২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

রামগতিতে স্বতন্ত্র সেজে জামায়াতের চেয়ারম্যান প্রার্থী


নিজস্ব সংবাদদাতা, লক্ষ্মীপুর ॥ গভীর উদ্বেগ ও, উৎকন্ঠা আর শংকার সরকার দলীয় প্রার্থী ও সমর্থকদের প্রভাব বিস্তারের অভিযোগের মধ্য দিয়ে লক্ষ্মীপুরে ৬টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন শেষ মুহুর্তের প্রার্র্থীদের নির্ঘুম প্রচারনা চলছে। রামগতি উপজেলার দু’টি ও কমলনগর উপজেলার চারটি ইউনিয়নে কাক ডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ইউনিয়নবাসীর বিভিন্ন সমস্যা সমাধান আর উন্নয়নের আশ্বাস নিয়ে এখন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ছুটছেন প্রার্থীরা। তবে সরকার দলীয় প্রার্থীরা প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা অভিযোগ করেছেন।

জেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়, প্রথম ধাপে ২২ মার্চ লক্ষ্মীপুর রামগতি উপজেলার চরপোড়াগাছা, চর বাদাম। কমলনগর উপজেলার চরফলকন, হাজিরহাট, তোরাবগঞ্জ ও পাটারির হাট ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ ছ’টি ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ ও আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন বঞ্চিত বিদ্রোহী প্রার্থী, বিএনপি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), বিকল্পধারা, ইসলামী ঐক্য জোট ও স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ২৯জন চেয়াম্যান প্রার্থী পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। আর সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২৪৬ জন। এরই মধ্যে নির্বাচনকে ঘিরে পোষ্টারে পোষ্টারে ছেয়ে গেছে পাড়া-মহল্লা। কাক ডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ভোটারদের কাছে টানতে ইউনিয়ন গুলোর বিভিন্ন এলাকায় চষে বেড়াচ্ছেন চেয়ারম্যান ও মেম্বার প্রার্থীরা। ওঠান বৈঠক আর শেষ মুহুর্তের গণসংযোগের মাধ্যামে ভোটারদের মন জয় করতে প্রার্থীরা দিচ্ছেন, নানা উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি। সরকার দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী ও সমর্থকদের বিরুদ্ধে অন্য দলের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ করেছেন। এসব নির্বাচনী এলাকায় সরকার দলীয় নেতা কর্মীদের দ্বারা অন্য প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের হুমকি ধমকি দেয়ায় সুষ্ঠ ভোট অনুষ্ঠানে শংকিত হওয়ার পাশাপাশি ও উৎকন্ঠায় থাকার কথা প্রকাশ করেছেন অনেক প্রার্থী।

তবে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী চশমা প্রতিকের মওলানা মো. মহিউদ্দিন। তবে তিনি মূলত জামায়াতের প্রার্থী।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: