মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৬ আশ্বিন ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

মীরসরাই ও বাকেরগঞ্জে নির্বাচনী হামলা আহত ১৭

প্রকাশিত : ২০ ডিসেম্বর ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ জেলার মীরসরাইয়ে শুক্রবার রাতে পৃথক সন্ত্রাসী হামলায় উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানসহ অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন। বিএনপি এ হামলার জন্য ছাত্রলীগ ও যুবলীগকে দায়ী করেছে।

বারইয়ারহাট পৌরসভা বিএনপির আহ্বায়ক দিদারুল আলম মিয়াজী বলেন, চট্টগ্রাম শহরে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিনের বাসায় বিএনপির মেয়র প্রার্থীদের নিয়ে নেতাদের বৈঠক শেষ করে বারইয়ারহাটে নিজ বাসায় যাচ্ছিলেন সাময়িকভাবে বরখাস্ত মীরসরাই উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল আমিন। তিনি উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক। বারইয়াহাট আলিফ হোটেলের সামনে তার গাড়ির গতিরোধ করে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। সেখানে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী ভিপি নিজাম উদ্দিনের নির্বাচনী অফিসও রয়েছে। এ সময় তার থাকা নগদ টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয় বলে জানান দিদারুল আলম। বর্তমানে তিনি ফেনীর ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ সময় তার গাড়ি চালক মোশারফ হোসেন আহত হন এবং নুরুল আমিনের ৭০ হাজার টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা।

বারইয়ারহাট পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মঈন উদ্দিন লিটন অভিযোগ করেন, নুরুল আমিন চেয়ারম্যান তার নির্বাচনের প্রধান সমন্বয়কারী। এজন্য আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর লোকজন তার ওপর হামলা চালিয়েছে। তিনি আরও অভিযোগ করেন, তার প্রতিপক্ষ প্রার্থীর লোকজন পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে সব পোস্টার, ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে। এছাড়া প্রচারে বাধা এবং নানাভাবে নেতা-কর্মীদের হুমকিও চলছে। এ বিষয়ে তিনি রিটার্নিং অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

একইদিন সন্ধ্যায় পৃথক ঘটনায় জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের বিষুমিয়ারহাট এলাকায় যুবলীগের এক হামলায় আহত হন মীরসরাই উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাঈনউদ্দিন মাহমুদ, মোঃ আলাউদ্দিন, আমান উল্লাহ, শোয়েব হাসান, গোলাম মাওলা ও রাজিব প্রমুখ। উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাইন উদ্দিন মাহমুদ প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন। গুরুতর অবস্থায় আমান উল্লাহ ও শোয়েব হাসানকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মস্তাননগর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে রাতে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল থেকে জানান, জেলার বাকেরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মতিউর রহমান মোল্লার ধানের শীর্ষের গণসংযোগে শনিবার দুপুরে হামলা চালিয়ে যুব ও ছাত্রদলের পাঁচ কর্মীকে আহত করা হয়েছে। আ’লীগ প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় গুরুতর আহত হলেন, যুবদল কর্মী নাছির হাওলাদার, আনোয়ার হাওলাদার, জাকির হোসেন, ছাত্রদল কর্মী নাছির উদ্দিন ও মিজানুর রহমান। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

আহতরা জানান, দুপুর একটার দিকে পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের বটতলায় পৌর ছাত্রদল সভাপতি মজিবর রহমান মোল্লার নেতৃত্বে এবং ৭নং ওয়ার্ডের ভরপাশা কাজী বাড়ির সামনে ছাত্রদল নেতা মিজান মোল্লার নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা ধানের শীর্ষের সমর্থনে গণসংযোগ করছিলেন। এ সময় আ’লীগের মেয়র প্রার্থী লোকমান হোসেন ডাকুয়ার ভাই শ্রমিকলীগ নেতা কালাম ডাকুয়া ও আ’লীগ নেতা নিয়াজ মিয়ার নেতৃত্বে ২০/২৫ জন লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালিয়ে যুব ও ছাত্রদলের পাঁচ কর্মীকে পিটিয়ে আহত করে।

প্রকাশিত : ২০ ডিসেম্বর ২০১৫

২০/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: