মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১০ আশ্বিন ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

টি২০তেও স্টিভেন স্মিথ

প্রকাশিত : ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৬, ১২:২০ এ. এম.

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্রিকেটে প্রতি ভার্সনে ভিন্ন অধিনায়কের তত্ত্বটা অস্ট্রেলিয়াই শুরু করেছিল। তাদের দেখে ওই পথে হাঁটছিল আর সব দেশ। অথচ সেই অসিরাই কি না ‘ইউটার্ন’ করল। টি২০ বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত দলের অধিনায়ক হিসেবে বেছে নিল স্টিভেন স্মিথকে। মাইকেল ক্লার্কের বিদায়ে যিনি ইতোমধ্যে টেস্ট আর ওয়ানডের নেতৃত্বে রয়েছেন। আগামী মাসের শুরুতে ভারতের মাটিতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া টি২০ বিশ্বকাপে ওয়ানডের চ্যাম্পিয়নদের হয়ে টস করতে নামবেন ২৬ বছর বয়সী স্মিথ। এর মধ্য দিয়ে কুলীন দেশটির সংক্ষিপ্ততম ক্রিকেটে এ্যারন ফিঞ্চ-যুগের অবসান ঘটল। পুরনো সেই এক অধিনায়ক নীতিতে ফিরল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। এছাড়া ঘোষিত দলে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। বড় চমক উইকটরক্ষক হিসেবে ম্যাথু ওয়েডের জায়গার পিটার নেভিলের সুযোগ পাওয়া। নেয়া হয়েছে এ্যাস্টন এ্যাগার আর এ্যাডাম জাম্পাকে।

২০১২ সালে অস্ট্রেলিয়ার টি২০ দলের অধিনায়ক করা হয়েছিল জর্জ বেইলিকে। তার দুই বছর পর নেতৃত্ব পান মারকাটারি ব্যাটসম্যান ফিঞ্চ। গত বছর স্মিথ অবশ্য একটা টি২০তে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। সর্বশেষ ভারতের বিপক্ষে এক ম্যাচে দয়িত্ব পালন করেন অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসন। এবার দায়িত্বটা পাকাপাকিভাবে পেলেন দলটির সময়ের সেরা ব্যাটসম্যান স্মিথ। অস্ট্রেলিয়ান সংবাদ মাধ্যমে গত কয়েক দিন ধরেই গুঞ্জন চলছিল, ফিঞ্চকে সরিয়ে দেয়ার চিন্তা করছিল সিএ। ঘরের মাটিতে ভারতের কাছে তিন ম্যাচের সিরিজে ‘হোয়াইটওয়াশ’ হওয়ার পর সেটি আরও জোরালো হয়। স্মিথকে যে দীর্ঘ সময়ের জন্যই বেছে নেয়া হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচকম-লীর প্রধান রডনি মার্শের কথায় ফুটে উঠেছে সেটি, ‘টি২০তে অধিনায়ক হিসেবে ফিঞ্চ খারাপ করেনি। নেতৃত্বের এই সুযোগটা তাকে অনেকভাবেই সাহায্য করবে। অস্ট্রেলিয়ায় সে একজন সম্মানিত নেতা হিসেবেই চিহ্নিত হবে। কিন্তু সে টি২০’র অধিনায়ক হওয়ার পর টেস্ট ও ওয়ানডে দলে অনেক পরিবর্তন এসেছে। ক্লার্ক অবসর নিয়েছে, স্মিথ তার জায়গায় এসেছে। আমাদের মনে হয়, স্মিথের হাতে তিন ফরমেটের দায়িত্ব দেয়ার এটাই সঠিক সময়। কেবল টি২০ বিশ্বকাপে নয়, এর পরেও।’ স্মিথ নিজেও এটিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন, ‘এটা খুবই দ্রুতলয়ের একটা সংস্করণ। এখানে আপনাকে সময়ের আগে চিন্তা করতে হবে। টি২০ বিশ্বকাপ আমাদের জন্য বড় একটা চ্যালেঞ্জ। এখনও এই ট্রফিটা পাওয়া হয়নি।’ রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অসিদের টি২০’র শিরোপাটা এখনও অধরাই রয়ে গেছে। নেতৃত্ব হারালেও বিশ্বকাপের দলে আছেন ফিঞ্চ। অভিজ্ঞ ওয়েডের পরিবর্তে ৩০ বছর বয়সী নেভিলের জায়াগা পাওয়াটাকে বড় চমকই বলতে হবে। গত বছর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট অভিষেক হওয়া নেভিল টি২০তে পদার্পণের অপেক্ষায়। তার মতো এখনও টি২০ খেলা হয়নি তরুণ এ্যাস্টন এ্যাগারের। দল নিয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে রডনি মার্শ বলেন, ‘দল নির্বাচনে অভিজ্ঞ ও তারণ্যের সমন্বয় ঘটানো হয়েছে। পাশাপাশি ভারতের মাটিতে সামর্থ্যটাও বিবেচনায় নেয়া হয়েছে। আমি আশাবাদী ওরা ভাল করবে।’

অস্ট্রেলিয়া টি২০ বিশ্বকাপ দল ॥ স্টিভেন স্মিথ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, এ্যাস্টন এ্যাগার, নাথান কাল্টার-নাইল, এ্যারন ফিঞ্চ, জন হ্যাস্টিংস, জস হ্যাজলউড, জেমস ফকনার, উসমান খাজা, মিচেল মার্শ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, পিটার নেভিল (উইকেটরক্ষক), এ্যান্ড্রু টাই, শেন ওয়াটসন ও এ্যাডাম জাম্পা।

প্রকাশিত : ১০ ফেব্রুয়ারী ২০১৬, ১২:২০ এ. এম.

১০/০২/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলা



শীর্ষ সংবাদ: