১৪ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

শিরোপা পুনরুদ্ধারে কেরলে ফুটবল দল


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে বর্তমানে এক নম্বর দল আফগানিস্তান। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ১৫০তম অবস্থানে তারা। এই আফগানদের বিপক্ষেই এবার সাফ ফুটবলে নিজেদের মিশন শুরু করবে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। বৃহস্পতিবার ‘বি’ গ্রুপে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ কোচ মারুফুল হকের শিষ্যদের। সাফ ফুটবলের টাইটেল স্পন্সর সুজুকি, তাই এবার এর নাম দেয়া হয়েছে সাফ সুজুকি কাপ। বাংলাদেশ দল ‘বি’ গ্রুপে খেলবে আফগানিস্তান, মালদ্বীপ ও ভুটানের বিপক্ষে। ২০০৩ সালে সর্বশেষ সাফের শ্রেষ্ঠত্ব পেয়েছিল বাংলাদেশ, হয়েছিল চ্যাম্পিয়ন। এরপর আর শিরোপা জেতা হয়নি। এবার তাই শিরোপা পুনরুদ্ধারের মিশন মামুনুল ইসলামদের। মিশন শুরুর চারদিন আগেই রবিবার টুর্নামেন্টের ভেন্যু কেরল প্রদেশে পৌঁছেছে বাংলাদেশ দল। এ কয়েকদিন কেরলের আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে ওঠার জন্য অনুশীলন করবে মারুফুলের শিষ্যরা।

১২ বছর পেরিয়ে গেছে সাফের শ্রেষ্ঠত্ব আর পাওয়া হয়নি। সেবারই প্রথম দেশের মাটিতে সাফ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল আয়োজক বাংলাদেশ। এরপর ভারত তিনবার, মালদ্বীপ ও আফগানিস্তান একবার করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। ২০০৫ সালে রানার্সআপ এবং ২০০৯ সালে সেমিফাইনাল খেলেছে বাংলাদেশ। গত দুই আসরে গ্রুপ পর্বই পেরোতে পারেনি। তাই এবার কঠিন চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশের জন্য। সম্প্রতি শুধু হারের বৃত্তে থাকায় ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়েও অনেক পিছিয়ে যেতে হয়েছে। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে অস্ট্রেলিয়া, জর্দান, তাজিকিস্তান, কিরগিজস্তানের মতো শক্ত প্রতিপক্ষদের কাছে টানা হেরেছে বাংলাদেশ। তবে কঠিন প্রতিপক্ষদের বিপক্ষে টানা খেলার মাধ্যমে নিজেদের দুর্বলতা, শক্তি এবং সামর্থ্য সম্পর্কে ধাতস্থ হওয়া গেছে। এর মধ্যে দুইবার কোচ বদল করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। লোডভিক ডি ক্রুইফ এবং ফ্যাবিও লোপেজের অধীনে খেলেও নৈপুণ্যের উন্নতি ঘটেনি। শেষ পর্যন্ত বিদেশী কোচ না নিয়ে এবার দেশীয় কোচের অধীনেই দক্ষিণ এশিয়ার বিশ্বকাপ খ্যাত সাফ ফুটবলে অবতীর্ণ হচ্ছে বাংলাদেশ। কঠিন এই চ্যালেঞ্জ কোচ মারুফুলের কাঁধে। বর্তমানে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ১৮২! দক্ষিণ এশিয়ার আট দলের মধ্যে চার নম্বরে। বাংলাদেশের চেয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে আছে আফগানিস্তান (১৫০), মালদ্বীপ (১৬০) ও ভারত (১৬৬)। এর মধ্যে বাংলাদেশের গ্রুপেই আছে চ্যাম্পিয়ন আফগানিস্তান ও মালদ্বীপ। খুব পিছিয়ে নেই আরেক প্রতিপক্ষ ভুটান (১৮৮)। এবারের আসরে পাকিস্তান নাম প্রত্যাহার করায় ‘এ’ গ্রুপে তিন দল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেÑ ভারত, নেপাল ও শ্রীলঙ্কা। নেপাল বাংলাদেশের চেয়ে দশ ধাপ পিছিয়ে ১৯২ নম্বরে। কিন্তু সাফ মিশনে যাওয়ার আগে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে ঘরের মাঠে ওই নেপালকে হারাতেই ঘাম ঝরেছে মামুনুলদের। মাত্র ১-০ গোলের জয় আসলেও অবশ্য এটাকে বাংলাদেশ দলের জন্য ইতিবাচক বিবেচনা করা হচ্ছে। কারণ টানা পরাজয়ের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসতে পেরেছে দল। আর এটাই বাড়তি অনুপ্রেরণা হবে এবার সাফে। তবে গত দুই আসরে গ্রুপ পর্বও পেরোতে না পারা বাংলাদেশের জন্য বেশ কঠিন অগ্নিপরীক্ষা।

বাংলাদেশে বর্তমানে শীতকাল শুরু হলেও কেরলে অবশ্য বেশ গরম। বর্তমানে এ প্রদেশে গড় তাপমাত্রা ২৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস। তবে গ্রীষ্মকালে বাংলাদেশেও এমন তাপমাত্রাই থাকে। তাই আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খাওয়ানো তেমন সমস্যা হবে না বাংলাদেশ দলের জন্য। দলের প্রস্তুতি নিয়েও সন্তুষ্ট কোচ মারুফুল। তিনি বলেন, ‘সেট পিসে আমাদের যে সমস্যা আছে, তা নিয়ে প্রচুর কাজ করেছি। সাফে প্রত্যাশার চাপে নুব্জ্য নই। আমার দায়িত্ব সাফ পর্যন্তই। এজন্যই চাইব স্মরণীয় কোন ফলাফল এনে দিতে। ২১ দিন প্রস্তুতির জন্য পর্যাপ্ত নয়। তারপরও এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি।’ অধিনায়ক মামুনুলও আত্মবিশ্বাসী ভাল কিছু করার বিষয়ে। তিনি বলেন, ‘আমরা সবাই নিজের সেরাটা দিতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। আত্মবিশ্বাস এবং টিমওয়ার্কই পারে আমাদের সফলতা এনে দিতে। বিশ্বকাপ বাছাই এবং চীনে গিয়ে টুর্নামেন্ট খেলে আমরা মোটেও ক্লান্ত নই। বরং বেশি ম্যাচ খেলে আমরা এখন আরও পরিণত।’ বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জটা বৃহস্পতিবার শুরু হলেও বুধবারই মাঠে গড়াবে এবারের সাফ। উদ্বোধনী দিনে একমাত্র ম্যাচে মুখোমুখি হবে নেপাল-শ্রীলঙ্কা। ২৩ ডিসেম্বর শুরু হয়ে এবারের সাফ শেষ হবে ৩ জানুয়ারি ফাইনালের মধ্য দিয়ে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: