২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বেজায় চটেছেন ট্রাম্প


বেশ চলছিল ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনী দৌড়ঝাঁপ। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থিতা প্রতিযোগিতায় তিনি প্রায় রিয়ালিটি শো সেলিব্রেটি বনে গিয়েছিলেন। মুসলিমদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞার দাবি তুলে, মেক্সিকান শরণার্থীদের মাদক চোরাকারবারি বলে গালি দিয়ে আসর মাত করে ফেলেছিলেন ট্রাম্প। কিন্তু বাদ সেধেছেন ফক্স টিভি চ্যানেলের উপস্থাপক মেগিন কেলি। তার কারণেই নিউইয়র্ক বিলিয়নিয়ারের অবাধ ‘অগ্রযাত্রা’ হঠাৎ করে হোঁচট খেল।

মেগিন পক্ষপাতমূলক আচরণ করছেন এমন অভিযোগ দেখিয়ে ট্রাম্প বৃহস্পতিবার আইওয়া বিতর্ক বয়কট করেন। সোমবার ওই অঙ্গরাজ্যে প্রথম দলীয় ককাসের আগে প্রার্থিতা প্রত্যাশীরা শেষবারের মতো বিতর্ক করেন। ট্রাম্প এই বিতর্ক বয়কট করলেও নানা কারণে তিনি নিজের এমন একটি ইমেজ তৈরি করে ফেলেছেন যে তাকে ছাড়া এখন রিপাবলিকান ডিবেটের কথা চিন্তাই করা যায় না। তারপরও সেটি হয়ে গেল।

বিতর্কে অংশ না নেয়ার যৌক্তিকতা ব্যাখ্যা করে ট্রাম্প টুইটারে লিখেছেন, ‘আমি এই বিতর্কে যাচ্ছি না। কারণ এটি রিপাবলিকান দলের বিতর্ক হবে না। হবে এক চরম বিশৃঙ্খলা।’ তিনি মেগিনের প্রতি মনের ক্ষোভ উজাড় করে দেন। মেগিনকে ট্রাম্প একজন রূপ সর্বস্ব নির্বোধ নারী আখ্যা দেন। ট্রাম্প লিখেছেন, ‘এই রকম একজন নির্বোধ নারী কি না প্রশ্ন করছে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়তে যাওয়া ব্যক্তিদের।’ ট্রাম্প ২০১০ সালে জিকিউ সাময়িকীতে ছাপা হওয়া মেগিনের কয়েকটি ছবিও সেঁটে দিয়েছেন তার টুইট বার্তায়। তিনি মেগিনের প্রতি এতটাই রুষ্ট যে সৌদি প্রিন্স আলওয়ালিদ বিন তালালের সঙ্গে হিজাব পরা মেগিনের ফটোশপ করা ছবিও জুড়ে দেন। তিনি এর শিরনাম দেন, ’গুগল ইট’ ছবিটি গুগলে প্রচার করা হোক। এটি ট্রাম্পের নারীর প্রতি এ ধরনের অসৌজন্যমূলক আচরণের নিন্দা করেছেন অনেক রিপাবলিকান সমর্থক। ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থিতা প্রতিযোগিতায় নামার ঘোষণা দিয়েছিলেন গত বছর আগস্টে। ওহাইওর ক্লিভল্যান্ড শহরে তিনি দলীয় প্রথম বিতর্কে অংশ নেন। ওই অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন মেগিন।

মেগিন ট্রাম্প নারীবিষয়ক তার অতীত কয়েকটি মন্তব্য নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হন। ওই থেকে মেগিনের সঙ্গে তার বনিবনা হচ্ছে না। বৃহস্পতিবার ডেসময়েতে বিতর্কে অংশ নেয়ার শর্ত হিসেবে ট্রাম্প ও মেগিনকে সঞ্চালক প্যানেল থেকে বাদ দেয়ার দাবি জানান। কিন্তু ফক্স টেলিভিশন তার সে অনুরোধে ঢেঁকি গেলেনি।

বৃহস্পতিবারের বিতর্কে ক্রিস ওয়ালেস এবং ব্রেট বেইরের সঙ্গে মেগিনও উপস্থাপনায় অংশ নেন। ট্রাম্পের অনুপস্থিতিকে কটাক্ষ করে মেগিন বলেন, ‘দ্য এলিফেন্ট নট ইন দ্য রুম।’ অর্থাৎ ঘরের মধ্যে হাতিটি নেই।