২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মানুষ মানুষের জন্য


মানুষ মানুষের জন্য

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শিশু বুশরার জীবন বাঁচাতে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন। অন্যদের মতোই বুশরা বাঁচতে চায়। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বুশরার ব্রেন টিউমার ধরা পড়েছে। উন্নত চিকিৎসা দেয়া হলে শিশুটি সুস্থ হয়ে উঠতে পারে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। বুশরার মাতা-পিতার আর্থিক অবস্থা ভাল না। পিতা আজিজুল ইসলাম ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের ঝিকরগাছা শাখায় পল্লী উন্নয়ন প্রকল্পের জুনিয়র ইউনিট অফিসার পদে স্বল্প বেতনের কর্মচারী। মা সোনিয়া শারমিন একজন গৃহিণী। প্রাণবন্ত এই শিশুটি এক বছর বয়সে খাট থেকে নিচে পড়ে মাথায় আঘাত পায়। প্রাথমিক চিকিৎসায় বুশরা সুস্থ হয়ে ওঠে। কিন্তু বছর পার না হতেই শিশু বুশরার অস্বাভাবিক আচরণ লক্ষ্য করেন বাবা-মা। তার দৃষ্টিশক্তি ক্রমান্বয়ে লোপ পেতে থাকে। বর্তমানে পুরোপুরি দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলেছে বুশরা। যশোর কুইন্স হসপিটালের নিউরো-মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ এম. এস. জহিরুল হক চৌধুরীর তত্ত্বাবধানে তাকে চিকিৎসা করানো হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর চিকিৎসক জানান, আঘাত পাওয়ায় মাথায় রক্ত জমাট বেঁধে তা টিউমারে রূপ নিয়েছে। এরপর খুলনা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক নিউরো-মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ আব্দুল হালিম সরদারের চিকিৎসকের পরামর্শ নেন। তিনি শিশুটিকে বিদেশে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। একমাত্র সন্তানের জীবন বাঁচাতে দায়-দেনা করে ভারতের ভ্যালোরের (এমএসএমসিএইচ) নিউরো সার্জন ডাঃ মনোজ কুমার ভট্টাচার্যের শরণাপন্ন হন বুশরার মাতা-পিতা। সেখানে ডাঃ মনোজ কুমার ভট্টাচার্যের সমন্বয়ে গঠিত ৬ সদস্যের বিশেষজ্ঞ মেডিক্যাল বোর্ডের পর্যবেক্ষণ ও তত্ত্বাবধানে এক সপ্তাহ চিকিৎসাধীন ছিল। শিশু বুশরাকে অপারেশনের পরামর্শ দিয়েছেন ওই মেডিক্যাল বোর্ডের চিকিৎসকরা। এজন্য দরকার প্রায় ১০ লাখ টাকা। কিন্তু শিশুটির মাতা-পিতার পক্ষে এই ব্যয়বহুল চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। এমতাবস্থায়, শিশু বুশরার চিকিৎসার জন্য সকল হৃদয়বান ও দানশীল ব্যক্তি আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন তার অসহায় মাতা-পিতা। চিকিৎসায় সহযোগিতা দিতে সরাসরি যোগাযোগ করুন এই মোবাইল নম্বরে-০১৭৮৪৩২১১৪৪। আর সাহায্য দিন এই সঞ্চয়ী হিসাবে- বুশরা বিনতে আজিজ, ছাত্র হিসাব নং-১১৯০, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, কালীগঞ্জ শাখা, সাতক্ষীরা।

ঘোষণা : দৈনিক জনকণ্ঠ মানুষ মানুষের জন্য বিভাগে খবর প্রকাশের মাধ্যমে সহৃদয় ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ ঘটিয়ে দিয়ে থাকে। সাহায্য সরাসরি সাহায্যপ্রার্থীর ব্যাংক এ্যাকাউন্টে জমা দিতে হবে অথবা নগদ দিতে সাহায্যপ্রার্থীর দেয়া মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করতে হবে। দৈনিক জনকণ্ঠ এ বিষয়ে কোন দায়ভার গ্রহণ করবে না।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: