মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

আমিরের হয়ে মালিকের ব্যাট

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৫

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মোহাম্মদ আমিরকে নিজের ছোট ভাই বলে মনে করেন শোয়েব মালিক। মাঠে তার সঙ্গে খেলা এবং ড্রেসিংরুম ভাগাভাগি করতে কোন সমস্যা নেই বলেও জানিয়েছেন এই তারকা অলরাউন্ডার। স্পট ফিক্সিংয়ের নিষেধাজ্ঞা ওঠার পর আমির এখন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছেন। তার জাতীয় দলে ফেরা নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। ক’দিন আগে যে বিতর্কটাকে উসকে দিয়েছেন আরেক তারকা মোহাম্মদ হাফিজ। তিনি বলেছেন, আমির থাকার কারণেই বিপিএলে চিটাগাং ভাইকিংসের বিশাল অঙ্কের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন! এ জন্য হাফিজকে অবশ্য পিসিবির রোশানলে পড়তে হয়েছে।

হাফিজের ওই বক্তব্য যেন আমিরের জন্য বর হয়ে এসেছে! চারিদিক থেকে আসছে আশার বাণী। স্থানীয় দৈনিকে দেয়া সাক্ষাতকারে নিজের মত প্রকাশ করেন মালিক। আমিরের সঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করতে আপত্তি আছে কি নাÑ এমন প্রশ্নের জবাবে মালিক বলেন, ‘মোটেই নয়, সত্যি কথা বলতে, আমি নিজেও আমিরের একজন ভক্ত এবং পাকিস্তান দলে আমিরের অভিষেকের সময় থেকে যখন ওর সঙ্গে কাটিয়েছি, নিজেকে বড় ভাই মনে করেছি।’ জাতীয় দলে আমিরের প্রত্যাবর্তন হলে সেটিকে মালিক স্বাগত জানাবেন বলেও উল্লেখ করেন। ফর্মের তুঙ্গে থাকা অলরাউন্ডার এ প্রসঙ্গে আরও যোগ করেন, ‘আমির ব্যক্তিগতভাবে একজন ভাল ছেলে। আমি জানি আপনারা আমাকে এই প্রশ্নটি করছেন, কারণ সে পূর্বে ভুল করেছিল। যে কারণে বর্তমানে মানুষ তাকে নিয়ে কথা বলছে। আমার মতে যারা নেতিবাচক কথা বলছেন, তারা প্রত্যেকে ভুল করছেন।’

কিছুটা প্রশ্নের অবতারণা করে মালিক বলেন, ‘আমিরের বিচার নিয়ে কথা বলার আমরা কে? বিচার একমাত্র আল্লাই করবেন, যিনি একইসঙ্গে আমাদের ক্ষমার শিক্ষাও দিয়েছেন। তাই আমি মনে করি আমাদের সবার ভেতরে ক্ষমা মানসিকতা থাকা উচিত।’ ২০১০ সালে পাকিস্তানের ইংল্যান্ড সফরে লর্ডস টেস্টে আলোচিত সেই স্পট ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে পড়েন তৎকালীন অধিনায়ক সালমান বাট, মোহাম্মদ আসিফ ও মোহাম্মদ আমির। পাঁচ বছরের সাজা শেষে সম্প্রতি ঘরোয়া ক্রিকেট দিয়ে মাঠে ফেরেন আমির। সদ্যসমাপ্ত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে ৯ ম্যাচে ওভার প্রতি ৫.৫৬ রান দিয়ে ১৪ উইকেট শিকার করেন তিনি। আমিরের দুর্দান্ত পারফর্মেন্সে মুগ্ধ হয়ে খোদ পিসিবি প্রধান শাহরিয়ার খান তাকে জাতীয় দলে ফেরানোর ইঙ্গিত দেন।

তবে মাঠ ও মাঠের বাইরে নিজের আচরণকে আরও উন্নত করতে হবে বলেও মনে করেন শাহরিয়ার। তিনি বলেন, ‘আমিরের বয়স কম। ফেরার পর সে দারুণ বোলিং করেছে। আমরা বিপিএলে সিনিয়র সব পাকিস্তানী খেলোয়াড়দের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছিলাম। সবকিছু পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে নির্বাচকরাই সেটি করবেন।’

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৫

১৯/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

খেলার খবর



শীর্ষ সংবাদ: