২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মুন্সীগঞ্জে ছড়াবে জ্ঞানের আলো


স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ মুন্সীগঞ্জে ৬৯টি ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরির যাত্রা শুরু হয়েছে। জেলার ৬৭টি ইউনিয়ন এবং দুটি পৌরসভায় একটি করে এই লাইব্রেরি তৃণমূল পর্যায়ে মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছবে। শনিবার বিকেলে এই ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরিসহ ১২৩টি লাইব্রেরির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়েছে। অনগ্রসর এলাকাসহ জেলার প্রায় এক হাজার গ্রামের দুয়ারে দুয়ারে বিনামূল্যে বই দেয়া নেয়া করবে। ছয় উপজেলা এবং দুই পৌরসভার পৃথক সাত রংয়ে লাইব্রেরিগুলো প্রাচীন জনপদটিতে জ্ঞানের রং ছড়াতে যাচ্ছে। সারি সারি ভ্রাম্যমাণ লাইব্রেরিগুলো জড়ো হয় মুন্সীগঞ্জ শিল্পকলা একাডেমি ঘিরে। হরেক রকমের বইয়ের পসরাসহ এই লাইব্রেরীগুলো উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচির আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমান ও জেলা প্রশাসক সাইফুল হাসান বাদল। এখন থেকে জেলার প্রতিটি গ্রামে-গঞ্জে বই নিয়ে ছুটবে লাইব্রেরিগুলো। রেজিস্টারের মাধ্যমে বই নিবেন আবার পড়ে ফেরত দেবেন। এই লাইব্রেরির মাধ্যমে এই অঞ্চলের আবার গড়ে উঠবে গুণী মানুষ।

প্রতিটি ইউনিয়ন থেকে এই লাইব্রেরির যাবতীয় খোঁজখবর এবং বইয়ের চাহিদা রেজিস্টার তদারকি দায়িত্ব দেয়া হয়েছে ইউপি সচিবকে। আর ভ্রাম্যমাণ এই লাইব্রেরির লাইব্রেরিয়ানের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে ইউপির চৌকিদারকে। ইউনিয়নের নিজস্ব অর্থায়নে এই লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠিত হয়। ভ্যানটি তৈরিতে খরচ হয়েছে প্রায় ৩৮ হাজার টাকা। বই কেনা হয়েছে প্রায় ৫০ হাজার টাকার। লাইব্রেরিয়ানকে মাসিক অতিরিক্ত বেতন দেয়া হচ্ছে ১৫শ’ টাকা। তুলনামূলক অল্প টাকা খরচে আউটপুট বেশি হচ্ছে। মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি পরিবতর্নের জন্য প্রয়োজন জ্ঞান অর্জন। ফিতা কেটে এবং বেলুন উড়িয়ে ১২৩টি লাইব্রেরি উদ্বোধনের পর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে এই উপলক্ষে আলোচনাসভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ, মুখ্য আলোচক বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমান। জেলা প্রশাসক সাইফুল হাসান বাদলের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন হরগঙ্গা কলেজের অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল হালিম, অধ্যাপক সুখেন চন্দ্র ব্যানার্জী, এডিসি হারুনুর রশীদ, টঙ্গীবাড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার কাজী ওয়াহিদ, গজারিয়ার ইউএনও মাহবুবা বিলকিস, সিরাজদিখানের ইছাপুরা ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল মতিন হালদার ও মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি মীর নাসিরউদ্দিন উজ্জ্বল।