১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

নতুন কোম্পানি গঠনে পিডিবি কর্মকর্তা কর্মচারীদের ক্ষোভ


স্টাফ রিপোর্টার ॥ নতুন কোম্পানি গঠনের সিদ্ধান্তে বাংলাদেশ বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। বিদ্যুত বিভাগের তরফ থেকে রাজশাহী এবং রংপুর অঞ্চলের বিদ্যুত বিতরণে পৃথক বিতরণ কোম্পানি গঠনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। গত বছর সরকার একই ধরনের উদ্যোগ বাস্তবায়নের চেষ্টা করে। যদিও পিডিবির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্দোলনে ওই প্রক্রিয়া বন্ধ রাখতে হয়।

বিদ্যুত বিভাগ সূত্র জানায়, আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রস্তাবিত নর্থ ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির কাছে রংপুর এবং রাজশাহী অঞ্চলের সব স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তরের জন্য চিঠি দিয়েছে বিদ্যুত বিভাগ। সরকারের এই সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিতে আজ থেকে আন্দোলনে যাচ্ছে পিডিবির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তাঁরা বলছেন, পিডিবির কাছ থেকে ক্রমান্বয়ে বিতরণের সকল কার্যক্রম কোম্পানির কাছে হস্তান্তর করা হচ্ছে। এর আগে ঢাকার বিদ্যুত বিতরণের জন্য পৃথক কোম্পানি ডেসা করা হয়। পরবর্তীতে ডেসা ভেঙ্গে ডেসকো এবং ডিপিডিসি করা হয়। আবার দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলা নিয়ে গঠন করা হয় ওজোপাডিকো। এছাড়া দেশের গ্রামীণ জনপদে বিদ্যুত সরবরাহ করছে আরইবি। এর বাইরে দেশের সব এলাকায় বিদ্যুত সরবরাহ করছে পিডিবি।

বিদ্যুত বিভাগের একজন পদস্থ কর্মকর্তা জানান, পর্যায়ক্রমে পিডিবিকে বিতরণ থেকে সরিয়ে নেয়া হবে। রংপুর-রাজশাহী, ময়মসিংহ-টাঙ্গাইল ও সিলেট এবং চট্টগ্রাম এলাকায় পৃথক বিতরণ কোম্পানি করে বিদ্যুত সরবরাহ করা হবে। এর প্রথমটি হচ্ছে রংপুর এবং রাজশাহী অঞ্চল নিয়ে। ওই কর্মকর্তারা জানান, বিদ্যুত খাত সংস্কারের অংশ হিসেবে সরকার এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করছে। এতে লোকশান কবে আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিনি স্বীকার করেন, দাতারা বিদ্যুত খাত সংস্কারের জন্য চাপ দিচ্ছে। সাম্প্রতিক বৈঠকেও বিশ্বব্যাংক পিডিবির সংস্কার করার বিষয়ে আমাদের কাছে জানতে চেয়েছে বলেও জনকণ্ঠে জানান তিনি। তবে পিডিবির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বলছে এটা পিডিবির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। অনেক পিডিবির কর্মকর্তা-কর্মচারীই চাকরি হারানোর ভয় করছেন। তবে সরকারের তরফ থেকে এখনও সার্বিক বিষয়ে স্পষ্ট করা হয়নি। কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বলছেন তারা গোল্ডেন হ্যান্ডচেকের মাধ্যমে বিদায় আতঙ্কে রয়েছেন। সোমবার বিদ্যুত ভবনে পিডিবির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নতুন কোম্পানি গঠন রুখতে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে। ওই প্রতিবাদ সমাবেশে আজ থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কর্মসূচী ঘোষণা করা করেছে। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে আজ রাজধানীর পিডিবি (ওয়াপদা) ভবনের সামনে থেকে প্রতিবাদ মিছিল, আগামীকাল ২৩ ডিসেম্বর কোম্পানি গঠনের প্রক্রিয়া বন্ধে স্মারকলিপি পেশ। এছাড়া ৩০ এবং ৩১ ডিসেম্বর যথাক্রমে রংপুর এবং রাজশাহীতে প্রতিবাদ সমাবেশ এবং অবস্থান কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়েছে। পিডিবির কর্মকর্তা প্রকৌশলী জসিম উদ্দিনের সঞ্চালনায় সমাবেশে পিডিবি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জহিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন ছাড়াও কর্মচারী-কর্মকর্তারা বক্তব্য রাখেন। গত বছর ৬ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী বিদ্যুত বিভাগে অফিস করতে আসলে আগের বৈঠকের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ওপর জোর দেন। ওই সময় পিডিবিকে পেট্রোবাংলার ন্যায় কর্পোরেশনে রূপান্তর প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার নির্দেশ দেয়া হয়। গত বছর মাঝামাঝি সময়ে বিদ্যুত বিভাগ উদ্যোগ বাস্তবায়নের চেষ্টা করলে পিডিবির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রতিবাদ করেন। সরকার তখন এই প্রক্রিয়া বন্ধ রাখে। তখন পিডিবির তরফ থেকে বলা হয়েছিল সরকার পিডিবি ভাঙ্গার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসছে।

তবে সম্প্রতি নতুন কোম্পানি গঠনের চিঠি দেয় বিদ্যুত বিভাগ। মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, আগামী বৃহস্পতিবার বিদ্যুত বিভাগে এ সংক্রান্ত একটি বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। ওই বৈঠকে বিদ্যুত প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, বিদ্যুত সচিব মনোয়ার ইসলাম এবং পিডিবির চেয়ারম্যান কে এম হাসান উপস্থিত থাকবেন। যেখানে নতুন কোম্পানি গঠন ছাড়াও পিডিবির সংস্কার নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে।