২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

বাংলাদেশের সাফল্যের সিংহভাগই অবদান নারী ক্রীড়াবিদদের


রুমেল খান ॥ চলমান এসএ গেমসে বাংলাদেশ এ পর্যন্ত যতটা সাফল্য কুড়িয়েছে, তার সিংহভাগই এসেছে মহিলা এ্যাথলেটদের উদ্ভাসিত নৈপুণ্যে। সর্বশেষ ২০১০ এসএ গেমসে বাংলাদেশ যে ১৮ স্বর্ণ জিতেছিল, তার ১০টিই জিতেছিল নারী ক্রীড়াবিদরা। চলমান আসরে বাংলাদেশের ৩ স্বর্ণপদকের সবই এসেছে নারীদের মাধ্যমে।

এসএ গেমস মহিলা ফুটবলে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে মালদ্বীপকে হারিয়ে তাম্রপদক জেতা নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশের মেয়েরা। খেলায় বাংলাদেশ জয় লাভ করে ২-০ গোলে। গোল করেন সাবিনা খাতুন ও মারজিয়া। এ নিয়ে ৩ খেলায় ২ জয় ও ১ হারে ৬ পয়েন্ট নিয়েছে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে আছে বাংলাদেশ। এক ম্যাচ কম খেলে ও সমান পয়েন্ট নিয়ে নেপাল আছে এক নম্বরে।

পুরুষ ফুটবলে বাংলাদেশ অলিম্পিক ফুটবল দলের জন্য দিনটা ছিল হতাশার। ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে ভুটানকে হারালেই বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ দল নিশ্চিত করে ফেলত সেমিফাইনালে নাম লেখানো। কিন্তু ভুটানের সঙ্গে হতাশার ১-১ গোলে ড্রতে সেমিতে যাওয়া ঝুলে রইল বাংলাদেশের।

আরচারির শেষ দিন মঙ্গরবার। এই ডিসিপ্লিনের রিকার্ভ ডিভিশনে বাংলাদেশ একটি রৌপ্য ও একটি তাম্রপদক লাভ করে। এছাড়া কম্পাউন্ড ডিভিশনে দুটি রৌপ্য ও দুটি তাম্রসহ মোট তিন রৌপ্য ও তিন তাম্রপদক লাভ করে আরচারি ডিসিপ্লিনের পদক তালিকায় দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে বাংলাদেশ।

মিশ্র দলগতভাবে বাংলাদেশের শেখ সজীব ও বিউটি রায় রৌপ্যপদক, রিকার্ভ ডিভিশনে পুরুষ সেকশনে দলগতভাবে বাংলাদেশের শেখ সজীব, তামিমুল ইসলাম ও ইমদাদুল হক মিলন তাম্রপদক লাভ করেন।

এই গেমসে মঙ্গলবার শেষ হলো চার দিনব্যাপী ভারোত্তোলন ইভেন্টের খেলা। প্রতিযোগিতায় একটি স্বর্ণ, দুটি রৌপ্য ও তিন তাম্রসহ মোট ছয় পদকজয়ের মধ্য দিয়ে এবারের এসএ গেমস মিশন শেষ করল বাংলাদেশ ভারোত্তোলন দল। পুরুষ আট এবং মেয়ে সাত মোট ১৫ জন ভারোত্তোলক অংশ নেয় এবারের প্রতিযোগিতায়। সাত মেয়ের মধ্যে পদক পান পাঁচজন। আর আট ছেলের মধ্যে পদক পান মাত্র একজন। ব্যাডমিন্টনে সাফল্যের দিন ছিল বাংলাদেশের। মিশ্র দ্বৈতে বাংলাদেশের আইমান ইবনে জামান ও এলিনা সুলতানা জুটি, দুলাল জামিল আহমেদ ও খালেদ রাহাত কবির জুটি, মহিলা দ্বৈতে এলিনা সুলতানা ও শাপলা আক্তার জুটি, পুরুষ দ্বৈতে এনামুল হক ও পরশ আহসান পরশ জুটি, মহিলা এককে রেহানা ও পুরুষ এককে রইস উদ্দিন কোয়ার্টার ফাইনালে উন্নীত হন।

উশুতে দুটি তামা পেয়েছে বাংলাদেশ। পুরুষদের ৬০ কেজি ওজন শ্রেণীতে মিলন আলী এবং ৭০ কেজিতে আনিসুর রহমান এই কৃতিত্ব প্রদর্শন করেন।

মঙ্গলবার পর্যন্ত বাংলাদেশ জিতেছে ৩ রৌপ্য ও ৮ তাম্রপদক। সার্বিকভাবে তাদের অর্জন ৩ স্বর্ণ, ৮ রৌপ্য এবং ২৭ তাম্রপদক। মোট ৩৮ পদক নিয়ে তারা আছে পদক তালিকার আগের চতুর্থ অবস্থানে। বাংলাদেশের সঙ্গে সেয়ানে সেয়ানে লড়াই চলছে তৃতীয় স্থানে থাকা পাকিস্তানের। তাদের অর্জন ৫ স্বর্ণ, ১২ রৌপ্য, ২০ তাম্রপদকসহ ৩৭ পদক। চতুর্থ স্থানে থাকলেও বাংলাদেশ পদক প্রাপ্তিতে পেছনে ফেলেছে পাকিস্তানকে।

আগের মতোই সবার ধরা-ছোঁয়ার বাইরে আছে ভারত। স্বাগতিকদের প্রাপ্তি ৩৬ স্বর্ণ, ৩৬ রৌপ্য, ১০ তাম্রপদকসহ ১২২ পদক। ১৭ স্বর্ণ, ৩৭ রৌপ্য ও ৩৩ তাম্রপদকসহ ৮৭ পদক নিয়ে দ্বিতীয় স্থানটি যথারীতি শ্রীলঙ্কা।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: