মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১০ আশ্বিন ১৪২৪, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

হবিগঞ্জের তিন রাজাকারের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের ১১তম সাক্ষীর জবানবন্দী

প্রকাশিত : ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬
  • যুদ্ধাপরাধী বিচার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতারকৃত হবিগঞ্জের দুই সহোদর মহিবুর রহমান ওরফে বড় মিয়া, মুজিবুর রহমান ওরফে আঙ্গুর মিয়া ও আব্দুর রাজ্জাকের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের ১১তম সাক্ষী গোলাম হোসেন জবানবন্দী প্রদান করেছেন। জবানবন্দীতে তিনি বলেছেন, রাজাকার ও পাকিস্তানী আর্মিরা মঞ্জব আলীর স্ত্রী আকসি বিবিকে ধর্ষণ করেছে। একইদিন আল্লাদ মিয়ার বোন আগর চান বিবিকেও ধর্ষণ করে। জবানবন্দী শেষে আসামি পক্ষের আইনজীবী সাক্ষীকে জেরা করেন। পরবর্তী সাক্ষীর জন্য সোমবার দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। চেয়ারম্যান বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল -১ এ আদেশ প্রদান করেছেন। জবানবন্দী ও জেরার সময় প্রসিকিউশন পক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর সুনতাম মাহমুদ সিমন, রিজিয়া সুলতানা চমন। অন্যদিকে সাক্ষীকে জেরা করেন এ্যাডভোকেট মাসুদ রানা ও এ্যাডভোকেট আব্দুস শুকুর।

সাক্ষী তার জবানবন্দীতে বলেন, আমার নাম গোলাম হোসেন। আমার বর্তমান বয়স আনুমানিক ৬১ বছর। আমার ঠিকানা গ্রাম খাগাউড়া বেরিপাড়, থানা বানিয়াচং, জেলা হবিগঞ্জ। আমি লেখাপড়া জানি না। আমি কৃষিকাজ করি। বেরিপাড় এর উত্তর পাড়ায় আমার বাড়ি। ১৯৭১ ‘সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় বেরিপাড়ের উত্তরপাড়ায় নুরুজ্জামান চেয়ারম্যান মজ্ঞব আলী, আল্লাদ মিয়া, আনফর আলীসহ অন্যরা বাস করত। সাক্ষী আরও বলেন, ১৯৭১ সালের বাংলা কার্তিক মাসের প্রথম দিকে আনুমানিক ১০টার সময় আসামি মহিবুর রহমান ওরফে বড়মিয়া, আসামি মজিবুর রহমান ওরফে আঙ্গুর মিয়া ও আসামি আব্দুর রাজ্জাক সহ আরও কয়েকজন রাজাকার এবং ১২-১৪ জন পাকিস্তানী আর্মি তিনটি নৌকাযোগে কর্নেল এম এ রব সাহেবের বাড়ির ঘাটে এসে থামে।

ওই দিন আসামিরা আনুমানিক সাড়ে ১১টার দিকে বেরিপাড় দক্ষিণ পাড়ায় গিয়ে লোকজনদেরকে মারপিট করে এবং কমলা মিয়ার বাড়ি লুটপাট করে অগ্নিসংযোগ করে। এর পর আসামিগণ ও পাকিস্তানী আর্মি মজ্ঞব আলীর স্ত্রী আকসা বিবিকে ধর্ষণ করে। এরা আল্লাদ মিয়ার বোন আগর চান বিবিকেও ধর্ষণ করে। ঐ ঘটনার কিছু দিন পর আগর চান বিবি আতœহত্যা করে।

ময়মনসিংহে দুই এমপিসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা ॥ স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ জানান, ত্রিশাল উপজেলার কালির বাজার ও কানিহারি গণহত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে জাতীয় পার্টির বর্তমান এমপি শিল্পপতি আব্দুল হান্নান ও সাবেক এমপি রাজাকার কমান্ডার আনিসুর রহমান মানিকসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের মামলা হয়েছে ময়মনসিংহের আদালতে। ময়মনসিংহের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩ নম্বর আমলি আদালতে রবিবার এই মামলাটি দায়ের করেছেন মুক্তিযুদ্ধের আঞ্চলিক সংগঠক আবুল কালাম। বিজ্ঞ আদালতে মামলাটি গ্রহণপূর্বক মানবতাবিরোধী আন্তর্জাতিক অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। জাতীয় পার্টির এমপি আব্দুল হান্নান ও সাবেক এমপি আনিসুর রহমান মানিকের বিরুদ্ধে এর আগেও ময়মনসিংহের আদালতে যুদ্ধাপরাধের আলাদা মামলা হয়েছে। আব্দুল হান্নান যুদ্ধাপরাধের মামলায় কারাগারে আটক রয়েছেন।

প্রকাশিত : ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

০৮/০২/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: