১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আজ জিতলেই সেমিতে বাংলাদেশ


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সমীকরণটা সহজ হয়ে গেছে। তবে না জিততে পারলে কঠিন হয়ে যাবে। সুযোগ থাকবে ড্র করলে এবং হারলেও। কিন্তু আজই জিতে দুশ্চিন্তা মুক্ত হওয়ার দারুণ সুযোগ। এক ম্যাচ জিতলেই চলমান সাউথ এশিয়ান গেমসের (এসএ গেমস) সেমিফাইনালে উঠে যাবে বাংলাদেশ অলিম্পিক ফুটবল দল। এমন সমীকরণ নিয়েই ভুটানের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ অলিম্পিক দল। জওহরলাল নেহেরু স্টেডিয়ামে ‘বি’ গ্রুপের এ ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টা ৩০ মিনিটে। ভুটানের জন্য বাঁচামরার লড়াই আজ। প্রথম ম্যাচে নেপালের কাছে বিধ্বস্ত হওয়ার কারণে সেমিতে ওঠার ক্ষেত্রে আশার প্রদীপ সামান্য হলেও জ্বালিয়ে রাখতে ন্যূনতম ড্র করতে হবে তাদের। জিততে পারলে সুযোগটা থাকবে বেশি। তাই হারতে চাইবে না ভুটানও। দল হিসেবে ভুটান বেশ দুর্বলতর সেটা পরিষ্কার হয়েছে প্রথম ম্যাচেই। নেপালের কাছে ৫-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে বিধ্বস্ত হয়েছে তারা। অবশ্য নেপাল অলিম্পিক দল সম্প্রতি ফর্মের তুঙ্গে আছে। তারা এবার বাংলাদেশের মাটি থেকে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক গোল্ডকাপ টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতেছে। আর সে কারণেই নেপালের কাছে কোন পাত্তাই পায়নি ভুটান। তবে সম্প্রতি বাংলাদেশের ফুটবলাটাও তেমন ভালভাবে এগোচ্ছে না। সাফ ফুটবলে ব্যর্থতার পর ঘরের মাটিতে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপেও ভাল করেনি বাংলাদেশ। যদিও অলিম্পিক দলটা বেশ উজ্জ্বলতা ছড়িয়েছে। বাইরাইন অলিম্পিক দলের সঙ্গে ড্রও করেছে। তবে গ্রুপ পর্ব পেরোতে পারেনি কোচ গঞ্জালো সানচেজ মরেনোর দল। কিন্তু এবার সুযোগটা ভাল এক ম্যাচ জিতেই সেমিতে পা রাখার। কারণ ৬ দলের অংশগ্রহণে এবার এসএ গেমস পুরুষ ফুটবল হচ্ছে। পাকিস্তান নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছে আর দক্ষিণ এশিয়ান অঞ্চলে অন্য দলগুলোর চেয়ে সাফল্য, শক্তিমত্তায় অনেক এগিয়ে যাওয়া আফগানিস্তান এখন আর এসএ গেমস ফুটবলে খেলবে না। দুই গ্রুপে তিনটি করে দলে হওয়ার কারণে এক ম্যাচ খেলা হয়ে গেলেই অনেকখানি হিসেব সহজ হয়ে আসে। ভুটান বড় ব্যবধানে হারার কারণে এখন আছে দারুণ বেকায়দায়। আর বিপর্যস্ত ভুটানকে হারিয়ে নিজেদের স্বপ্ন পূরণের পথে এক পা এগিয়ে যাওয়ার মোক্ষম সুযোগ বাংলাদেশ অলিম্পিক পুরুষ দলের জন্য। তবে অনুশীলন ম্যাচ খেলতে না পারার একটা ঘাটতি থেকে গেছে। যদিও এই দলটিতে অভিজ্ঞ তিন ফুটবলারসহ জাতীয় দলের হয়ে খেলা ৬ ফুটবলার আছে। আর সম্প্রতিই বেশকিছু খেলার মধ্যে থাকায় কোচ গঞ্জালো মনে করছেন তেমন সমস্যা হবে না বাংলাদেশের জন্য। সবমিলিয়ে বাংলাদেশ আশাবাদী ভুটানকে হারিয়ে সেমিতে পা রাখার বিষয়ে। তারপর এক ম্যাচ হাতে রেখেই ছক কষা শুরু হবে ফাইনালে ওঠার পরিকল্পনা নিয়ে।

গত আসরে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে স্বর্ণপদক জিতেছিল বাংলাদেশ দল। দীর্ঘ ১১ বছর পর ২০১০ সালে আবার এসএ গেমস ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশের পুরুষ দল। ফাইনালে আফগানিস্তানকে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছিল। এর মাঝে দুটি এসএ গেমস চলে গিয়েছিল। কিন্তু দেশের মাটিতে দারুণ কিছু সাফল্য পায় বাংলাদেশ। ফুটবলেও শ্রেষ্ঠত্ব পায়। এরপর আর এসএ গেমস অনুষ্ঠিত হয়নি। বৃহস্পতিবার গুয়াহাটি পৌঁছে তিনদিন অনুশীলন করেই নিজেদের প্রস্তুত করতে হয়েছে। এবার পরিস্থিতিটা বেশ সহজ হয়ে গেছে। ভুটানকে হারালেই সেমিতে বাংলাদেশ। অবশ্য আগেই গঞ্জালো এ বিষয়ে বলেছিলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য ম্যাচ বাই ম্যাচ জেতা। প্রধান লক্ষ্য ভুটানকে হারানো। এর পরের ম্যাচটা দেখা যাক কি হয়।’ তবে গঞ্জালোর কথার প্রতিফলন ঘটার অপেক্ষা এখন। আজকেই স্পষ্ট হয়ে যাবে রেজাউল করিমের নেতৃত্বে অলিম্পক দলটি কতটা ভাল করবে। কারণ নেপাল যেভাবে জিতেছে তেমন ভালভাবে জিততে না পারলেই দলের সামর্থ্যটা পরিষ্কার হয়ে যাবে। কিন্তু বাঁচামরার লড়াইয়ে ভুটান যে নিজেদের উজাড় করে দিয়েই খেলতে নামবে সেটাও নিশ্চিত। কিন্তু নিজের শিষ্যদের ওপর বেশ আস্থা গঞ্জালোর। দলের অনেক পরিবর্তন হয়েছে এবং যথেষ্ট শক্তিশালী হয়েছে বলে দাবি করেছেন এ স্প্যানিশ কোচ। বিশেষ করে তিনি ডিফেন্স ও মিডফিল্ড নিয়ে দারুণ সন্তুষ্ট। আক্রমণভাগকেও এ কয়েকদিন ধরে গুছিয়ে তুলেছেন শক্তিশালী করার লক্ষ্যে। এবার মাঠে প্রয়োগ করে দেখানোর অপেক্ষা।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: