মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৯ আশ্বিন ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

প্রধানমন্ত্রীকে চেয়ারম্যান রেখে তৈরি হচ্ছে বিনিয়োগ কর্তৃপক্ষ

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৫
  • মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ বিনিয়োগ বোর্ড ও প্রাইভেটাইজেশন কমিশনকে একীভূত করে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠন করতে যাচ্ছে সরকার। এ লক্ষ্যে ‘বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তপক্ষ আইন-২০১৫-এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের বলেন, এই আইন কার্যকর হলে বিনিয়োগ বোর্ড ও প্রাইভেটাইজেশন কমিশন দুটিই বিলুপ্ত হয়ে ‘বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিগ)’ প্রতিষ্ঠিত হবে। তিনি বলেন, এই নতুন সংস্থা দেশে বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং সরকারী খাতের শিল্প-কারখানার অব্যবহৃত জমি দক্ষতার সঙ্গে কাজে লাগাতে সহায়তা করবে।

এই খসড়া আইনে বলা হয়েছে যে, বিনিয়োগ বোর্ড ও প্রাইভেটাইজেশন কমিশনে কর্মরত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী নবগঠিত সংস্থায় বদলি হবেন। এ ছাড়া বিলুপ্ত সংস্থা দুটির সব সম্পদ ও দায়দেনা বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের মালিকানাভুক্ত হবে।

নতুন কর্তৃপক্ষের কাঠামো সম্পর্কে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, চেয়ারম্যান হিসেবে প্রধানমন্ত্রী এবং ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে অর্থমন্ত্রীর সমন্বয়ে সংস্থাটির ১৭ সদস্যের এক পরিচালনা পরিষদ থাকবে এবং বাণিজ্য, শিল্প, বিদ্যুত, জ্বালানি ও প্রাকৃতিক সম্পদ এবং ভূমি মন্ত্রণালয়ের মতো সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীবর্গ এর সদস্য থাকবেন। বিডার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হবেন সংস্থাটির নির্বাহী চেয়ারম্যান এবং একই সঙ্গে পরিচালনা পরিষদের এক সদস্য। এর নির্বাহী কমিটিতে নির্বাহী চেয়ারম্যান ছাড়াও সরকার কর্তৃক নিয়োজিত সর্বোচ্চ ৬ সদস্য থাকবে।

প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে, সংস্থাটি দেশে বিনিয়োগের জন্য বেসরকারী খাতে শিল্প স্থাপন ও বিদেশী বাণিজ্য লিয়াজোঁ শাখা কার্যালয়ের নিবন্ধন পরিচালনা করবে। তবে বাংলাদেশ রফতানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেপজা), বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা), বেসরকারী ইপিজেড, বিএসসিআইসি ও হাইটেক পার্কের আওতাধীন বিনিয়োগ প্রস্তাব বিডার এখতিয়ারের বাইরে থাকবে।

সচিব বলেন, সরকারী খাতের জমি ও শিল্প আরও দক্ষতার সঙ্গে ব্যবহার নিশ্চিত করতে চায় সরকার। এসব সম্পদ বিক্রির সময় যথাযথ মূল্য না পাওয়া ও অন্যান্য কারণে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

তিনি বলেন, বিডা আমদানি বন্দোবস্ত ও এনওসি ইস্যু নিষ্পত্তি এবং গেজেট নোটিফিকেশনের মাধ্যমে নির্ধারিত কোন এলাকা শিল্পাঞ্চল হিসেবে ঘোষণা ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জমি অধিগ্রহণে সহায়তা করবে।

সংস্থাটি জমির যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে অব্যবহৃত জমি ও কাঠামোর তালিকা করে এর ব্যবহারের নীতিমালা তৈরি, প্লট বরাদ্দ ও হস্তান্তরের গাইডলাইন প্রণয়ন এবং ওয়ানস্টপ সার্ভিস ব্যবস্থা আরও কার্যকর করতে ওয়ানস্টপ সার্ভিস ইনস্যুরিং কমিটি গঠন করবে।

প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৫

২২/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: