মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
১৮ আগস্ট ২০১৭, ৩ ভাদ্র ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

২৫ বীরাঙ্গনাকে সংবর্ধনা

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৬

তাহমিন হক ববী, নীলফামারী ॥ শুক্রবার সন্ধ্যায় নীলফামারীর ২৫ বীরাঙ্গনাকে ডোমার উপজেলার হাইস্কুল মাঠে সংবর্ধনা দেয়া হয়। আয়োজন করেছিল সামাজিক সহায়তা উদ্যোগ (বীরাঙ্গনা সহায়তা কার্যক্রম) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। প্রধান অতিথি সংস্কৃতিমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান নূর এমপি বীরাঙ্গনা ২৫ নারীর হাতে তুলে দেন ঢাকা ন্যাশনাল ফাউন্ডেশনের সহায়তায় একটি করে মূল্যবান কম্বল ও শাল, প্রতি মাসের পাঁচ শ’ টাকা করে চার মাসের ভাতার নগদ ২ হাজার করে টাকা ও একটি করে ক্রেস্ট। এ সময় সংস্কৃতিমন্ত্রী বলেন ‘বীরকন্যাদের সংবর্ধনা দিতে পেরে আজ আমরা নিজেদের ধন্য মনে করছি। ‘যারা এসব মা-বোনকে নির্যাতন করেছে, তাদের স্বামী, সন্তানদের হত্যা করেছে ও সম্ভ্রম লুট করেছে, জাতি তাদের কোন দিন ক্ষমা করবে না। ডোমার উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নীলফামারী ১ আসনের সংসদ সদস্য আফতাব উদ্দিন সরকার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মমতাজুল হক, ডোমার পৌর মেয়র মনছুরুল ইসলাম দানু, ডোমার উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক বসুনিয়া, নীলফামারী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবুজার রহমান, ডিমলা উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা তবিবুর রহমান, জেলা নারী ফোরামের সভাপতি আরিফা সুলতানা লাভলী, ডোমার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নূরননবী, মুক্তিযোদ্ধা জিএম রাজ্জাক প্রমুখ।

সামাজিক সহায়তা উদ্যোগ (বীরাঙ্গনা সহায়তা কার্যক্রম) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. আবু মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, নীলফামারীর সমন্বয়কারী আল-আমিন রহমান।

গোপালগঞ্জে গ্রামীণ ফোন নেটওয়ার্ক ভোগান্তির প্রতিবাদে মানববন্ধন

নিজস্ব সংবাদদাতা, গোপালগঞ্জ, ১৯ মার্চ ॥ গোপালগঞ্জের বেশ কয়েকটি এলাকায় গ্রামীণফোন নেটওয়ার্ক দুর্বলতায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন ওইসব এলাকার গ্রামীণ সিম ব্যবহারকারীরা। মিনিটে ৪-৫ বার কল-ড্রপ আর নেট-সমস্যার কারণে অতিষ্ঠ ওইসব এলাকার গ্রামীণ সিম ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন সময় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নানাভাবে অবহিত করলেও বিষয়টির কোন সুরাহা হয়নি বলে জানান ভুক্তভোগীরা। এ কারণে শনিবার সকালে গোপালগঞ্জ-টেকেরহাট সড়কের গান্দিয়াশুর বাস-স্ট্যান্ডে ভুক্তভোগীরা ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচীর আয়োজন করে। এ সময় বক্তব্য রাখেন স্কুল শিক্ষক মৃনাল কান্তি হীরা, গ্রাম্য ডাক্তার তাপসী মল্লিক, গৃহবধূ কেয়া সরকার, ব্যবসায়ী পলাশ কান্তি হীরা ও সাহাপুর ইউপি-চেয়ারম্যান অনাদি সরকারসহ অনেকেই। তারা জানিয়েছেন, আগে এত সমস্যা না থাকলেও গত দু’বছর ধরে বৌলতলী, কেকানিয়া, গান্দিয়াশুর ও সাতপাড় পশ্চিমপাড়া এলাকায় গ্রামীণফোনের নেট সমস্যা ও কল-ড্রপের কারণে সেখানকার ২০ সহস্রাধিক গ্রামীণ সিম ব্যবহারকারী সুবিধাবঞ্চিত হয়ে আছে। বিশেষ করে ব্যবসায়ী শ্রেণীরা ভীষণভাবে অতিষ্ঠ।

প্রকাশিত : ২০ মার্চ ২০১৬

২০/০৩/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

দেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: