২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

তৃণমূল মন্ত্রীদের ঘুষ গ্রহণ মমতার ভাবমূর্তিতে ধাক্কা


ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূলের ডজনখানেক নেতা-মন্ত্রীর ঘুষ নেয়া সংক্রান্ত নারদ নিউজ পোর্টালের গোপন ক্যামেরার ছবি প্রকাশিত হওয়ার পর রাজ্যের বিধানসভা ভোটের রাজনীতিতে তা মূল বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর ভাবমূর্তিও ধাক্কা খেয়েছে বলে মনে করছেন কলকাতার ৫৬ শতাংশ মানুষ। এবিপি আনন্দ ও এসি নিয়েলসেনের এক যৌথ জরিপে এ তথ্য জানা গেছে। খবর বাসসর।

সমীক্ষায় দেখা গেছে, ৫১ শতাংশ মানুষ মনে করেন, মমতা অভিযুক্ত নেতাদের বাঁচাতে চাইছেন। অভিযুক্ত প্রার্থীদের নির্বাচনের লড়াই থেকে মমতারই সরিয়ে দেয়া উচিত বলে মনে করেন ৬১ শতাংশ। সারদার চেয়েও এ ঘুষ-কা-ে ‘সততার প্রতীকে’র ভাবমূর্তি বেশি কলঙ্কিত হয়েছে বলে মনে করেন জরিপে অংশ নেয়া বেশিরভাগ লোক। আর ঘুষ-কা-কে হাতিয়ার করে বিরোধীরা ফায়দা তুলতে পারবেন বলে মনে করেন ৪৪ শতাংশ। যদিও একই সংখ্যক মানুষ মনে করেন বিরোধীরা ফায়দা তুলতে পারবেন না। ১৭ মার্চ বৃহস্পতিবার কলকাতা শহরকে পাঁচটি ভাগে ভাগ করে ১ হাজার ১৯ জনের মধ্যে জরিপ চালানো হয়। এতে অংশ নেয়া বেশিরভাগই ঘুষ কা-ে তৃণমূল নেত্রী ও তার দলের ভাবমূর্তি ধাক্কা খেয়েছে বলেই জনমত দিয়েছেন। এই পরিস্থিতি আন্দাজ করেই এখন মরিয়া হয়ে নিজের ‘সততা’র ভাবমূর্তি বাজি রাখছেন মমতা। যে কারণে শুক্রবার ফুলবাড়ি-ডাবগ্রাম কেন্দ্রে প্রচারে গিয়ে তৃণমূল নেত্রী সরাসরিই বলেছেন, ২৯৪টি কেন্দ্রেই মমতা প্রার্থী।

নিলামে হিটলারের মেইন ক্যাম্ফ!

জার্মানির সাবেক একনায়ক এ্যাডলফ হিটলারের নিজস্ব সংগ্রহে থাকা ‘মেইন ক্যাম্ফ’এর কপিটি ২০ হাজার ৬৫৫ ডলারে নিলামে বিক্রি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ডের এক ক্রেতা এটি কিনেছেন। লাল চামড়ায় বাঁধানো বইটি ১৯৪৫ সালে হিটলারের মিউনিখের বাড়ি থেকে এক মার্কিন সেনা খুঁজে পান বলে আলেকজান্ডার হিস্টোরিক্যাল এ্যাকশন নামে নিলামকারী সংস্থাটি জানায়। - টাইম

প্রথম কমব্যাটান্ট কমান্ড প্রধান

যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ইতিহাসে কমব্যাটান্ট কমান্ড প্রধান হিসেবে এই প্রথম কোন নারীকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে। মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ্যাশ কার্টার ইউএস নর্দান কমান্ডের প্রধান হিসেবে জেনারেল লরি রবিনসনকে মনোনীত করেছেন। ১৯৮২ সালে বিমান বাহিনীতে যোগ দেয়া লরি এখন প্যাসিফিক এয়ার ফোর্সের কমান্ডার হিসেবে কাজ করছেন। এটি মার্কিন সামরিক বাহিনীর একটি সর্বোচ্চ পদ এবং অবশ্যই সিনেটের অনুমোদিত হতে হবে। উত্তর আমেরিকার সমগ্র সামরিক কার্যক্রম দেখা শোনা করে ইউএস নর্দান কমান্ড।- বিবিসি