১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

স্কুল প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ শিক্ষার্থীদের ॥ ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি


নিজস্ব সংবাদদাতা, কেরানীগঞ্জ, ৪ ফেব্রুয়ারি ॥ শিশু আব্দুল্লাহ হত্যার পর কোনক্রমেই যেন কান্না থামছে না মুগারচরবাসীর। কি কারণে শিশু আব্দুল্লাহকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে- সেই প্রশ্নই বার বার জাগছে শোকাহত মানুষের মনে। এ হত্যাকা- মেনে নিতে পারছে না তার সহপাঠীরাও। বৃহস্পতিবার সকালে বন্ধু আব্দুল্লাহর ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে পশ্চিম মুগারচর প্রাথমিক স্কুল প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা। এ সময় সবাই কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। অশ্রু ধরে রাখতে পারেননি শিক্ষক-শিক্ষিকারাও। সবার একই দাবি ঘাতকদের ফাঁসি।

অপহরণের পঁাঁচদিন পর মঙ্গলবার দুপুরে প্রতিবেশী মোতাহার হোসেনের বসতবাড়ির দ্বিতীয় তলা থেকে উদ্ধার করা হয় ড্রামভর্তি এ্যাসিডে ঝলসানো আব্দুল্লাহর লাশ।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শত শত জনতা উপস্থিত হয়ে মোতাহারের বসতবাড়ি ও মার্কেটে অগ্নিসংযোগ করে। সেই থেকেই চলছে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করলেও পরিস্থিতি রয়েছে শান্ত। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ। বুধবার বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করা হয় আব্দুল্লাহকে।

অপহরণের ঘটনায় পলাতক মোতাহারের ছেলে মেহেদী, মেয়ে মিতুসহ চারজনকে আটক করা হয়েছে। মেহেদীকে সাতদিন এবং অপর তিনজনকে পাঁচদিনের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফেরদৌস হাসান বলেন, মামলাটিকে আমরা গুরুত্বসহকারে দেখছি। অপরাধীদের যাতে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হয়, সেজন্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ ঘটনার মূল নায়ক মোতাহারকে গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: