২৪ জানুয়ারী ২০১৮,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

দুই ফান্ডের অবসায়নের আইনি লড়াই ৫ প্রতিষ্ঠান


অর্থনৈতিক রিপোটার ॥ এইমস ফার্স্ট গ্যারান্টেড মিউচুয়াল ফান্ড এবং গ্রামীণ মিউচুয়াল ফান্ড: স্কিম ওয়ান এর অবসায়ন সংক্রান্ত মামলায় আইনি লড়াই করছে পাঁচ প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো - ইউসিবিএল ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টস, ব্র্যাক ইপিএল স্টক ব্রোকারেজ এবং ভিআইপিবি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট। গত বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠান পাঁচটি মামলায় পক্ষভুক্ত হয়েছে।

উল্লেখ, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ফান্ড দুটির ইউনিটহোল্ডার সম্মেলনে বেশিরভাগ ইউনিটহোল্ডার এ দুটি ফান্ডের অবসায়নের পক্ষে মত দেন। আর এ অনুসারে ফান্ড দুটির ট্রাস্টি অবসায়নের প্রস্তুতি নিতে শুরু করে। কিন্তু আলী জামান নামের জনৈক বিনিয়োগকারীর মামলায় সাময়িকভাবে তা প্রক্রিয়াটি স্থগিত হয়ে যায়। নির্দিষ্ট মেয়াদের পর মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ড অবসায়ন অথবা বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তরের আইনী বাধ্যবাধকতাকে চ্যালেঞ্জ করে তিনি হাইকোর্টে রিট করেন।

এইমস ফার্স্ট গ্যারান্টেড মিউচুয়াল ফান্ড এবং গ্রামীণ মিউচুয়াল ফান্ড: স্কিম ওয়ান এর অবসায়ন জটিলতায় ইউনিটহোল্ডারদের স্বার্থরক্ষায় মাঠে নেমেছে ট্রাস্টি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি (বিজিআইসি)। প্রতিষ্ঠানটি এ সংক্রান্ত মামলায় পক্ষভুক্ত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার এই মামলায় পক্ষভুক্ত হয়েছে - প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ইউসিবি ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্টস, ব্র্যাক ইপিএল স্টক ব্রোকারেজ এবং ভিআইপিবি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট।

আইনী লড়াইয়ের জন্য তারা অ্যাডভোকেট আমিন উদ্দিনকে দায়িত্ব দিয়েছেন। মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ডের অবসায়ন বা রূপান্তর প্রক্রিয়া ইস্যুতে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে ১০ জানুয়ারি আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে আপিল শুনানিতে অংশ গ্রহণ করবে প্রতিষ্ঠানগুলো।

পাঁচ প্রতিষ্ঠানের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আমিন উদ্দিন বলেন, আইনের সুশাসন প্রতিষ্ঠায় আমার মক্কেলরা লড়াইয়ে নামছেন। বেশিরভাগ ইউনিটহোল্ডার ফান্ড দুটি অবসায়ন করার পক্ষে মত দেওয়ায় এ দুটির অবসায়নে আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এর বিরোধিতা করা মানে বিদ্যমান আইনের বিরুদ্ধে যাওয়া। আমরা আইনের পরিপালন নিশ্চিত করতে চাই।

প্রসঙ্গত, মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ডের মেয়াদ শেষে তার অবসায়ন অথবা বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তর করার সুযোগ রেখে গত বছর একটি গাইডলাইন প্রকাশ করে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক বিএসইসি। গাইডলাইন অনুসারে, মেয়াদ শেষের ছয় মাস আগে ইউনিটহোল্ডারদের নিয়ে বিশেষ সভার আয়োজন করবে সংশ্লিষ্ট ফান্ডের ট্রাস্টি। আর এ সভায় উপস্থিত ইউনিটহোল্ডারদের মতামতের ভিত্তিতে ঠিক করা হবে সংশ্লিষ্ট ফান্ড বন্ধ করে দেওয়া হবে নাকি সেটিকে বে-মেয়াদি ফান্ডে রূপান্তর করা হবে।

গত বছরের ২৯ জুন নির্ধারিত ১০ বছর মেয়াদ শেষ হওয়া আইসিবি ফার্স্ট, গ্রামীণ ওয়ান: স্কিম ওয়ান ও এইমস ফার্স্ট গ্যারান্টেড মিউচুয়াল ফান্ডের রূপান্তর-অবসায়নের সময়সীমা বেঁধে দেয় সংস্থাটি। যার পরিপ্রেক্ষিতে ইউনিটহোল্ডারদের সিদ্ধান্ত অনুসারে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে বে-মেয়াদিতে রূপান্তরের প্রক্রিয়া শুরু করে আইসিবি ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের ট্রাস্টি। আর একই সময়ের মধ্যে অবসায়নের প্রক্রিয়ায় ছিল এইমস ফার্স্ট ও গ্রামীণ ওয়ান স্কিম ওয়ান।

বিএসইসির বিধিকে চ্যালেঞ্জ করে বিনিয়োগকারী আলী জামান উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করেন। এ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৪ সেপ্টেম্বর বিচারপতি মির্জা হোসাইন হায়দার ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ মিউচুয়াল ফান্ডের রূপান্তর বা অবসায়ন-সংক্রান্ত বিএসইসির নির্দেশনার কার্যকারিতা ছয় মাসের জন্য স্থগিত রাখার আদেশ দেন। একই সঙ্গে বিধির সঙ্গে সাংঘর্ষিক প্রজ্ঞাপন ও এর ভিত্তিতে জারি করা আদেশ কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চেয়েও রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

পরবর্তীতে বিএসইসি এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করলে গত ১ নবেম্বর হাইকোর্টের নির্দেশ বাতিল করে দেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে হাইকোর্ট বেঞ্চে বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়। নির্ধারিত দিনে মিউচুয়াল ফান্ডের রূপান্তর-অবসায়ন ইস্যুতে বিএসইসির প্রজ্ঞাপন ও এর আলোকে প্রদত্ত সর্বশেষ নির্দেশনা অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেন হাইকোর্ট বিভাগ। এতে আইসিবি ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের রূপান্তর এবং গ্রামীণ ওয়ান: স্কিম ওয়ান ও এইমস ফাস্ট গ্যারান্টেড মিউচুয়াল ফান্ডের অবসায়ন প্রক্রিয়া স্থগিত হয়ে যায়।

পরবর্তীতে হাইকোর্টের এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল আবেদন করে বিএসইসি। গত ১৭ ডিসেম্বর মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ডের অবসায়ন বা রূপান্তরের প্রক্রিয়া ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত স্থগিত রাখার নির্দেশনা দেন সুপ্রিম কোর্টের অবকাশকালীন চেম্বার বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী। একই সঙ্গে ১০ জানুয়ারি আপিলের পূর্ণাঙ্গ শুনানির দিন ধার্য করেন।

এ আদেশের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম জানিয়েছিলেন, ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত কোনো মিউচুয়াল ফান্ডের রূপান্তর বা অবসায়নের প্রক্রিয়া চলবে না। এছাড়া এ সময় পর্যন্ত স্টক এক্সচেঞ্জে ফান্ডগুলোর ইউনিট কেনাবেচায় বাধা অপসারণ হয়

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: