মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

মিরাজকে অধিনায়ক করে দল ঘোষণা বাংলাদেশের

প্রকাশিত : ২৪ ডিসেম্বর ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ হবে এবার বাংলাদেশে। ২৭ জানুয়ারি থেকে ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিশ্বকাপের খেলা হবে। এ উদ্দেশে বুধবার বাংলাদেশ অনুর্ধ ১৯ দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ঘোষিত দলের অধিনায়ক করা হয়েছে মেহেদী হাসান মিরাজকে।

মিরাজের ডেপুটি থাকছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ১৫ সদস্যের দলে আরও আছেন- জয়রাজ শেখ ইমন, পিনাক ঘোষ, মোহাম্মদ সাইফ হাসান, জাকির হাসান, সাইফউদ্দিন, শফিউল হায়েত, সাঈদ সরকার, মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ আব্দুল হালিম, সনজিত শাহা, সালেহ আহমেদ শাওন গাজী, আরিফুল ইসলাম জনি ও জাকের আলী অনিক। স্ট্যান্ডবাই আছেন আরও ৪ জন। তারা হলেন- মুনিম শাহরিয়ার, মোসাব্বেক হোসেন সান, রিফাত প্রধান ও কাজী অনিক ইসলাম। যদি কোন ক্রিকেটার ইনজুরিতে পড়েন স্ট্যান্ডবাই ক্রিকেটার থেকে নেয়া হবে।

বাংলাদেশের ম্যাচ দিয়েই শুরু হবে অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ। প্রথম ম্যাচেই চট্টগ্রামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। এরপর এক এক করে কক্সবাজারে ৩১ জানুয়ারি স্কটল্যান্ড ও ২ ফেব্রুয়ারি নামিবিয়ার বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে লড়াই করবে মিরাজের দল।

অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপের উত্তাপ শুরু হয়ে গিয়েছিল ৭ ডিসেম্বর থেকেই। যেদিন নগরীর একটি হোটেলে সূচী ঘোষণা করা হলো। দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশ অনুর্ধ ১৯ বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ পাচ্ছে। ১১তম এই আসরটির গর্বিত আয়োজক বাংলাদেশ। ২০০৪ সালের পর দ্বিতীয়বারের মতো যুব বিশ্বকাপ ক্রিকেট আয়োজন হতে যাচ্ছে এখানে। এছাড়া ২০১১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপের যৌথ আয়োজক এবং ২০১৪ সালের টি২০ বিশ্বকাপের একক আয়োজক ছিল বাংলাদেশ।

আগের মতোই যুব বিশ্বকাপ ক্রিকেট হবে ১৬ দলের অংশগ্রহণে ৮ ভেন্যুতে। সবমিলিয়ে মোট ১৯ দিনের টুর্নামেন্টে ৪৮ ম্যাচ হবে। ঢাকা, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম ও সিলেটের মোট ৮ ভেন্যুতে খেলাগুলো হবে। উদ্বোধনী ম্যাচে ২৭ জানুয়ারি স্বাগতিক বাংলাদেশ ও গতবারের চ্যাম্পিয়ন দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ইংল্যান্ড ও ফিজি চট্টগ্রামে মুখোমুখি হবে। অবশ্য এর আগেই ২২ জানুয়ারি থেকে প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়ে যুব বিশ্বকাপের যাত্রা শুরু হয়ে যাবে। বাংলাদেশ যুব ক্রিকেট দল ‘এ’ গ্রুপে দক্ষিণ আফ্রিকা ছাড়াও লড়বে নামিবিয়া ও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে।

১৯৮৮ সালে প্রথমবার অনুষ্ঠিত ছোটদের এ বিশ্বকাপের এখন পর্যন্ত ১০ আসর আয়োজিত হয়েছে। এর মধ্যে সর্বাধিক তিনবার করে শিরোপা জিতেছে অস্ট্রেলিয়া (১৯৮৮, ২০০২ ও ২০১০) ও ভারত (২০০০, ২০০৮ ও ২০১২)। পাকিস্তান ২০০৪ ও ২০০৬ সালে এবং দক্ষিণ আফ্রিকা (২০১৪) ও ইংল্যান্ড (১৯৯৮) একবার করে যুব বিশ্বকাপ জয় করে।

যুব বিশ্বকাপের ফরমেটটা একটু ভিন্ন। চার গ্রুপে বিভক্ত ১৬ দলের মধ্যে শীর্ষ দুটি করে দল সুপার লীগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। আর বাকি আট দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় প্লেট চ্যাম্পিয়নশিপ। বাংলাদেশ যুবদল ১৯৯৮ সালে প্রথমবার প্লেট চ্যাম্পিয়ন হয়। এছাড়া ২০০৪ সালের ঘরের মাঠে এবং ২০১০ ও ২০১৪ সালেও প্লেট চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ। এখন পর্যন্ত মাত্র তিনবার গ্রুপ পর্ব পেরিয়ে সুপার লীগ খেলতে পেরেছে বাংলাদেশের যুবারা। সেরা সাফল্য ২০০৬ সালে শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত যুব বিশ্বকাপে। পঞ্চম স্থান অর্জন করে বাংলাদেশ। এবার ঘরের মাঠে কী করবে বাংলাদেশ অনুর্ধ ১৯ ক্রিকেট দল?

অনুর্ধ ১৯ দল ॥ মেহেদী হাসান মিরাজ (অধিনায়ক), নাজমুল হোসেন শান্ত (সহ-অধিনায়ক), জয়রাজ শেখ ইমন, পিনাক ঘোষ, মোহাম্মদ সাইফ হাসান, জাকির হাসান, সাইফউদ্দিন, শফিউল হায়েত, সাঈদ সরকার, মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ আব্দুল হালিম, সনজিত শাহা, সালেহ আহমেদ শাওন গাজী, আরিফুল ইসলাম জনি ও জাকের আলী অনিক।

স্ট্যান্ডবাই- মুনিম শাহরিয়ার, মোসাব্বেক হোসেন সান, রিফাত প্রধান ও কাজী অনিক ইসলাম।

প্রকাশিত : ২৪ ডিসেম্বর ২০১৫

২৪/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: