১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ঠাকুরগাঁওয়ে লোডশেডিং ॥ এসএসসি পরীক্ষা নিয়ে সংশয়ে শিক্ষার্থীরা


নিজস্ব সংবাদদাতা, ঠাকুরগাঁও ॥ চলছে এসএসসি পরীক্ষা। শিক্ষার্থীদের শিক্ষা জীবনের গুরুত্বপূর্ণ ধাপ এই পরীক্ষা। কিন্তু ঠিক এসময় প্রতি ঘন্টায় বিদ্যূতের লোডশেডিংএর আলো আধারের খেলায় ঠাকুরগাঁওয়ের শিক্ষার্থীরা তাদের পরীক্ষা নিয়ে সংশয়ে পড়েছে ।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার এসময় ঠাকুরগাঁও জেলা ও উপজেলা শহরগুলোতে প্রতিদিন সকাল থেকে গভীররাত অবধি লোডশেডিং চলছে । গত ১ সপ্তাহ থেকে চলছে এমন অবস্থা।

ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থী আদনান সরকার জানায়, এমনিতো নতুন নিয়মে পরীক্ষা নিয়ে আমরা খুব অসুবিধায় আছি। তার উপরে আবার পরীক্ষার রাতে লোডশেডিং। এ যেন মরার উপর খারার ঘা।

ঠাকুরগাঁও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিক্ষার্থী সেজুতি রানী জানান, পড়ার টেবিলে বসার পর যদি লোডশেডিং হয় তাহলে পড়ায় মন বসানো যায় না। আর এখনতো শীতকাল। তাহলে লোডশেডিং কী আমাদের পরীক্ষা খারাপ করার জন্য দেয়া হচ্ছে ?

ঠাকুরগাঁও সিএম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিক্ষার্থী মারুফা আক্তার জানান, পরিক্ষার সময় লোডশেডিং হলে আমরা পড়বো কিভাবে। এতদিন লোডশেডিং ছিলনা এখন পরিক্ষার এসময় শুরু হয়েছে।

ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আখতারুজ্জামান সাবু জানান, পরীক্ষার আগের রাতে শিক্ষার্থীরা পরিক্ষার জন্য প্রস্তুতি নেয়। কিন্তু লোডশেডিংয়ের কারণে তারা প্রস্তুতি নিতে না পারলে পরীক্ষা খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

ঠাকুরগাঁও বিদ্যুৎ অফিসের নির্বাহী প্রকৌশলী আলমগীর মাহামুদ জানান, আমরা লোডশেডিং বন্ধ করার জন্য দ্রুত চেষ্টা করছি। যত তাড়াতাড়ি সমস্যার সমাধান করা যায় আমরা করবো। কয়েকদিন একটু অসুবিধা হবে পরীক্ষার্থীদের।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক মূকেশ চন্দ্র বিশ্বাস জানান, গ্রীডে ট্রান্সফরমার নষ্ট হয়ে যাওয়ায় লোডশেডিং হচ্ছে। এটা মেরামতের জন্য ১০-১৫ দিন সময় লাগবে। এজন্য রাত করে বিদ্যুতের চাপ বেশি হলে লোডশেডিং দেয়া হয় |

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: