২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

এসএমইতে সোয়া লাখ কোটি টাকা ঋণ বিতরণের লক্ষ্য


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ নতুন উদ্যোক্তা তৈরি এবং ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো লক্ষ্যমাত্রার অতিরিক্ত ঋণ বিতরণ করায় চাঙ্গা হয়ে উঠেছে দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) খাত। ফলে এ খাতের উন্নয়নে ২০১৬ সালে ১ লাখ সাড়ে ১৩ হাজার কোটি টাকার ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ২০১৫ সালের তুলনায় ৮ দশমিক ৫৩ শতাংশ বেশি। বৃহস্পতিবার এক আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক নির্মল চন্দ্র ভক্ত এ সব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ২০১৫ সালে সিএমএসএমই খাতে বাৎসরিক ঋণ বিতরণ লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ১ লাখ ৪ হাজার ৫৮৬ কোটি টাকা। এই লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ৭ লাখ ২৪ হাজার ৯০৩ জন উদ্যোক্তার মাঝে ১ লাখ ১৫ হাজার ৮৭০ কোটি টাকা বিতরণ করা হয়েছে। যা বাৎসরিক লক্ষ্যমাত্রার চাইতে ১০ দশমিক ৭৯ শতাংশ বেশি। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়েছে, গত বছর রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাংকের ঋণ বিতরণের লক্ষ্যেমাত্রা ছিল ১২ হাজার ৫৩ কোটি টাকা। এর বিপরীতে ঋণ বিতরণ করা হয়েছে ১০ হাজার ৬১০ কোটি টাকা। বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর মধ্যে ১৬০০ কোটি টাকার ঋণ বিতরণে লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও বিতরণ করতে পেরেছে ৭১৮ কোটি টাকা। যা লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ৪৪ দশমিক ৯২ শতাংশ কম। বেসরকারী খাতের ব্যাংকগুলোর ৪৫ হাজার ৭৬০ কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ৫১ হাজার ৮৯৫ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া নন ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান মোট ১১ হাজার ১ লাখ ১৫ হাজার ৮৭০ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করেছে। যা লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ১১০ দশমিক ৭৯ শতাংশ বেশি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, ২০১৫ সালে ১ লাখ ২৬ হাজার ৫১৪ জন নতুন উদ্যোক্তাকে ২০ হাজার ৬০৩ কোটি ৬৪ লাখ টাকা দিয়েছে ব্যাংকগুলো। এর মধ্যে ১০ হাজার ১০৬ জন নারী উদ্যোক্তাকে ৭৫৬ কোটি ১০ লাখ টাকা রিতরণ করা হয়েছে। একই বছর এই খাতে বিতরণ করা হয়েছে ১ লাখ ১৫ হাজার ৮৭০ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ১ লাখ ৪ হাজার ৫৮৬ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। যা লক্ষ্যমাত্রার ১১০ দশমিক ৭৯ শতাংশ। ২০১৪ সালে বিতরণ করা হয়েছিল ১ লাখ ৯১০ কোটি টাকা। এবার বেশি বিতরণ করা হয়েছে প্রায় ১৫ হাজার কোটি টাকা। এ প্রসঙ্গে প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আহমেদ কামাল খান চৌধুরী বলেন, অর্থনীতির মূল চালিকা শক্তি হচ্ছে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প। এই খাতে ঋণ বিতরণে বাংলাদেশ ব্যাংক সব সময়ই ব্যাংকগুলোকে উৎসাহ যুগিয়ে আসছে। একারণেই বিতরণ লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করেছে। এতে দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প খাত চাঙ্গা হয়ে উঠেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মোট বিতরণকৃত ঋণের মধ্যে সেবা খাতে প্রায় ৪০ হাজার উদ্যোক্তাকে প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকা বিতরণ করা হয়েছে। যা মোট ঋণের ১০ দশমিক ২৩ শতাংশ। ব্যবসা খাতে সাড়ে ৪ লাখ উদ্যোক্তাকে প্রায় ৭৪ হাজার কোটি টাকা বিতরণ করা হয়েছে। যা মোট ঋণের ৬৩ দশমিক ৪৮ শতাংশ। শিল্প খাতে সোয়া দুই লাখ উদ্যোক্তাকে প্রায় ৩১ হাজার কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। যা মোট ঋণের ২৬ দশমিক ২৯ শতাংশ। ১ লাখ ৮৮ হাজার ২৩৩ জন নারী উদ্যোক্তাকে প্রায় ৪ হাজার ২২৭ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। যা মোট ঋণের ৩ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এসএমই এ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রামস বিভাগের মহাব্যবস্থাপক স্বপন কুমার রায় বলেন, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর পাঠানো এসএমই খাতে ঋণ বিতরণের স্বনির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার ওপর ভিত্তি করেই বাংলাদেশ ব্যাংক লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে থাকে। বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়মিত তদারকি করার কারণেই এই খাতে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব হয়েছে।