মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

নারী শ্রমিক ও যুবকসহ তিন খুন

প্রকাশিত : ২০ ডিসেম্বর ২০১৫
  • গৃহবধূ ও ভ্যান চালকের লাশ উদ্ধার

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ সাভারে পৃথক স্থানে কুপিয়ে নারী পোশাক শ্রমিক ও এক যুবককে হত্যা করা হয়েছে। এছাড়া বগুড়ায় বৃদ্ধা খুন হয়েছেন। কেরানীগঞ্জে নির্যাতনে আহত গৃহবধূর মৃত্যু ও সাতক্ষীরায় ভ্যানচালকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

সাভার ॥ সাভারে শেফলী বেগম নামের এক নারী পোশাক শ্রমিককে শ্বাসরোধ ও এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত শেফালী ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর থানার শিংজালী গ্রামের হাসেম আলীর মেয়ে। সে বাড্ডা ভাটাপাড়া এলাকার ব্যবসায়ী ফজল মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থেকে সিআরপি এলাকার ডানা বটনর্স নামক পোশাক কারখানায় কাজ করত। শুক্রবার রাতে পৌর এলাকার বাড্ডা ভাটপাড়া মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে। শনিবার সকালে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে। অপরদিকে সাভারে অজ্ঞাত এক যুবককে জবাই করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার ভোর রাতে সাভার মডেল থানাধীন তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের হেমায়েতপুরের ‘আজেন্টস পাড়া একতা হাউজিং’ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, ভোর রাতে হাউজিং এলাকায় অজ্ঞাত এক যুবককে জবাই করে হত্যা করে লাশ ফেলে যায় দুর্বৃত্তরা। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ঢামেক মর্গে প্রেরণ করে।

বগুড়া ॥ শহরের সেউজগাড়ি এলাকায় শুক্রবার রাতে খাজিরুন্নেছা নামে (৯৫) নামে এক বৃদ্ধা খুন হয়েছে। তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। পুলিশ জানায়, সেউজগাড়ি তালুকদার পাড়া এলাকার বাসিন্দা ওই বৃদ্ধা ঘরে একাই থাকতেন। তার ৭ মেয়ে। সবাই সেউজগাড়ি এলাকাতেই পৃথকভাবে থাকেন। বৃদ্ধার বাড়ির বারান্দায় লাকি (২৪) নামে এক হোটেলের কর্মচারী থাকত। পুলিশের ধারণা সে মাদকাসক্ত ছিল। রাতে সে বৃদ্ধার কানের দুল ছিনিয়ে নেয়ার সময় শ্বাসরোধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

কেরানীগঞ্জ ॥ যৌতুক না দেয়ায় কেরানীগঞ্জে মিম আক্তার (১৮) নামে এক গৃহবধূকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় শনিবার দুপুরে নিহতের বাবা মাসুম বাদী হয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। শুক্রবার গভীর রাতে রাজধানীর একটি বেসরকারী হাসপাতাল থেকে মিমের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনের হাতে বর্বর নির্যাতনের শিকার হয়ে ১৬ ডিসেম্বর থেকে ওই ক্লিনিকে ভর্তি ছিলেন মিম। নিহতের খালা আলো বেগম জানান, ৫ লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন মিমের ওপর নির্যাতন চালায়। এতে মেয়েটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে গোপনে ঢাকার একটি ক্লিনিকে নিয়ে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাত ১টার দিকে মিম মারা যায়। তবে পুরো বিষয়টি গোপন রাখা হয়। পরে পুলিশের সহায়তায় তারা লাশ উদ্ধার করেন।

সাতক্ষীরা ॥ তালা থানা পুলিশ এক ভ্যান চালকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে। নিহত ভ্যান চালকের নাম সুবল দাশ (৪৫)। সে তাল উপজেলার খেশরা গ্রামের দেবেন্দ্র দাশের ছেলে। শনিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে বাড়ির পার্শ্ববর্তী নিমগাছ থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে।

প্রকাশিত : ২০ ডিসেম্বর ২০১৫

২০/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: