১৯ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ফাইনালে আজ স্বাগতিক নেপালের মুখোমুখি বাংলাদেশ


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ গত বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এক ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচে নেপাল জাতীয় ফুটবল দলকে ১-০ গোলে হারায় বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। এবার নেপাল অনুর্ধ-১৪ বালিকা দলকে কি তাদের মাটিতে হারিয়ে ইতিহাসকে আরও সমৃদ্ধ করতে পারবে ছোটনের শিষ্যরা? জিতলে আরও সমৃদ্ধ হবে ইতিহাস, হারলে তাতে দুঃখ বা অগৌরবের কিছুই নেই। এএফসি অনুর্ধ-১৪ গার্লস রিজিওনাল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে আজ বাংলাদেশ সময় সকাল সোয়া ১১টায় স্বাগতিক নেপালের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ দল। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আর্মি গ্রাউন্ডে। শনিবার বাংলাদেশ দল সকালে শেষবারের মতো ঘাম ঝরায় অনুশীলনে। এ ছাড়া সন্ধ্যায় টিম মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। বাফুফে সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ দলের মেয়েরা সবাই শারীরিক-মানসিকভাবে সুস্থ আছে। ফাইনালে শিরোপা জিততে তারা সবাই দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। যদিও নেপালে এখন কিছুটা শীত (তাপমাত্রা ১৬ ডিগ্রীর মতো), তারপরও বাংলাদেশ দল অনায়াসেই মানিয়ে নিয়েছে এই আবহাওয়ার সঙ্গে। কেননা বাংলাদেশেও এখন শীতকালই চলছে।

কাঠমান্ডুর গ্র্যান্ড হোটেলে আজ দুপুরে ফাইনালিস্ট দুই দলের এক ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। তাতে বাংলাদেশ দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেন, ‘আশাকরি ফাইনালে যথেষ্ট লড়াই হবে। আমরা অবশ্যই আক্রমণাত্মক মেজাজে খেলব আর দেশবাসীর জন্য ভাল কিছু নিয়ে যাব এবং আমরাই আশাকরি জিতব।’ দলের অধিনায়ক কৃষ্ণারাণী সরকার বলেন, ‘আমরা আমাদের সামর্থ্যরে সেরাটা দিয়েই খেলব। নেপাল অবশ্যই ভাল দল। তবে ম্যাচটা জিততে আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করব।’ নেপাল দলের কোচ বলেন, ‘উভয় দলই নিজেদের প্রমাণ করেছে টুর্নামেন্টে এবং ফাইনালে উঠেছে। মনে হচ্ছে ফাইনালে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।’ নেপালের অধিনায়ক বলেন, ‘নেপাল-বাংলাদেশ উভয় দলেরই শিরোপা জেতার সুযোগ ফিফটি-ফিফটি তবে আমরা চ্যাম্পিয়ন হতে আপ্রাণ লড়বো।’

শুক্রবার নেপালের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করে বাংলাদেশের কিশোরী ফুটবলাররা। উল্লেখ্য, যে কোন পর্যায়ের মহিলা ফুটবলের আসরে এই প্রথম বাংলাদেশ ফাইনাল খেলতে যাচ্ছে। গত ২৫ এপ্রিলে আয়োজক নেপালের বিপক্ষে এই ফাইনালের আগের দিন ভয়াবহ ভূমিকম্প সংঘটিত হয়। ব্যাপক প্রাণহানি ঘটে এবং ক্ষয়ক্ষতি হয়। ফাইনালের ভেন্যু দশরথ স্টেডিয়ামের একটি অংশে ফাটল ধরে। ফলে সে সময় ফাইনাল খেলাটি আর অনুষ্ঠিত হয়নি। এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন আবারও এই ফাইনালটির দিনক্ষণ নির্ধারণ করে গত ২ ডিসেম্বর। গত এপ্রিলে নেপাল সফরে বাংলাদেশ দলে যেসব খেলোয়াড় ছিল তাদের সবাই আছে বর্তমান স্কোয়াডে। তারা কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের অধীনে অনুশীলন করেছে। এর আগে ২০১৩ সালে বাংলাদেশ অনুর্ধ-১৪ মহিলা দল শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত এই আসরে অংশ নিয়ে তৃতীয় হয়েছিল এবং ফেয়ার প্লে ট্রফি লাভ করেছিল। টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ দল গ্রুপে ভারতের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে এবং ভুটানকে ১৬-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়। এই ধরনের টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ দল আগে কখনও গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। সেমিতে ইরানকে ২-০ গোলে হারায়। পক্ষান্তরে সেমিতে নেপাল ভারতকে হারায়। উল্লেখ্য, এই আসরে এর আগে বাংলাদেশ কখনও নেপালের মুখোমুখি হয়নি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: