মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
১৭ আগস্ট ২০১৭, ২ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বাংলাদেশের টি২০ বিশ্বকাপ দল ঘোষণা

প্রকাশিত : ৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে চার ম্যাচের টি২০ সিরিজে ঘুরে ফিরে মোট ১৮ ক্রিকেটারকে চূড়ান্ত দলে রাখা হয়েছে। একটি ম্যাচের জন্যও চূড়ান্ত দলে স্থান হয়নি মোহাম্মদ মিঠুনের। অথচ ভারতে অনুষ্ঠেয় টি২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপের জন্য মিঠুনকে চূড়ান্ত দলে রাখা হয়েছে! বুধবার বিকেলে মাশরাফি বিন মর্তুজাকে অধিনায়ক করে টি২০ বিশ্বকাপের জন্য প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ যখন ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করছেন, তখন মিঠুনের নামটি সবার কাছে চমক হয়েই ধরা দিয়েছে। বাকি নামগুলোর মধ্যে মাশরাফি, তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান রুম্মান, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মুস্তাফিজুর রহমান, আল-আমিন হোসেন, আরাফাত সানি, নাসির হোসেন যে থাকবেন তা আগেই বোঝা গেছে। আর নতুনদের মধ্যে আবু হায়দার রনি, নুরুল হাসান সোহান সুযোগ পাবেন, তাও ধারণা ছিলই। তাসকিন আহমেদ মাঝখানে সুযোগ পেয়ে গেছেন। চমক বলতে এক মিঠুনই।

উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন। কোনভাবেই এ ক্রিকেটারের টি২০ বিশ্বকাপে অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি আঁচ করা যায়নি। সেই চমকই নির্বাচকরা দিয়ে দিলেন। অবশ্য এ কাজটি প্রধান কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহের সঙ্গে আলোচনা করেই করেছেন প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ।

সব মিলিয়ে দলে আছেন তিন উইকেটরক্ষক। মিঠুনের সঙ্গে আছেন গত জিম্বাবুইয়ে সিরিজেই অভিষেক হওয়া নুরুল হাসান সোহান ও টেস্ট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। মোহাম্মদ মিঠুন বাংলাদেশের হয়ে এর আগেও দুটি ওয়ানডে ও একটি টি২০ ম্যাচ খেলেছেন। টি২০টা ছিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে, আর দুটি ওয়ানডেই তিনি খেলেছেন ভারতের বিপক্ষে। সব ম্যাচই খেলেছেন দেশের মাটিতে। ওয়ানডেতে ১ ম্যাচে ব্যাট করার সুযোগ পেয়ে ২৬ রান করেছেন। আর টি২০তে ১ ম্যাচ খেলে কোন রানই করতে পারেননি। টি২০ খেলেছেন সর্বশেষ ২০১৪ সালের আগস্টে। এমন একজন ক্রিকেটারকেই দলে ভিড়িয়েছেন নির্বাচকরা। কোন ফরম্যাটেই নিজেকে এখনও মেলে ধরতে পারেননি মিঠুন। ২০১৪ সালের জুনে সর্বশেষ ওয়ানডেতে তাকে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে দেখা যায় ভারতের বিপক্ষে। যদিও ঘরোয়া ক্রিকেটে তিনি বেশ পরীক্ষিত একজন পারফর্মার। কিন্তু জাতীয় দলে ২০১৪ সালের আগস্টের পর আর দেখা যায়নি মিঠুনকে। এ সময়ের মধ্যে ১০টিরও ওপরে টি২০ ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ। কিন্তু মিঠুনকে দেখা যায়নি একাদশে।

মিঠুনের দলে অন্তর্ভুক্তি নিয়ে বুধবার সংবাদ সম্মেলন করে দল ঘোষণার সময় প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ বলেন, ‘ভারতে একটা টুর্নামেন্ট খেলেছে মিঠুন। বিপিএলে বলব না খুব ভাল করেছে। তবে ‘এ’ দলের হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ও জিম্বাবুইয়েতে খুব ভাল খেলেছে। খুলনায় ক্যাম্পেও ভাল খেলেছে। সব বিবেচনা করে ওকে নিয়েছি। আসলে টিম হয় একটা কম্বিনেশন চিন্তা করে। স্পটে কাকে খেলাবে, আমাদের সঙ্গে কথা বলে কোচ অধিনায়ক করে থাকে। সেই বিবেচনায় তাকে নিয়েছি সে টপঅর্ডার থেকে যে কোন জায়গায় খেলতে পারে। পাশাপাশি সে অনেক অভিজ্ঞও। ‘এ’ দলের পারফর্মেন্স সাহায্য করেছে তাকে দলে নেয়ার ক্ষেত্রে। আমরা তাকে টি২০ খেলোয়াড় মনে করি এবং সে প্রথম সুযোগ এই সংস্করণেই পেয়েছিল। এবার এই স্টেজে দেখতে চাই সে কেমন করে।’ সঙ্গে তাহলে জিম্বাবুইয়ে সিরিজে কেন খেলানো হলো না মিঠুনকে? এ প্রশ্নের জবাবে ফারুক আহমেদ বলেন, ‘তখন মিঠুন পুরপুরি ফিট ছিল না। আমরা পরে ওকে নিয়েছি। তখন ও খুব ভাল করেছে। সে আমাদের বিবেচনায় ছিল। সে ওয়ানডে খেলেছে। তারপর ওয়েস্ট ইন্ডিজ গিয়েছে। কিন্তু ইনজুরি হয়ে ফিরে এসেছে। সে যে মানের খেলোয়াড় তার পুরোটা আমরা দেখতে পারি নাই। আমার মনে হয় সে খুব ভাল খেলোয়াড়। সে যদি সঠিক জায়গায় সঠিক সময়ে সুযোগ পায় সে কিছু করে দেখাতে পারবে এবং সেই ক্যাপাবিলিটি তার আছে।’ ওপেনিংয়ে তামিম ও সৌম্য সরকারের ব্যাকআপ হিসেবেও দেখা হচ্ছে মিঠুনকে।

স্পিনারদের মধ্যে সাকিব আল হাসান ছাড়া আছেন কেবল একজনই। তিনি হলেন অফ স্পিনার আরাফাত সানি। দুই স্পিনারের পাশে স্কোয়াডে আছেন পাঁচ পেসার। পেস আক্রমণটা সাম্প্রতিক সময়ের মতো দারুণ শক্তিশালী। মাশরাফি বিন মর্তুজা তো আছেনই। সঙ্গে আরও চারজন আছেনÑ মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, আল-আমিন হোসেন ও আবু হায়দার রনি।

জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে বিশ্রামে থাকা নাসির হোসেন ফিরেছেন দলে। এছাড়া চারজনের স্ট্যান্ডবাই তালিকাও ঘোষণা করা হয়েছে। সেখানে আছেনÑ ইমরুল কায়েস, কামরুল হাসান রাব্বি, মুক্তার আলী ও শুভাগত হোম।

আগামী ৮ মার্চ ভারতের মাটিতে শুরু হবে টি২০ বিশ্বকাপের আসর। তিন এপ্রিল শেষ হতে যাওয়া এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশকে বাছাইপর্ব খেলে আসতে হবে। ৯ মার্চ হল্যান্ডের বিপক্ষে, ১১ মার্চ আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ও ১৩ মার্চ ওমানের বিপক্ষে লড়াই করবে বাংলাদেশ। সব ম্যাচ হবে ভারতের ধর্মশালায়। যদি এ পর্ব অতিক্রম করতে পারে বাংলাদেশ, তাহলে সেরা ১০ এ খেলার সুযোগ পাবে। এ বিশ্বকাপে অংশ নেয়ার জন্য বুধবার বাংলাদেশের চূড়ান্ত দল ঘোষণা করেছে নির্বাচকরা। যেখানে মিঠুনের নামটিই সবার কাছে চমক হয়ে ধরা দিয়েছে।

বাংলাদেশ স্কোয়াড ॥ মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান রুম্মন, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মুস্তাফিজুর রহমান, আবু হায়দার রনি, আল-আমিন হোসেন, আরাফাত সানি, নাসির হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, তাসকিন আহমেদ, মোহাম্মদ মিঠুন।

স্ট্যান্ডবাই ॥ ইমরুল কায়েস, কামরুল হাসান রাব্বি, মুক্তার আলী ও শুভাগত হোম।

প্রকাশিত : ৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৬

০৪/০২/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



শীর্ষ সংবাদ: