১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ইংরেজী নববর্ষে উপহার সামগ্রীর বিক্রি বেড়েছে


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ কড়া নাড়ছে আরও একটি নববর্ষ। ইংরেজী এই নতুন বর্ষবরণকে কেন্দ্র করে অনেকটাই বেড়ে গেছে কার্ড, ক্যালেন্ডার, নোটবুকের মতো উপহার সামগ্রীর বিক্রি। ব্যবসায়ীরা বলছেন, কর্পোরেট পর্যায়ে এসবের ব্যবহার বাড়লেও, প্রযুক্তির বিকাশের সঙ্গে অনেকটাই কমেছে ব্যক্তিপর্যায়ে কার্ডবিনিময়ের রেওয়াজ।

প্রিয়জনকে উপহার দেয়া কিংবা কর্পোরেট সম্পর্ক জোরদারে, নতুন বছরের শুভেচ্ছা বিনিময়ের রেওয়াজ বেশ পুরনো। আর এজন্য ভোক্তা-পছন্দের শীর্ষে থাকে নিউইয়ার কার্ড, ডায়েরি, ক্যালেন্ডার আর নোটবুকের মতো উপহার সামগ্রী। প্রতিবারই বাড়তি চাহিদা নিয়ে পুরনো এই চলটিই বছরের শেষে আসে নতুন করে। তাই এ সময়ে, শুভেচ্ছা বার্তা পৌঁছে দেয়া এসব সামগ্রী তৈরিতে বেড়ে যায় ছাপাখানার ব্যস্ততা। ভার্চুয়াল শুভেচ্ছা জানানোর এই যুগে কার্ড-ক্যালেন্ডারের দোকানে এখন আর তেমনটা চোখে পড়ে না তরুণ প্রজন্মকে। তবে বিভিন্ন মৌসুমে এখনও বেশ চাঙ্গা হয়ে ওঠে এ ধরনের ব্যবসা। ব্যবসায়ীরা জানালেন, মৌসুমগুলোতে দ্বিগুণ হয়ে যায় এসব শুভেচ্ছা উপকরণের বিক্রি। পছন্দমতো একটি ওয়াল ক্যালেন্ডারের দাম পড়বে ২৫ থেকে ১৫০ টাকা, ডেস্ক ক্যালেন্ডার ৬০ থেকে ৮০ টাকা আর ডায়েরির দাম ১২০ থেকে এক হাজার টাকা পর্যন্ত।

আজাদ প্রোডাক্টসের পরিচালক জিয়াউর রহমান আজাদ বলেন, ‘এখন আর পার্সোনাল গ্রিটিংস কার্ডের চাহিদা আগের মতো নেই। কিন্তু কর্পোরেট গ্রিটিংস কার্ডের প্রচলন রয়েছে এখনও। অক্টোবর থেকে জানুয়ারি এই চার মাস আমাদের ব্যবসায় খুব চাপ থাকে।’ এসব উপহারসামগ্রী তৈরিতে রং আর আকার বৈচিত্র্যে প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে ভোক্তার রুচিকে।