২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথমার্ধে বেপজার রফতানিতে ৯.৬২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি


চলতি অর্থবছরের প্রথমার্ধে বাংলাদেশ রফতানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষ (বেপজা) রফতানিতে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জন করেছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে বিগত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় রফতানিতে ৯.৬২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথমার্ধে ইপিজেডের ৮টি চালু শিল্প প্রতিষ্ঠান থেকে ৩১৮১.৮১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সমমূল্যের পণ্য রফতানি হয়েছে। পূর্ববর্তী অর্থবছরের একই সময়ে রফতানি হয়েছিল ২৯০২.৬৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার; এক্ষেত্রে রফতানিতে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৯.৬১ শতাংশ। এর মধ্যে চট্টগ্রাম ইপিজেড থেকে রফতানি হয়েছে ১১৯৫.৬৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, ঢাকা ইপিজেড থেকে ১০০৫.১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, কর্ণফুলী ইপিজেডে ৩৯০.৪৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, আদমজী ইপিজেডে ২৫৭.৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, কুমিল্লা ইপিজেডে ১৪৫.০৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, মংলা ইপিজেডে ৪৫.৫৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, ঈশ্বরদী ইপিজেডে ৫৫.৪১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং উত্তরা ইপিজেডে ৮৭.২২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ডিসেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত দেশের ইপিজেডসমূহ হতে সর্বমোট রফতানি হয়েছে ৪৯৩২২.৯৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। উল্লেখ্য, বিগত অর্থবছরে জাতীয় রফতানিতে বেপজার অবদান ১৯.৫৯ শতাংশ। বতর্মানে দেশের ইপিজেডসমূহে প্রচলিত পণ্য গার্মেন্টস, টেক্সটাইল, নীটওয়্যার আইটেমসহ ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক্স পণ্য, গাড়ির যন্ত্রাংশ, মোবাইল ফোনের যন্ত্রাংশ, ক্যামেরা লেন্স ও পার্টস, বাইসাইকেল, ব্যাটারি, গলফ শ্যাফট, জুতা, এনার্জি সেভিং ও এলইডি বাল্ব, আসবাবপত্র, তাঁবু, বুলেট প্রুফ জ্যাকেট, চশমা, হলিউড মুখোশ, উইগ, কার্পেট, বাঁশের কফিন, লাগেজ, জুয়েলারি, খেলনা ইত্যাদি পণ্য উৎপাদিত হচ্ছে। -বিজ্ঞপ্তি

যুক্তরাষ্ট্রে জানুয়ারিতে ১ লাখ ৫১ হাজার নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলতি বছরের জানুয়ারিতে ১ লাখ ৫১ হাজার নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে দেশটিতে নতুন করে ২ লাখ ৯২ হাজার এবং নবেম্বর মাসে ২ লাখ ১১ হাজার কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছিল। অর্থাৎ গত বছরের শেষ দুই মাসের তুলনায় নতুন বছরের প্রথম মাসে কমেছে নতুন কর্মসংস্থান।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গত এক মাসে যে পরিমাণ নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে তা প্রত্যাশার চেয়ে অনেক কম।

আলোচ্য মাসে কর্মসংস্থান কমের তালিকায় রয়েছে পরিবহন ও শিক্ষা খাত।