্যতা অর্জন করেছে, এর মধ্যে ছিল গত বছরের আইসিসি বিশ্বকাপও। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দলটি টি২০’র ২০ ম্যাচের মধ্যে ১৬টিতেই জয় লাভ করেছে! বড় শক্তি প্রোটিয়াদের বিপক্ষে আজ কি করে, সেটিই দেখার বিষয়।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: