২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষে ক্যামেরনের পুস্তিকা


ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) তার দেশের থাকার পক্ষে বক্তব্য রেখে এরই মধ্যে একটি পুস্তিকা তৈরি করছেন। সেটি ইইউতে থাকা বা না থাকা প্রশ্নে অনুষ্ঠেয় গণভোটের প্রাক্কালে ব্রিটিশ পরিবারগুলোর কাছে পাঠানো হবে। এ পদক্ষেপ ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির ইইউ বিরোধীদের ক্ষুব্ধ করে তুলেছে। খবর টেলিগ্রাফ অনলাইনের।

এতে এ অভিযোগ উঠছে যে প্রধানমন্ত্রী ব্রাসেলসের সঙ্গে তার চলমান আলোচনা শেষ হওয়ার আগেই এর ফলাফল নিয়ে সিদ্ধান্তে উপনীত হচ্ছেন। একই সময়ে ব্রিটেনের ইইউ ত্যাগের পক্ষে প্রচার চালাতে অন্তত একজন কেবিনেট মন্ত্রী নববর্ষের সময় পদত্যাগ করবেন বলে জল্পনা-কল্পনা চলছে।

প্রধানমন্ত্রীর দফতরের অন্যতম উপদেষ্টা এবং এনজিও ওপেন ইউরোপের সাবেক প্রধান ম্যাটস পার্সন গত মাসে সিনিয়র কনজারভেটিভদের উদ্দেশ্যে এক ব্রিফিংকালে ঐ পরিকল্পনার কথা প্রকাশ করেন।

বিভিন্ন সূত্রে বলা হয়, ডাউনিং স্ট্রিট পরিবর্তনের সুবিধার কথা এবং সেহেতু ব্রিটিশদের কেন ইইউতে থাকা প্রয়োজন তা ব্যাখ্যা করে দলিলটি প্রচার করার পরিকল্পনা করছে।

ক্যামেরন গত সপ্তাহে আভাস দেন যে, ইইউতে থাকা না থাকা প্রশ্নে গণভোট আগামী বছর অনুষ্ঠিত হবে। এটি জুন মাসে অনুষ্ঠিত হবে বলে ক্রমশ জল্পনা-কল্পনা চলছে। কিন্তু ইইউর সঙ্গে তার নতুন আলোচনা শেষ না হওয়া সত্ত্বেও তিনি ব্রিটেনের ইইউতে থাকার পক্ষে প্রচার চালাতে চান বলে ঘোষণা দিলে ক্ষোভের সঞ্চার হয়।

কনজারভেটিভ পার্টির ইইউ বিরোধীরা ইইউর সঙ্গে ডাউনিং স্ট্রিটের অন্তঃসারশূন্য পুনরালোচনা দেখতে পেয়ে ক্রমশ ক্ষুব্ধ হচ্ছেন। ক্যামেরন অভিবাসীদের সংখ্যা কম রাখতে তাদের সুযোগ-সুবিধা প্রদান চার বছর বন্ধ রাখতে চান। কিন্তু ইইউ অস্বীকৃতি জানান এবং এটি ব্রিটিশদের ক্ষেত্রেও অবশ্যই প্রযোজ্য হবে বলে জানিয়ে দেন। কর্মকর্তারা তখন প্রধানমন্ত্রীকে সতর্ক করে দিয়েছেন যে, তিনি তার দাবিতে অনড় থাকলে তিন লাখ ব্রিটিশ চাকরিকালীন সুযোগ-সুবিধার প্রতি অধিকার হারাবে।