মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১ আশ্বিন ১৪২৪, মঙ্গলবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটে ফিক্সিং আতঙ্ক!

প্রকাশিত : ২০ ডিসেম্বর ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটে ফের ফিক্সিংয়ের (পাতানো/গড়াপেটা) আতঙ্ক! সম্প্রতি গল টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ ছেড়ে দেয়ার জন্য দ্বীপরাষ্ট্রটির দুই ক্রিকেটারকে কোটি টাকার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। এ খবর প্রকাশ্যে আসার পর উপমহাদেশের তুখোড় ক্রিকেট খেলিয়ে দেশটিকে ঘিরে ফের কলঙ্কের আঁচ পাওয়া যায়। গত অক্টোবরে গল টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খারাপ খেলার জন্য শ্রীলঙ্কার দুই ক্রিকেটার বাঁহাতি স্পিনার রঙ্গনা হেরাথ ও উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কুশল পেরেরাকে কোটি টাকার প্রস্তুাব দেন এক বাজিকর (বুকি)। প্রস্তাবে সাড়া না দিয়ে নিজেদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলেন দলটির অতিগুরুত্বপূর্ণ এই দুই ক্রিকেটার। টেস্ট অনায়াসে জিতে নেয় শ্রীলঙ্কা। ম্যাচে ১০ উইকেট শিকার করেন তুখোড় অফ স্পিনার হেরাথ। ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে শ্রীলঙ্কান সরকার। সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয় সফরকারী ক্যারিবীয়রা। ম্যাচে লঙ্কানরা ফেবারিট হওয়ায় হেরাথরা রাজি হলে বাজিকরদের মধ্যে মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময় হতো। ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়ে দেশটির ক্রীড়ামন্ত্রী দয়সিরি জয়শেখরা জানান, বাজিকররা চেয়েছিল শ্রীলঙ্কা তাড়াতাড়ি অলআউট হয়ে যাক। প্রথমে পেরেরাকে প্রস্তাব দেয়া হয়। কিন্তু দুইজনই ওই প্রস্তাবে সাড়া না দিয়ে বিষয়টি বোর্ডকে (এসএলসি) জানিয়ে দেন। এসএলসির পাশাপাশি স্থানীয় পুলিশও এই ঘটনার তদন্ত করছে।

ধোনি-রায়নাকে বাদ দেয়া উচিত ॥ বেদি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ভারত দল থেকে মহেন্দ্র সিং ধোনি ও সুরেশ রায়নাকে বাদ দেয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির সাবেক তারকা বিষেন সিং বেদি। কদিন আগে সাড়ে ১৬ কোটি টাকায় ধোনিকে কিনে নেয় আইপিএলের নতুন দল পুনে। রায়নাকে দলে ভেড়ায় অপর নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি রাজকোট। বেদি বলেন, ‘ধোনি ও রায়না দুইজনই অতিরিক্ত দাম পেয়েছে। ওরা মোটেই এটার যোগ্য নয়। আমার মনে হয় দুইজনের সঙ্গেই জাতীয় দলের সম্পর্ক চুকানোর সময় এসেছে!’ কেন? তার ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বেদি আরও যোগ করেন, ‘একজন (ধোনি) টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরই নিয়েছে। অন্যজনকেও (রায়না) জাতীয় দলে জায়গা পাওয়ার জন্য লড়াই করতে হচ্ছে।’ এই বেদি অবশ্য বরাবরই বিতর্কিত মন্তব্য করে আলোচনায় থাকতে ভালবাসেন!

ইউরোর পরই দায়িত্ব ছাড়ছেন দেল বস্ক

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সাত বছর পেরিয়ে গেছে স্পেনের দায়িত্ব নেয়ার পর। এর মধ্যে অম্ল-মধুর সময় কাটিয়েছেন ভিসেন্তে দেল বস্ক। ২০১২ সালের ইউরো জেতানোর আগেই ২০১০ সালে বিশ্বকাপ ট্রফি জিতিয়েছেন তিনি স্পেন জাতীয় ফুটবল দলকে। তবে গত বিশ্বকাপে একেবারেই ব্যর্থ ছিল তার শিষ্যরা। এবার আরেকটি পরীক্ষা বস্কের জন্য। ২০১৬ সালের ইউরো আসরে স্পেনকে পুনরায় সফলতা পাইয়ে দেয়ার মিশন ৬৪ বছর বয়সী এ কোচের। তবে এরপরই স্পেনের দায়িত্ব ছাড়ার পরিকল্পনা বস্কের। দেল বস্ক তার লেখা ‘উইনিং এ্যান্ড লসিং ঃ ইমোশনাল স্ট্রেন্থ’ বইয়ে এমনটাই লিখেছেন তিনি।

শুক্রবার নিজের লেখা বই প্রকাশিত হয়েছে বস্কের। ২০০৮ সালের মার্চে দায়িত্ব নিয়েছিলেন স্পেন ফুটবল দলের। তারপর থেকে দারুণভাবে গুছিয়েছেন তিনি স্পেনকে। একটি ইউরো আর বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন তিনি। তবে সর্বশেষ ২০১৪ বিশ্বকাপে বস্ক ব্যর্থ হয়েছেন স্প্যানিশদের দারুণ কিছু উপহার দিতে। দীর্ঘ সময় পার করে ফেলেছেন। এবার নিজ থেকেই সরে দাঁড়ানোর পরিকল্পনা করছেন বস্ক। এ বিষয়ে তিনি তার বইয়ে লিখেছেন, ‘প্রত্যাশামাফিক যদি সবকিছু চলে ২০১৬ ইউরো শেষে আমি জাতীয় দল ও স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশন ছাড়ব। এটা স্বাস্থ্যগত একটি ব্যাপারও। আমি গত আট বছর ধরে জাতীয় দলের কোচ এবং আমি এই পদে আঠার মতো লেগে থাকতে চাই না। আমি মাথা উঁচু করেই চলে যেতে চাই।’

২০০৮ সালে লুইস আরগানোসের অধীনে স্পেন ইউরো জিতেছিল। সেই দলটির সাফল্য ধরে রাখার চ্যালেঞ্জটা ভালভাবেই উতরে গেছেন বস্ক পরবর্তী বছরও দলকে ইউরোর শিরোপা জিতিয়ে।

প্রকাশিত : ২০ ডিসেম্বর ২০১৫

২০/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



শীর্ষ সংবাদ: