১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

বিমানের ডিজিএম এমদাদ সাড়ে ৪ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন করেছেন


স্টাফ রিপোর্টার ॥ দুর্নীতির মাধ্যমে ৪ কোটি ৫৮ লাখ ৩৬ হাজার ১৭৫ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন করেছেন বাংলাদেশ বিমানের উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) এমদাদ হোসেন। অনুসন্ধানে বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। রবিবার রাজধানীর বিমানবন্দর থানায় দুদকের উপ-পরিচালক হামিদুল হাসান বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। (মামলা নং- ২১)। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য জনকণ্ঠকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জটিল লেনদেনে লেয়ারিং করে অর্থের উৎস, অবস্থান, মালিকানা ও নিয়ন্ত্রণ গোপন করার চেষ্টা এবং দুর্নীতির মাধ্যমে অবৈধ উপায়ে নিজের ও পরিবারের সদস্যদের নামে জ্ঞাতআয়বহির্ভূত ৪ কোটি ৫৮ লাখ ৩৬ হাজার ১৭৫ টাকার অবৈধ সম্পদ করেছেন, যা দুদকের অনুসন্ধানে প্রমাণিত হওয়ায় মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন-২০১২ এর ২(ফ) এর অ(১), ঈ এবং ২(শ) ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের গ্রাহক এমদাদ হোসেনের স্ত্রী আইরিন হোসেন, কন্যা ইসমত তাবাসসুম এবং তার কর্মচারী মির্জা আব্দুস সাত্তার ও মাজেদুল ইসলামের নামে ব্র্যাক ব্যাংক ও সিটি ব্যাংক লিমিটেডে তার স্বার্থসংশ্লিষ্ট হিসাব খোলেন। এসব হিসাব নম্বরে প্রচুর অর্থ লেনদেন করেন। এসব গ্রাহকের হিসাব খোলার ফর্মে ব্যবসায়ী উল্লেখ করা হলেও, যেসব কোটি কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে তা সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। তিনি মূলত এসব জটিল লেনদেনের মাধ্যমে কয়েকটি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে লেনদেনের লেয়ারিং বিস্তার করে অর্থের উৎস, অবস্থান, মালিকানা ও নিয়ন্ত্রণ গোপন করার অবৈধ চেষ্টা করেছেন। আর এভাবে তার অর্জিত ৪ কোটি ৫৮ লাখ ৩৬ হাজার ১৭৫ টাকার কোন বৈধ উৎসও তিনি দেখাতে পারেননি। এসব টাকা গোপন করার উদ্দেশ্যেই বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে লেনদেন করেছেন। যার কারণে তার বিরুদ্ধে মানিলন্ডারিংয়ের অপরাধ আনা হয়েছে। উল্লেখ্য, এমদাদ হোসেন সরকারী শুল্ক ফাঁকি দিয়ে স্বর্ণ চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গত বছরের ১২ নবেম্বর বিমানবন্দর থানায় দায়েরকৃত মামলার আসামি। বর্তমানে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক রয়েছেন।