২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ভারতে ব্যান্ডউইথ রফতানি শুরু


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শেষ পর্যন্ত নানান জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে শুরু হয়েছে ভারতে ব্যান্ডউইথ রফতানির কার্যক্রম। বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেডের (বিএসসিসিএল) রফতানি করা এ ব্যান্ডউইথ ভারতে ব্যবহার শুরু হয়েছে।

বিএসসিসিএল সূত্র জানিয়েছে, গত সোমবার থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ভারতে ব্যান্ডউইথ রফতানি শুরু হয়। ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান বিএনএসএল বেশ কয়েক দফা যাচাই-বাছাইয়ের পর ওই দিন থেকে ১০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথের রফতানি মূল্য পরিশোধ শুরু করেছে। বিএনএসএলের বরাত দিয়ে এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোয়ার হোসেন জানান, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে ১০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ দেয়া শুরু হয়েছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর গত মঙ্গলবার বিকেলে বিএনএসএল কর্তৃপক্ষ ই-মেইলে জানিয়েছে তারা ঠিকঠাক গতিতে ব্যান্ডউইথ পাচ্ছেন।

তিনি জানান, গত সাত আট বছর ধরে তারা অব্যবহৃত ব্যান্ডউইথ রফতানির চেষ্টা করে আসছিলেন। এর মাধ্যমে সেই প্রক্রিয়া একটি আনুষ্ঠানিক রূপ পেল। তিনি আরও জানান, ১ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের বিএসসিসিএল ২০০ এমবিপিএস ব্যান্ডউইথ পাঠায় ভারতে। এরপর পরীক্ষামূলকভাবে পরের কয়েক দিন এর পরিমাণ বাড়ানো হয়। অবশেষে ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে চুক্তি অনুযায়ী ১০ জিবিপিএস করে দেয়া হচ্ছে। মনোয়ার হোসেন জানান, সরকারের নীতি-নির্ধারকদের ইতোমধ্যে আনুষ্ঠানিক রফতানির খবরটি জানানো হয়েছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই এর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হবে। তখন দুই দেশের টেলিযোগাযোগমন্ত্রী ভিডিও কল করে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করতে পারেন।

প্রসঙ্গত, ১০ জিবি ব্যান্ডউইথ রফতানি করে বিএসসিসিএলের বছরে আয় হবে ১২ লাখ মার্কিন ডলার। বর্তমান বিনিময় হারে এর পরিমাণ দাঁড়ায় ৯ কোটি ৪২ লাখ টাকা। আর এ খাতে ভারত আয় করবে বছরে ২০ কোটি রুপী। গেল বছরের জুনে ভারতের সঙ্গে ব্যান্ডউইথ রফতানি চুক্তি সই করে বাংলাদেশ। এর আওতায় প্রাথমিক পর্যায়ে ১০ গিগাবাইট (জিবি) ব্যান্ডউইথ রফতানি করা হবে। তবে রফতানির পরিমাণ ৪০ জিবি পর্যন্ত বাড়ানোর সুযোগ থাকবে। প্রাথমিকভাবে চুক্তির মেয়াদ ৩ বছর। ব্যান্ডউইথ রফতানি চুক্তি সইয়ের পর গত ১০ জুলাই আগরতলায় কানেক্টিভিটি কার্যক্রম শুরু হয়। আগরতলা থেকে অপটিক্যাল ফাইবার কেবল আখাউড়ায় বাংলাদেশের ১০ গিগাবাইট ব্যান্ডউইথের সঙ্গে সংযুক্ত হবে এবং ঢাকা হয়ে এটি কক্সবাজারে সাবমেরিন টেলিকম কেবলের সঙ্গে সংযুক্ত হবে। মুম্বাই ও চেন্নাইয়ের পর আগরতলা হবে ভারতের তৃতীয় আন্তর্জাতিক ইন্টারনেট গেটওয়ে।