২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সব প্রতিপক্ষের জন্যই প্রস্তুত ছিলাম ॥ জয়রাজ


মোঃ মামুন রশীদ ॥ সেমিফাইনালে ওঠার পর এখন বেশ আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ অনুর্ধ ১৯ দল। তবে শুরু থেকেই মেহেদী হাসান মিরাজদের চাওয়া ছিল সেমির প্রতিপক্ষ হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনুর্ধ ১৯ দলকে পাওয়ার। কারণ দলটির সঙ্গে বিশ্বকাপ শুরুর কয়েক দিন আগেই দ্বিপক্ষীয় সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে জিতেছে বাংলাদেশ। কিন্তু টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান জয়রাজ শেখ দাবি করলেন যে কোন প্রতিপক্ষের জন্যই প্রস্তুত ছিল বাংলাদেশ। ফাইনাল নিয়ে আপাতত চিন্তা না করে সেমির জন্যই দল প্রস্তুত হয়েছে বলে জানালেন তিনি। যুবাদের সহকারী কোচ সোহেল ইসলাম জানিয়েছেন যে কোন টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে কোন প্রতিপক্ষকেই হালকা করে দেখার সুযোগ নেই। কারণ ক্যারিবীয়রা এখন পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে উঠেছে এবং চলতি আসরে দুর্দান্ত খেলে সেমিতে পা রেখেছে। এ কারণে সতর্কভাবেই তাদের মুখোমুখি হতে চান তিনি। এখন পর্যন্ত প্রত্যাশিত সাফল্যই পেয়েছে বাংলাদেশ অনুর্ধ ১৯ দল। এবার পরবর্তী লক্ষ্য বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়া। কিন্তু সেজন্য উঠতে হবে ফাইনালে। সেমিফাইনালের জন্য ভালভাবেই প্রস্তুতি নেয়ার সুযোগ পেয়েছে স্বাগতিকরা। গত শুক্রবার প্রথম কোয়ার্টারে জিতে সেমি নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ক্যারিবীয়দের মুখোমুখি হবে তারা বৃহস্পতিবার। তাই প্রায় সপ্তাহ খানেক সুযোগ পেয়েছে দল অনুশীলন করে নিজেদের ভালভাবে প্রস্তুত করার। এ বিষয়ে জয়রাজ বলেন, ‘আমাদের প্রস্তুতি খুব ভাল আছে। তবে ফাইনাল নিয়ে এখনই ভাবছি না। একেকটা করে চিন্তা করছি। এখন সামনে সেমিফাইনাল। একটা ম্যাচের প্রস্তুতি নিয়েছি। ইনশাআল্লাহ ভাল করব। বিশ্বকাপের শুরু থেকেই ‘কালকের’ ম্যাচ নিয়ে ভাবছি। ফাইনাল নিয়ে ভাবছি না। অতিরিক্ত চাপও অনুভব করছি না।’ প্রতিপক্ষ হিসেবে অবশ্য ক্যারিবীয়দের পেয়ে সন্তুষ্ট বাংলাদেশ। কারণ তাদের বিপক্ষে সম্প্রতিই খেলেছে বাংলাদেশ। একইভাবে ক্যারিবীয়রা বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলে পরিচিত। এ বিষয়ে জয়রাজ বলেন, ‘আসলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ চাওয়া ছিল, তা নয়। সব দলের জন্যই প্রস্তুত ছিলাম। ওয়েস্ট ইন্ডিজ আসায় আমাদের একটু লাভ হয়েছে, ওদের সঙ্গে সর্বশেষ অনেক ম্যাচ খেলেছি। সিরিজ খেলা হয়েছে। ওদের সম্পর্কে ভালভাবে জানি। হ্যাঁ, ওরা আমাদের চেনে। তবে ওদের সঙ্গে সর্বশেষ যে কটি ম্যাচ খেলেছি, আধিপত্য বজায় রেখেই খেলেছি। আমরা জিতেই এসেছি। এদিক দিয়ে আমরা এগিয়ে থাকব।’ প্রতিপক্ষ হিসেবে ক্যারিবীয়দের অবশ্য এত সহজভাবে দেখছেন না সহকারী কোচ সোহেল। তিনি মনে করেন দ্বিপক্ষীয় সিরিজ আর টুর্নামেন্ট ভিন্ন ধাঁচের। এ বিষয়ে সোহেল বলেন, ‘এটা খুব বেশি যে প্রভাব ফেলবে আমার কাছে তা মনে হয় না। দ্বিপক্ষীয় সিরিজ আর বিশ্বকাপ অনেক তফাত। হোয়াইটওয়াশ হয়েছে তাই বলে এই না যে, এখানে এসে খারাপ খেলবে। যেহেতু একটা দল যখন সেমিতে আসে, ১৬ দলের খেলা হয়। তারা নিশ্চয়ই ভাল ফর্মে আছে। ধারাবাহিকতা ভাল। তারা ভাল খেলেই আসছে। এখানে আসলে হালকা হওয়ার কারণই নেই।’ তবে ক্যারিবীয়রা সেমির প্রতিপক্ষ হওয়াতে একটা সুবিধা অবশ্যই হয়েছে। সে বিষয়ে সোহেল বলেন, ‘টুর্নামেন্টের আগে এদের সঙ্গে আমাদের দ্বিপক্ষীয় সিরিজ ছিল। এই দলের প্লেয়ার সম্পর্কে আমাদের ধারণা ভাল। এরা কোথায় শক্তিশালী, কোথায় দুর্বল এগুলো আমরা জানি। আমরা আসলে চ্যাম্পিয়ন হব, একদম শুরু থেকে তো ও রকম হয় না। আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ খেলতেছি। সামনে সেমিফাইনাল খেলা আছে, আমরা আসলে এ ম্যাচটা নিয়েই চিন্তা করছি।’

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: