২১ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

শহরে দুর্যোগ মোকাবেলা প্রস্তুতিতে সহায়তা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক-জাইকা


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ভয়াবহ ভূমিকম্প ঝুঁকিতে রয়েছে বাংলাদেশ। যেকোন মুহুর্তে ভূমি কম্পের কারণে শহরাঞ্চলের হাজার হাজার বিল্ডিং ধ্বস হয়ে যাবে এবং বহু প্রাণহানি ও সম্পদের ক্ষতি হবে। এরকম দুর্যোগ থেকে ক্ষয়-ক্ষতি কমিয়ে আনতে উন্নয়ন সহযোগীদের সহায়তায় বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। যৌথভাবে দুর্যোগেরহাত থেকে ৩ শহর রক্ষায় সহযোগীতা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক ও জাপান আন্তর্জাতিক সহযোগীতা সংস্থা (জাইকা)। এ সংক্রান্ত দুটি প্রকল্প আরবান রিজিলিয়ান্স প্রজেক্ট (ইউআরপি) এবংবিল্ডিং সেফটি প্রজেক্ট (ইউবিএসপি)।

শনিবার সকালে রাজধানীর বঙ্গঁবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফাকামাল। অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সচিব শাহ কামাল ও গৃহায়ন ও গণপূর্ত সচিব মোহাম্মদ মঈনুদ্দিন আব্দুল্লাহ। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এশিয়া প্যাসিফিক ইউনির্ভাসিটির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর জামিলুর রেজা চৌধুরী।বক্তব্য রাখেন জাইকার চিফ রিপ্রেজেনটেটিভ মিকিও হেতাদা। ।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, আরবান রিজিলিয়ান্স প্রজেক্টটি বাস্তবায়নে সহায়তা করবে বিশ্বব্যাংক। এটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ১৭ কোটি ৫ লাখ মার্কিন ডলার। এর মধ্যে বিশ্বব্যাংক দেবে ১৭ কোটি ৩০ লাখ মার্কিন ডলার এবং সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় হবে ৬ লাখ ৫ হাজার মার্কিন ডলার। এ প্রকল্পের মাধ্যমে ঢাকা ও সিলেট শহরের অবকাঠামো শক্তিশালী করন যেকোন নির্মাণ যেন দুর্যোগ মোকাবেলায় সক্ষম হয় তা নিশ্চিত করা এবং শহরের দুর্যোগ মোকাবেলায় জনগনের সক্ষমতাবৃদ্ধি করা। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে, জরুরী দুর্যোগ মোকাবেলায় ক্যাপাসিটি বৃদ্ধি পাবে। শহরের উন্নয়ন ও নির্মাণ কাজে সচেতনতা বাড়বে। এ ছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থাপনা, বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন এবং স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বাড়বে।

অন্যদিকে আরবান বিল্ডিং সেফটি প্রকল্পটি বাস্তবায়নে সহায়তা দেবে জাইকা। এটি বাস্তবায়নে জাইকা ব্যয় করবে মোট ১২ দশমিক ১ বিলিয়ন জাপানি ইয়েন। এ প্রকল্পের মাধ্যমে ঢাকা মেট্রোপলিটন ও চট্রগ্রামে বিল্ডিং শক্তিশালী করনে সহায়তা দেওয়া হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে এই দুই শহরে সরকারী ও বেসরকারী বিল্ডিং শক্তিশালী করতে সহজ শর্তে ঋণ প্রদান করা হবে। শহরের বিল্ডিং গুলোকে ভূমিকম্প ও যেকোন দুর্যোগ সহনীয় করতে সহায়তা দিতে প্রকল্পটি কার্যকর ভূমিকা রাখবে।