১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

পঙ্কজ শরণের ঢাকা ত্যাগ


কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ ঢাকায় ভারতের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ড. আদর্শ সোয়াইকা। নতুন হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা না আসা পর্যন্ত তিনি এই দায়িত্ব পালন করবেন। এদিকে শনিবার ঢাকা ত্যাগ করেছেন পঙ্কজ শরণ। ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনের থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বলা হয়, ঢাকায় দায়িত্ব পালন শেষে ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণ শনিবার ঢাকা ত্যাগ করেছেন। নবনিযুক্ত ডেপুটি হাইকমিশনার ড. আদর্শ সোয়াইকা ঢাকায় এসেছেন। হাইকমিশনার হিসেবে মনোনীত হর্ষবর্ধন শ্রিংলার মধ্য জানুয়ারিতে আসবেন। তিনি ঢাকায় না আসা পর্যন্ত ড. আদর্শ সোয়াইকা ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

সূত্র জানায়, ’১২ সালের জুলাইয়ে ঢাকা মিশনের দায়িত্ব নিয়ে বাংলাদেশে আসা পঙ্কজ শরণের সময়ই দুই দেশের মধ্যে ছিটমহল বিনিময়ের ঐতিহাসিক কার্যক্রম শুরু হয়। এই সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে দায়িত্ব পালন করা শরণ তার বাংলাদেশের মেয়াদে বহু ভিআইপি সফর সামাল দিয়েছেন। দুই দেশের মধ্যে বিভিন্ন চুক্তির ক্ষেত্রেও তাকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হয়েছে। যিনি তার স্থলাভিষিক্ত হতে যাচ্ছেন, সেই হর্ষবর্ধন শ্রিংলা এক সময় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন যুগ্ম সচিব হিসেবে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, মিয়ানমার ও মালদ্বীপের বিষয়গুলোর দেখভাল করেছেন। মন্ত্রণালয়ের জাতিসংঘ ও সার্ক ছাড়াও নেপাল ও ভুটান এবং পশ্চিম ইউরোপ বিভাগে কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। দিল্লীর সেন্ট স্টিফেনস কলেজের স্নাতক শ্রিংলা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগ দেয়ার আগে ভারতের কর্পোরেট ও সেবা খাতে কাজ করেছেন। গত বছর ১৯ জানুয়ারি তাকে থাইল্যান্ডে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত এবং ইউএনইএসসিএপিতে স্থায়ী প্রতিনিধির দায়িত্ব দেয়া হয়।

পঙ্কজ শরণকে রাশিয়ায় ভারতের নতুন রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত করা হয়েছে। অল্প সময়ের মধ্যে তিনি দায়িত্ব নেবেন। পঙ্কজ শরণ তার বর্ণাঢ্য কূটনৈতিক ক্যারিয়ারে মস্কো, ওয়াশিংটন, কায়রো ও জেনেভায় ভারতীয় মিশনে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি এর আগে বাংলাদেশে ১৯৮৯ থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত ফার্স্ট সেক্রেটারি (রাজনৈতিক) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। নয়াদিল্লীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পূর্ব ইউরোপ বিভাগের উপসচিব ও যুগ্ম সচিব (উত্তর) ছিলেন পঙ্কজ। দু’বার তিনি প্রেষণে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়েও দায়িত্ব পালন করেন। প্রথমবার ১৯৯৫ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অর্থ, জ্বালানি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের পরিচালক এবং ২০০৭ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত যুগ্মসচিব ছিলেন। রাশিয়ায় রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগে তিনি সন্তুষ্ট কি-না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে পঙ্কজ শরণ জানিয়েছিলেন অবশ্য অবশ্যই তিনি সন্তুষ্ট।