১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

কোরানের কপিটি আবুবকরের!


কোরানের কপিটি আবুবকরের!

ব্রিটেনের বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্প্রতি পাওয়া একহাজার ৩৭০ বছরের পুরনো কোরান শরীফের কপিটি মহানবী হযরত মুহাম্মদের (সা) সাহাবী ও ইসলামের প্রথম খলিফা হযরত আবুবকর (রা) সংকলিত পূর্ণাঙ্গ কোরানের কপি। রেডিও কার্বন পদ্ধতি ব্যবহার করে কোরানের এই কপিটি লেখার সময় নির্ণয় করা হয়েছে। ফলে পবিত্র কোরান শরীফের এই কপিটিকে সবচেয়ে পুরান এবং মুসলিম বিশ্বের জন্য এক অমূল্য সম্পদ হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে। খবরে বলা হয়েছে, কোরান শরীফটির কয়েকটি পাতা বর্তমানে প্যারিসে থাকতে পারে। এক সময় এই কপিটি মিসরের অন্যতম প্রাচীন মসজিদ আমর ইবনে আল-আস ইন ফুসতাতে সংরক্ষিত ছিল। পরে উনবিংশ শতাব্দীতে মিসর যখন ফ্রান্সের শাসনে ছিল তখন মিসরে নিযুক্ত সম্রাট নেপোলিয়নের ভাইস কনসাল এ্যাসেলিন ডি শারভিলে কপিটিকে প্যারিসে নিয়ে যান। এই কোরানের কয়েকটি পাতা বর্তমানে ন্যাশনাল লাইব্রেরি অব ফ্রান্সে সংরক্ষিত রয়েছে। তবে কোরানের এই কপিটি ফ্রান্সের কাছ থেকে ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষের হাতে যাওয়া বিষয়ে কলেজ ডি ফ্রান্সের কোরানবিষয়ক অধ্যাপক ও ঐতিহাসিক ফ্রাঙ্কোশ ডিরোচ বলেন, আমরা নিশ্চিত যে বার্মিংহামে পাওয়া কোরানের এই কপিটির কয়েকটি পাতা আমাদের হাতে রয়েছে।

তিনি বলেন, ১৮২০ সালে এ্যাসেলিন ডি শারভিলে নামের এই বিধবা কোরানের এই কপিটিসহ আরও কিছু ইসলামী নিদর্শন ব্রিটিশ লাইব্রেরি কর্তৃপক্ষের কাছে বিক্রি করে দেন। তবে এই কোরানের কয়েকটি পাতা তখন ফ্রান্সে রয়ে যায়। তারপর আরও কয়েক দফা হাত বদলের পর এটি বার্মিংহ্যাম কর্তৃপক্ষের হাতে পড়ে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুম ফাউন্ডেশন ফর ইসলামিক স্টাডিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জামাল বিন হুয়ারিব কোরানটিকে হযরত আবু বকরের (রা) কর্তৃক সঙ্কলিত বলে মনে করছেন। তার মতে এ ধরনের একটি নথি খুব কমসংখ্যক লোকের কাছেই সংরক্ষিত থাকার সম্ভাবনা ছিল। সে হিসেবে হযরত আবু বকরের কাছেই হয়ত কপিটি ছিল। তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি, এই কোরান শরীফটি আবু বকরের (রা) কাছে ছিল।

জামাল বিন হুয়ারিবের মতে বার্মিংহ্যামে পাওয়া এই কোরানটি ইসলামের সূচনালগ্নে লিখিত হয়েছিল।

এ সময় সারাবিশ্বে মুসলমানদের সংখ্যা ছিল মাত্র হাতেগোনা। এই কোরানে ব্যবহৃত পশুর চামড়ার কাগজ এবং হাতের লেখা দেখে মনে হয়, ২০০ পাতার এই মূল কপিটি তখন যার জন্য তৈরি করা হয়েছিল সে সময় তিনি ছিলেন একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি।

তার মতে, কোরানের এই কপিটিকে ইসলাম এবং কোরানের সূচনা লগ্নের। কোরানের এই কপিটি গবেষণার মাধ্যমে ইসলামের অনেক অজানা অধ্যায় বের হয়ে আসতে পারে বলে মত দেন তিনি।

এ বিষয়ে বার্মিংহ্যাম বিশ্ববিদ্যালয়ের খ্রিস্টিয়ানিটি এ্যান্ড ইসলাম ধর্মবিষয়ক অধ্যাপক ডেভিড থমাস বলেন, যিনি এই কপিটি যিনি লিখেছিলেন তিনি হয়ত হযরত মুহাম্মদকে দেখেছেন।

মহানবীর (সা) পরিবারের বাইরে প্রথম ইসলাম গ্রহণকারী হিসেবে সুপরিচিত হযরত আবু বকর (রা)। তিনি মহানবীর (সা) অত্যন্ত বিশ্বস্ত সাহাবী ছিলেন। ৬৩২ হিযরিতে মহানবীর মৃত্যুর পর ইসলামের প্রথম খলিফা নির্বাচিত হন তিনি। ২৭ মাস ক্ষমতায় ছিলেন আবু বকর। বিবিসি ও দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট অবলম্বনে নাজিম মাহমুদ।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: