২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ২ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বিচারপতি খায়রুল হক ও শামসুদ্দিন বিচার বিভাগকে বিতর্কিত করেছেন- রিজভী


স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিচারপতি খায়রুল হক ও শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বিচার বিভাগকে বিতর্কিত করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। মঙ্গলবার নয়া পল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুখপাত্র হয়ে থাকলে আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী কার মুখপাত্র ছিলেন, এটা গোটা দেশবাসী জানে। তিনি বলেন, বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী আদালত প্রাঙ্গণকে আওয়ামী লীগের কর্মসূচি বাস্তবায়নের কেন্দ্র বানানোর চেষ্টা চালিয়েছেন। সেটা যখন সম্পূর্ণভাবে বাস্তবায়ন করতে পারছেন না, তাই খেদ হচ্ছে। মানুষের প্রতিক্রিয়া হচ্ছে বলেই এ আক্রমণ।

রিজভী বলেন, আজ যখন প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা ন্যায্য কথা বলছেন, সত্য, সংবিধান এবং আইনের শাসনের কথা বলছেন, তখন তা সহ্য করতে পারছেন না বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী । তিনি বলেন, এ দেশে ব্রিটিশ আমল থেকে উচ্চতর আদালত কখনো এত বিতর্কিত হয়নি। এটা করেছেন সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হক ও বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী। বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরীর কথা শুনলে মনে হবে কোনো বোধ, বুদ্ধি বিচারসম্পন্ন মানুষের কথা এগুলো নয়। এর কারণে তিনি বিভিন্ন সময়ে মানুষের রোষানলে পড়েন। এখন প্রধান বিচারপতি যখন ন্যায় ও আইনের পক্ষে কথা বলন, তখন তা সহ্য হচ্ছে না। বিচারঙ্গনকে কলুষিত করেছেন বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক।

উল্লেখ্য, প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার এক বছর পূর্তিতে এক বাণীতে বিচারপতি এস কে সিনহা অবসরে যাওয়ার পর বিচারকদের রায় লেখাকে ‘সংবিধান পরিপন্থি’ বললে এ নিয়ে নানামুখি আলোচনার সূত্রপাত হয়। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এবং সাবেক আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদ প্রধান বিচারপতির ওই বক্তব্যের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করলেও বিএনপি নেতারা তাতে জোর সমর্থন দিয়ে বলে আসছেন, বিচারকের অবসরের পরে রায় লেখা হওয়ায় তত্ত্বাবধায়ক সরকার পদ্ধতি বাতিলের রায়ও অবৈধ প্রমাণিত হয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: