মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে হবে খালেদাকে ॥ আওয়ামী লীগ

প্রকাশিত : ২৪ ডিসেম্বর ২০১৫

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের জন্য বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো উচিত বলে মনে করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দলটির দাবি, তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হোক। দেশবাসীসহ বিএনপির স্বাধীনতায় বিশ্বাসী নেতাদের ‘পাকিপ্রেমী’ খালেদা জিয়াকে প্রত্যাখ্যানের আহ্বান জানিয়ে দলটি বলেছে, দেশের ছোটখাটো অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বিদেশীদের কাছে ধরনা দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে বিএনপি। স্থানীয় একটি নির্বাচন নিয়ে বিদেশীদের কাছে ধরনা দিয়ে গোটা জাতিকেই তারা হেয় করেছে। এ হীনমানসিকতায় গোটা জাতি আজ বিএনপিকে ধিক্কার জানাচ্ছে।

বুধবার ধানম-ির আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের পক্ষ থেকে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন দলটির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ। মূলত মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়ার বক্তব্যের জবাব দিতেই এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে হানিফ বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ ও শহীদের সংখ্যা নিয়ে খালেদা জিয়া কটূক্তি করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ওপরই আঘাত করেছেন। এই চরম অবমাননাকর বক্তব্য দেয়ার পর অবশ্যই আমরা মনে করি খালেদা জিয়াকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো উচিত। আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দায়িত্ব সরকারের, আওয়ামী লীগের নয়। তবে আমরা এ সংবাদ সম্মেলন থেকে সরকারের কাছে জোর দাবি করছি যে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ওপর আঘাত হানার জন্য খালেদা জিয়াকে আইনী কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে বিচার করা হোক।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে এমন কটাক্ষ করার পর মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী মুক্তিপাগল বাংলার মানুষ ও নাগরিকদের রোষানল থেকে খালেদা জিয়া ও তার দলের কর্মীরা যে অক্ষত আছেন; গণতান্ত্রিক পরিবেশ বিরাজ করছে বলেই এটা সম্ভব হয়েছে। নতুবা খালেদা জিয়ারা রাস্তায় বের হতে পারতেন না। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করাও কঠিন হয়ে যেত।

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে কূটনীতিকদের সঙ্গে বিএনপির বৈঠকে এ বিষয়ে সাংবাদিকরা দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, একটি স্বাধীন-সার্বভৌমত্ব দেশের নাগরিক হিসেবে অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কিভাবে বিদেশীদের কাছে ধরনা দেয় বিএনপি? আমরা এটা দেখে খুব অবাক, বিস্মিত ও লজ্জিত হয়েছি। কারণ বাংলাদেশে স্থানীয় পর্যায়ে একটি নির্বাচন হচ্ছে। সেই নির্বাচন নিয়ে কেন বিদেশীদের কাছে ধরনা দিতে হবে? তিনি বলেন, বাংলাদেশ একটি স্বাধীন-সার্বভৌম দেশ, পরনির্ভরশীল নয়।

বিএনপির প্রতি অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা পৃথিবীতে বীরের জাতি। পৃথিবীতে যে কয়টা দেশ যুদ্ধ করে শত্রুকে পরাজিত করে দেশ স্বাধীন করেছে তার মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। তাই দয়া করে দেশের ছোটখাটো অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বিদেশীদের কাছে ধরনা দিয়ে দেশের মান-সম্মান নষ্ট করবেন না। বিএনপির এ ধরনের হীনমানসিকতার ধিক্কার জানাই।

হানিফ বলেন, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে খালেদা জিয়া যে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়েছেন তা জাতির জন্য অত্যন্ত লজ্জাজনক। এটা ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ। তবে উনি যে এ ধরনের বিভ্রান্তিকর তথ্য দেবেন, জাতি এর থেকে বেশি উনার কাছ থেকে আশা করেন না। কারণ খালেদা জিয়া কোনদিনই মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী ছিলেন না। মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানী হানাদারদের আতিথেয়তায় ক্যান্টনমেন্টে ছিলেন। আজকে যদি মুক্তিযুদ্ধে যারা পাকিস্তানীদের সহায়তা করেছে তারা যুদ্ধাপরাধী হিসেবে চিহ্নিত হয়, তবে জাতি মনে করে ওই সময় পাকিস্তানের দোসর হিসেবে খালেদা জিয়াও চিহ্নিত হয়ে থাকবেন।

মনেপ্রাণে পাকিস্তানী খালেদা জিয়াকে প্রত্যাখ্যান করার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, খালেদা জিয়ার স্বরূপ উন্মোচিত হয়েছে। যিনি একাত্তর সালে পাকিস্তানে ছিলেন, এখনও মনেপ্রাণে পাকিস্তানী। খালেদা জিয়া পাকিস্তানী ভাবধারা চিন্তা-চেতনায় বিশ্বাসী এবং পাকিস্তানের এজেন্ট হিসেবে এ দেশকে আবারও পূর্ব পাকিস্তান বানানোর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। এজন্য তার নেতৃত্বাধীন দলটি এখনও ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে।

নয়টার মধ্যে নির্বাচন শেষ হয়ে যাবে- জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের এমন মন্তব্যের বিষয়ে হানিফ বলেন, এরশাদের বয়স কত? ৮৪-৮৫ হবে। উনি বৃদ্ধ। তার স্বাভাবিক চিন্তা-চেতনা থাকা কঠিন। হেঁটে চলে বেড়াচ্ছেন এ জন্য তো আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করা উচিত।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, দফতর সম্পাদক এ্যাডভোকেট আবদুল মান্নান খান, ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আখতার প্রমুখ।

প্রকাশিত : ২৪ ডিসেম্বর ২০১৫

২৪/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: