মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

শেষ হলো তিন দিনের মানবাধিকার নাট্যোৎসব

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৫
  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ‘সান্ত্রিরা সাবধান’ সেøাগানে শনিবার থেকে রাজধানীর রবীন্দ্র সরোবরে শুরু হয় নবম জাতীয় মানবাধিকার নাট্য উৎসব। সোমবার নাট্য প্রদর্শনী, সাংস্কৃতিক আয়োজন ও গুণীজন সম্মাননার মাধ্যমে শেষ হলো তিন দিনের উৎসব। সমাপনী দিনে স্ব স্ব ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য আয়োজক মানবাধিকার নাট্য পরিষদ প্রদত্ত এবারের এই গুণীজন সম্মাননা প্রদান করা হয় নাট্যব্যক্তিত্ব অধ্যাপক মমতাজ উদদীন আহমদ, শিরিন বানু মিতিল ও নারী নেত্রী ফৌজিয়া মোসলেমকে।

সোমবার বিকেলে রবীন্দ্র সরোবর মুক্তমঞ্চে অনুষ্ঠানের শুরুতেই ছিল নাটকের প্রদর্শনী ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। পৌষের মনোরোম বিকেলে ‘রয়েল বেঙ্গল টাইগার’ শীরোনামের নাটক প্রদর্শন করে অনুশীলন ৮০ নামের সাংস্কৃতিক সংগঠন। নাট্য প্রদর্শনী শেষে রাজধানী নাট্যদল প্রাচ্যনাট পরিবেশন করে ‘সুরের ভেলায় আগুন খেলায়’ শীর্ষক স্বদেশের গান ও নৃত্য।

নাচ ও গানের পরিবেশনার পর অনুষ্ঠিত হয় সম্মাননা প্রদান পর্ব। এ পর্বে সম্মাননাপ্রাপ্ত গুণীজনদের হাতে সম্মাননা তুলে দেন সংগঠনের সভাপতি দেশের বরেণ্য সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী। সম্মাননাপ্রাপ্ত অধ্যাপক মমতাজ উদদীন আহমদের পক্ষে সম্মাননা গ্রহণ করেন মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক জিয়াউল হাসান। এ অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন আখন্দ। এছাড়াও এ সময় আয়োজক সংগঠনটির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক এম. এ কাইয়ুম এবং সংগঠনটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত নাট্যকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সম্মাননা প্রদান শেষে সন্ধ্যায় আবারও শুরু হয় নাট্য প্রদর্শনী ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। এ পর্বের শুরুতেই সংগঠনটির ঢাকা মহানগর শাখা পরিবেশন করে তাদের নাটক ‘আঁস্তাকুড়’। এরপর নাট্যসংগঠন নাট্যধারা প্রদর্শন করে নাটক ‘দড়ি’। সব শেষে ঢাকার একটি নাট্যদল বটতলা প্রদর্শন করে তাদের প্রযোজনা ‘আর নয় চুপ থাকা’।

প্রসঙ্গত, নাটক, গান ও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকা-ের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে উজ্জীবিত করার লক্ষ্য নিয়ে আয়োজিত এই নাট্যোৎসবে সংগঠনের ঘোষণা পত্রের আট দফা দাবির সমর্থনে সারাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা সাংস্কৃতিক কর্মী ও নাট্যকর্মীরা প্রতিঙ্গাবদ্ধ হয়। এছাড়াও তারা-দ্রুততম সময়ে যুদ্ধাপরাধের বিচার, মত প্রকাশের স্বাধীনতা, সাম্প্রদায়িক রাজনীতি নিষিদ্ধ, নারী নির্যাতন, বিচারবর্হিভূত হত্যাকা- বন্ধ করাসহ নারীনীতি ও শিক্ষানীতি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে গণসচেতনতা ও জনমত গঠনে বছরব্যাপী সারাদেশে নাটক প্রদর্শন অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার করে।

সাংসদ নাট্যোৎসবে মঞ্চস্থ চিত্ত বিনিময় ॥ বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনে আয়োজনে সাভারের ডাঃ এনাম মেডিক্যাল কলেজ মিলনায়তনে চলছে সাংসদ নাট্যোৎসব। উৎসবে অষ্টম দিন সোমবার সন্ধ্যায় মঞ্চস্থ হয় জাগরণী থিয়েটারের নাটক চিত্ত বিনিময়। রাধারমন ঘোষ রচিত প্রযোজনাটির নির্দেশনা দিয়েছেন বৈদ্যনাথ অধিকারী।

বিশ্ব সংসারের অসঙ্গতিগুলো হাস্যরসের মাধ্যমে উপস্থাপিত হয়েছে প্রযোজনাটিতে। নাটকের কাহিনী আবর্তিত হয়েছে একটি সুবর্ণ গোলককে কেন্দ্র করে, যেটা দেবাদিদেব মহাদেবের কাছ থেকে অর্জন করেন দেবী পার্বতী। এই সুবর্ণ গোলকটির প্রধান শর্তই ছিল, গোলকটি হাতবদল হলে চিত্ত বিনিময় হয়ে যাবে। পার্বতী এটি মহাদেবের ভৃঙ্গীকে দেন লুকিয়ে রাখার জন্য। তবে ভৃঙ্গীর অসাবধানতায় গোলকটি হাতবদল হয়ে মানুষ পশুতে রূপান্তর, পশু স্বভাবের ব্যক্তি মানুষে রূপান্তর, মুনিব ভৃত্য এবং ভৃত্য মুনিবে।

প্রযোজনাটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন স্মরণ সাহা, কাজী ফাহাদ, লিটন সাহা, শিল্পী আক্তার ঝিনুক, কানন মনি প্রমুখ।

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৫

২২/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: