২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

শরীয়তপুরে লড়াই হবে ত্রিমুখী


আবুল বাশার, শরীয়তপুর থেকে ॥ নির্বাচনী প্রচারে সরগরম হয়ে উঠেছে শরীয়তপুর পৌরসভা। প্রার্থীদের পোস্টার সাঁটানো, চায়ের দোকানে ভিড়- সবই নির্বাচনী উৎসবের অংশ। মেয়র পদে বিএনপি, আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে ত্রিমুখী লড়াই হবে শরীয়তপুর পৌরসভায়।

নৌকার প্রার্থী ছাড়াও মেয়র পদে জেলা আওয়ামী লীগের এক সদস্য স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে জোরেশোরে নির্বাচনী মাঠে থাকার কারণে সুফল নিতে পারে বিএনপির ধানের শীষের একক প্রার্থী। তবে এ পৌরসভায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াই ব্যতীত কারও পক্ষে বিজয় আসবে না বলে পৌরবাসী ধারণা করছে। শরীয়তপুর পৌরসভায় বিএনপির ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী সরদার একেএম নাসির উদ্দিন কালু। ইউনিয়ন পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, জেলা পরিষদ ও পৌরসভার চেয়ারম্যান তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া প্রবীণ এই বিএনপি নেতা এবার তার ছেলের বয়সী অপর দুই মেয়র প্রার্থীর সঙ্গে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এলাকায় লৌহমানব হিসেবে পরিচিত সরদার একেএম নাসির উদ্দিন কালু নির্বাচনী মাঠে নেমেছেন কোমর বেঁধে। নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হলে মেয়র নির্বাচিত হয়ে শরীয়তপুর পৌরসভার শিক্ষা, স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, পানি, বিদুত, জলাবদ্ধতা দূর করাসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি। তবে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থীর কর্মীরা তাদের নির্বাচনী প্রচারে ভয়ভীতি ও বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি নেতারা।

আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা মার্কার মেয়র প্রার্থী মোঃ রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল। এক সময়ের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তুখোড় এই ছাত্রলীগ নেতা নির্বাচনে নতুন মুখ হলেও এলাকায় তার বেশ জনপ্রিয়তা রয়েছে। হাইকোর্টের রিটের প্রেক্ষিতে বাতিল হওয়া মনোনয়ন বৈধ ঘোষণার পর পরই নির্বাচনী মাঠ গরম করছেন তিনি। তীব্র শীত উপেক্ষা করে কাকডাকা ভোরে দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন উচ্চশিক্ষিত অমায়িক ব্যবহারের অধিকারী মোঃ রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল। মেয়র নির্বাচিত হলে আধুনিক শহর গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

বসে নেই আওয়ামী লীগের অপর বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ ফারুক আহমেদ তালুকদার। বাছাইয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রফিকুল ইসলাম কোতোয়ালের মনোনয়ন বাতিল হওয়ার সুবাদে দলীয় নেতাকর্মীদের বড় অংশ ফারুক আহমেদ তালুকদারের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে এখনও মাঠে রয়েছে। জেলা বাস মালিক সমিতির সেক্রেটারি এই নেতা মেয়র নির্বাচিত হলে শান্তিপূর্ণ পৌরসভা গড়ে তোলার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।