২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

হারিয়েই গেলেন ইভানোভিচ!


বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থানটি দখল করেছিলেন আনা ইভানোভিচ। পেয়েছেন গ্র্যান্ডসøাম জয়ের স্বাদও। কিন্তু পারফর্মেন্সের সেই ধারাবাহিকতা খুব বেশিদিন ধরে রাখতে পারেননি তিনি। সম্প্রতি শেষ হওয়া অস্ট্রেলিয়ান ওপেনেও নিজেকে মেলে ধরতে ব্যর্থ হন সার্বিয়ার এই টেনিস তারকা। মৌসুমের প্রথম গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টের তৃতীয় পর্ব থেকেই ছিটকে পড়েন আনা ইভানোভিচ। এরপর থেকেই প্রশ্নটা আরও বেশি জোরালো হতে শুরু করে! তাহলে কী আসলেই ফুরিয়ে যাচ্ছেন আনা ইভানোভিচ?

গত এক দশক ধরেই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে অবস্থান করছেন আনা ইভানোভিচ। তবে স্বপ্নের মেলবন্ধন খুঁজে পান ২০০৮ সালে। সে বছরই প্রথম কোন গ্র্যান্ডসøাম টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেন তিনি। কিন্তু দুর্ভাগ্য তার। সেবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করলেও স্বপ্নভঙ্গ হয় সার্বিয়ান তারকার। রাশিয়ার মারিয়া শারাপোভার কাছে হেরে যান তিনি। তারপরও হাল ছাড়েননি ইভানোভিচ। ফ্রেঞ্চ ওপেনে আবারও ফাইনালে জায়গা করে নেন। এবার আর স্বপ্নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি প্রতিপক্ষ। ফাইনালে দিনারা সাফিনাকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো স্বপ্নের গ্র্যান্ডসøাম জয়ের স্বাদ পান তিনি। টেনিস কোর্টে অসাধারণ পারফর্মেন্স উপহার দেয়ার সৌজন্যে সে বছরই বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর স্থানটি দখল করে নেন ইভানোভিচ। এরপর কেটে গেছে দীর্ঘ আট বছর। কিন্তু এই সময়ের মধ্যে আর কখনোই গ্র্যান্ডসøাম জিততে পারেননি তিনি। তবে কখনোই হতাশায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়েননি ১৫টি ডব্লিউটিএ শিরোপা জেতা এই টেনিস তারকা। সবসময়ই কোর্টে থাকার চেষ্টা করেছেন তিনি। প্রতিপক্ষের বিপক্ষে সর্বদা নিজের সেরাটা দিতে মত্ত ইভানোভিচ। কিন্তু কোর্টের লড়াইয়ে যেন বার বারই ব্যর্থ হচ্ছেন ২৮ বছর বয়সী এই তারকা খেলোয়াড়। নতুন মৌসুমে নতুন উদ্যমে শুরুর প্রত্যয় ব্যক্ত করেছিলেন তিনি। কিন্তু না, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের তৃতীয় পর্ব থেকেই বিদায় নেন আনা ইভানোভিচ।

তবে কোর্টের লড়াইয়ে নিস্প্রভ থাকলেও প্রেমের মাঠে দারুণ সময় কাটছে তার। প্রেমিক বাস্তিয়ান শোয়েইনস্টেইগার। দুই জগতের দুই তারকা হয়েও দারুণ উপভোগ্য সময় পার করছেন তারা। একজন টেনিসে আরেকজন ফুটবলে। দুই তারকা দুই দেশের হলেও মনের টানে মিলে গেছেন একই বিন্দুতে। দীর্ঘদিন ধরেই গুঞ্জন বাতাসে ভেসে ভেড়াচ্ছিল-প্রেমের ভেলায় ভেসে হাবুডুব খাচ্ছেন তারা। কিন্তু সঠিক কোন প্রমাণ মিলছিল না তার। তবে গত বছরের ফ্রেঞ্চ ওপেনই খুলে দিল সব জটলা। টেনিস কোর্টে প্রতিপক্ষের বিপক্ষে সার্বিয়ান তারকা ইভানোভিচ যখন ঝড় তুলেন গ্যালারিতে বসে বাস্তিয়ান শোয়েইনস্টেইগার তখন হাততালি দিয়ে দারুণভাবে অনুপ্রেরণা যোগান। তাদের প্রেমের রসায়ন বুঝতে এই চিত্রটাই যথেষ্ট। ঘটনার প্রথম সূত্রপাত ছিল ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। হাতে-হাত রেখে নিউইয়র্কের রাস্তায় আনা ইভানোভিচ আর বাস্তিয়ান শোয়েইনস্টেইগারকে হাঁটতে দেখা যায়। সেই ছবি প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই তাদের সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জনের ডালপালা মেলতে শুরু। এরপর বড় চমকটা উপহার দেন জার্মান ফুটবলার নিজেই। ইভানোভিচের ২৭তম জন্মদিনে হাজির হয়ে যান তিনি। ঘটনা অবশ্য এখানেই শেষ নয়। ইভানোভিচের বেলগ্রেডের বাড়িতে বেড়ানোর পর, সঙ্গিনীকে নিয়েই জার্মানিতে ফিরেন শোয়েইনস্টেইগার।

ইতালির একটি ওয়েবসাইটের খবর ছিল, এক সঙ্গে নাকি শোয়েইনস্টেইগার আর ইভানোভিচ গয়নার দোকানে গিয়েছিলেন। মূলত হীরের আংটি কিনতেই গয়নার দোকানে যান তারা। সেই ওয়েবসাইটই জানায়, ইভানোভিচের আঙুলে নাকি শোভাও পাচ্ছে হীরের আংটি। তবে এসবই পুরনো খবর। সোমবার নতুন তথ্য দিয়েছে ব্রিটিশ টেবলয়ের ডেইলি মেইল। দীর্ঘ দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে তাদের সম্পর্কের সমাপ্তি ঘটতে যাচ্ছে বিয়ের মাধ্যমে। আগামী মাসেই তারা বিয়ে করতে যাচ্ছেন। তবে বিয়ে কোথায় হবে সে বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন সঠিক তথ্য জানায়নি এই তারকা জুটি। তবে সবকিছু ঠিক থাকলে স্পেন অথবা সার্বিয়াতেই অনুষ্ঠিত হবে তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান। তবে কে থাকবে তাদের বিয়ের অনুষ্ঠানে? এ নিয়েও রয়েছে গুঞ্জন। বিল্ড জানিয়েছে, টেনিস তারকাদের মধ্যে কেবল ব্রিটিশ খেলোয়াড় এ্যান্ডি মারেই থাকছেন। আর বাস্তিয়ান শোয়েইনস্টেইগারের অনেক সতীর্থই থাকবে বলে জানিয়েছে এই সূত্রটি।

তবে তাদের কিন্তু এটাই প্রথম প্রেম নয়। এর আগে ইভান পাউনিকের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল আনা ইভানোভিচের। কিন্তু ২০১৩ সালের শেষ দিকে সেই সম্পর্কের ইতি টানেন বিশ্ব টেনিসের অন্যতম সেরা তারকা। আর জার্মান মডেল সারা ব্র্যান্ডনার সঙ্গে প্রেমে মজেছিলেন সাবেক বেয়ার্ন মিউনিখের তারকা ফুটবলার বাস্তিয়ান শোয়েইনস্টেইগারও। সারা ব্র্যান্ডনার সঙ্গে শোয়েইনস্টেইগারের প্রথম দেখা ২০০৭ সালে মিউনিখে শপিং করতে গিয়ে।