মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

হাঙ্গেরিতে শরণার্থী বিরোধী ঘৃণামূলক প্রচারণা, জাতিসংঘের নিন্দা

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৫, ১১:৩১ এ. এম.

অনলাইন ডেস্ক ॥ হাঙ্গেরি সরকার শরণার্থীদের বিরুদ্ধে যে ঘৃণামূলক প্রচারণা চালাচ্ছে তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো।

হাঙ্গেরিতে সরকারি প্রচার মাধ্যমগুলোতে শরণার্থী বিরোধী বিভিন্ন ধরনের বার্তা প্রচার করা হচ্ছে।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা বলছে – 'সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে শরণার্থীদের সম্পৃক্ততা রয়েছে' হাঙ্গেরি সরকারের এমন প্রচারণা দেশটির সাধারণ মানুষের মনে অহেতুক ভয় আর আতঙ্ক বাড়িয়ে দিচ্ছে। '

হাঙ্গেরিতে নানা খবরের কাগজে পুরো পৃষ্ঠাজুড়ে শরণার্থী বিরোধী বিজ্ঞাপন ছাপা হচ্ছে।

রেডিও ও টেলিভিশনে প্রতি ঘন্টায় ঘন্টায় শরণার্থী বিরোধী সরকারি বার্তা প্রচার করা হচ্ছে।

শরণার্থীদের সঙ্গে সন্ত্রাসবাদের সম্পর্ক রয়েছে বিভিন্ন বার্তায় এমন ইঙ্গিত দেয়া হচ্ছে হাঙ্গেরিয়ান গণমাধ্যমগুলোতে।

ইউরোপে প্রতি বারো সেকেন্ডে একজন করে অবৈধ শরণার্থী প্রবেশ করছে-সাধারণ মানুষকে এ বলে সতর্ক করে দেয়া হচ্ছে।

প্রশ্ন তোলা হচ্ছে “এসব শরণার্থী কারা? তাদের মনে কী আছে, কেনইবা তারা এখানে আসছে? আর হাঙ্গেরি তাদের সম্পর্কে কিছুই জানেনা, এমন কথা বলা হচ্ছে।

শরণার্থীদের বিরুদ্ধে হাঙ্গেরি সরকারের এমন প্রচার প্রচারণার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ ও আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো।

এ ধরনের আপত্তিকর বার্তা বা বিজ্ঞাপন বন্ধ করার জন্য হাঙ্গেরিকে সতর্ক করে দিয়েছে জাতিসংঘ।

সংস্থাটি বলছে,যুদ্ধের মুখে নিজ দেশ থেকে থেকে পালিয়ে আসতে বাধ্য হচ্ছে শরণার্থীরা। নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে তারা ইউরোপে পাড়ি জমাচ্ছে। অথচ হাঙ্গেরির সরকার তাদের অপরাধী বা সন্ত্রাসী হিসেবে দাড় করানোর চেষ্টা করছে। এটা খুবই অবমাননাকর।

হাঙ্গেরিকে মানবিক হয়ে শরণার্থীদের সাহায্য করার আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।

সীমান্তে কাঁটা তারের বেড়া দেয়ার পর থেকে খুব কম সংখ্যক শরণার্থীই আসলে হাঙ্গেরিতে প্রবেশ করেছে।

আর সেখানে থেকে যাওয়া নয় বরং জার্মানি ও ফ্রান্সের মতো দেশই বেশিরভাগ শরণার্থীর গন্তব্য।

সূত্র: বিবিসি বাংলা

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৫, ১১:৩১ এ. এম.

২২/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ: