২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বাংলাদেশের ৪৯ শতাংশ স্কুল শিক্ষার্থী সাইবার বুলিংয়ের শিকার হয়


এশীয় অঞ্চলে ইন্টারনেটের অগ্রগতি বিশেষ করে শিক্ষাক্ষেত্রে ইন্টারনেটের বিস্তৃতি এ অঞ্চলের তরুণদের জন্য বিশাল সম্ভাবনার সুযোগ নিয়ে এসেছে। তবে এ সম্ভাবনার সঙ্গে অনলাইনে শিশুদের নিরাপদে রাখার চ্যালেঞ্জ ও অনলাইনের হুমকি থেকে তাদের সুরক্ষিত রাখার গুরুত্বও সামনের দিকে চলে এসেছে। শিক্ষার্থীদের অনলাইনে কার্যক্রম ও আচরণবিধি সম্পর্কে আরও ভালভাবে বুঝে উঠতে টেলিনর গ্রুপ আজ নিরাপদ ইন্টারনেটের গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এ গবেষণায়, বাংলাদেশের প্রধান শহরগুলোসহ ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সের ১৮৯৬ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ইন্টারনেট বিষয়ক জ্ঞান নিয়ে জরিপ চালানো হয়। টেলিনরের হেড অব সোশ্যাল রেসপন্সিবিলিটি ওলা জো বলেন, শীর্ষস্থানীয় মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হিসেবে টেলিনর গ্রুপ ইন্টারনেটে সবার জন্য বিশেষত তরুণদের মধ্যে নিরাপত্তা বৃদ্ধিতে নিবেদিতভাবে কাজ করছে। তিনি আরও বলেন, টেলিনর আশা করে, শিশুরা কিভাবে ইন্টারনেট ব্যবহার করবে এ নিয়ে টেলিনরের দেশভিত্তিক এ গবেষণা ইন্টারনেট ব্যবহারের প্রতি ইতিবাচক বাবা-মা ও শিক্ষকদের নিরাপদ ইন্টারনেটের গুরুত্ব বোঝার ওপর জোর দিবে। পাশাপাশি এ গবেষণা ডিজিটাল সম্ভাবনা, বাবা-মায়ের শিশুদের সঙ্গে এ ব্যাপারে আলোচনা করা এবং এ নিয়ে তাদের উপদেশ দেয়ার ব্যাপারে উৎসাহিত করবে।

সাইবার বুলিংসহ ইন্টারনেট সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে স্কুল শিক্ষার্থীদের প্রতিক্রিয়া বিশ্লেষণ করে টেলিনর এ নিরাপদ ইন্টারনেট গবেষণা পরিচালনা করেছে। প্রভাব বিস্তারকারী আচরণের ধরন বুঝতে, শিশুদের জন্য ইন্টারনেটকে নিরাপদ করে তুলতে এবং এ বিষয়ে কার্যকরী সমাধানের জন্য এ নিরাপদ ইন্টারনেট গবেষণা পরিচালিত হয়েছে। -বিজ্ঞপ্তি

বাপবি বোর্ডের গ্রাহক ১ কোটি ৪২ লাখ ৭ হাজার

গত জানুয়ারি মাসে সমগ্র দেশে পল্লী বিদ্যুতায়ন কার্যক্রমের আওতাধীন এলাকায় ৩ লাখ ২৫ হাজার পরিবারকে নতুন বিদ্যুত সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ৩০ লাখ নতুন গ্রাহককে বিদ্যুত সুবিধার আওতায় নিয়ে আসার যে লক্ষ্যমাত্রা বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড নির্ধারণ করে।

২০২১ সালের মধ্যে শতভাগ এলাকা বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে আরও ৬০ লাখ নতুন পরিবারকে বিদ্যুত সুবিধার আওতায় নিয়ে আসা হবে। সব মিলিয়ে বাপবিবো জানুয়ারি-২০১৬ পর্যন্ত সারাদেশে ১ কোটি ৪২ লাখ ৭ হাজার পরিবারকে বিদ্যুত সুবিধার আওতায় এনেছে। যা বাপবিবো এবং পল্লী বিদ্যুত সমিতিসমূহের একটি বিশাল অর্জন এবং যুগান্তকারী পদক্ষেপ। -বিজ্ঞপ্তি