১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

বিদেশী নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে প্রশংসা বার্নিকাটের


কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ নিরাপত্তার বিষয়ে বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যৌথভাবে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাট। বিদেশী নাগরিকদের নিরাপত্তায় বাংলাদেশ সরকারের পদক্ষেপের প্রশংসা করেছেন তিনি। তবে নিরাপত্তার বিষয়ে কখনই পুরোপুরি সন্তুষ্ট হওয়া যায় না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এদিকে বড়দিন সামনে রেখে বাংলাদেশে ভ্রমণ সতর্কবার্তা জারি করেছে অস্ট্রেলিয়া। বুধবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও সচিব শহীদুল হকের সঙ্গে পৃথক বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেন, বিদেশী নাগরিক ও কূটনীতিকদের নিরাপত্তায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নেয়া পদক্ষেপ ইতিবাচক। তবে নিরাপত্তার বিষয়টি অনেক বড়। নিরাপত্তা বিষয়ে কখনই পুরোপুরি সন্তুষ্ট হওয়া যায় না বলে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে অব্যাহতভাবে বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আসছে বড়দিনে গির্জা ও কূটনৈতিক এলাকায় বিশেষ নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, ঢাকা শহরের ৬০টি চার্চসহ সরকারী চার্চগুলোতে বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এছাড়া রাজধানীর কূটনৈতিক এলাকায় বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হবে। সরকার থেকে এমন উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানান বার্নিকাট।

এক প্রশ্নের উত্তরে মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, আগামী বছর বাংলাদেশে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ মার্কিন প্রতিনিধিদের সফর রয়েছে। তবে কোন নির্দিষ্ট তারিখ উল্লেখ করেননি বার্নিকাট।

রোহিঙ্গাদের বিষয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মনোভাব জানতে চাইলে মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, একদিন আগে কক্সবাজারে গিয়ে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেছি। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের সঙ্গে আমরা কাজ করছি। মানবিকতার স্বার্থেই রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান হওয়া জরুরী বলে তিনি জানান।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে এক বৈঠকে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট ঢাকার কূটনৈতিক জোনে নিরাপত্তা জোরদার এবং সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় বাংলাদেশের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এছাড়া সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় বাংলাদেশের পুলিশ বিভাগকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার প্রশিক্ষণ দিতে আগ্রহী বলেও জানান বার্নিকাট।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে ঢাকা-নিউইয়র্ক সরাসরি বিমান চালুর বিষয়ে আলোচনা হয়। এ সময় উভয়েই একমত হন, ঢাকা-নিউইয়র্ক সরাসরি বিমান চলাচল সেবা শুরু করতে পারলে দুই দেশের নাগরিকরা খুব উপকৃত হবে।

এদিকে বড়দিন সামনে রেখে বাংলাদেশে অবস্থানরত নাগরিকদের জন্য আবারও ভ্রমণ সতর্কতা হালনাগাদ করেছে অস্ট্রেলিয়া। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে হালনাগাদ করা ওই সতর্ক বার্তায় বলা হয়েছে, অতীতে বাংলাদেশে বেশকিছু সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। বাংলাদেশের নিরাপত্তা সংস্থাগুলো জঙ্গীবাদী ও সন্ত্রাসী সংগঠনের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত ব্যক্তিদের গ্রেফতার অব্যাহত রেখেছে। ওই গোষ্ঠীগুলোর কয়েকটি পশ্চিমাবিরোধী দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করে।

বার্তায় আরও বলা হয়েছে, খ্রীস্টান সম্প্রদায়ের বড়দিন ও নতুন বছর উপলক্ষে ছুটি চলাকালে উন্মুক্ত স্থানে যাওয়ার সময়ে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত অস্ট্রেলীয়দের। পশ্চিমা স্বার্থের বিরুদ্ধে আরও হামলা হতে পারে। সতর্কতার স্তর পরিবর্তিত হয়নি। অস্ট্রেলীয় নাগরিকদের বাংলাদেশে উচ্চমাত্রার সতর্কতা অনুসরণ করা উচিত বলেও জানানো হয়।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: