মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৪ আগস্ট ২০১৭, ৯ ভাদ্র ১৪২৪, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

গুয়ান্তানামো থেকে ১৭ বন্দীকে মুক্তি দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৫

কিউবার গুয়ানতানামো বে কারাগার থেকে আগামী সপ্তাহে ১৭ বন্দীকে মুক্তি দেয়ার পরিকল্পনা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এই বন্দীদের মুক্তি দেয়া হলে বিশ্বব্যাপী কুখ্যাতি পাওয়া বন্দীশিবিরটিতে কারাবন্দীর সংখ্যা ৯০ জনে নেমে আসবে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ্যাশটন কার্টারকে উদ্ধৃত করে যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম বলছে, বন্দীমুক্তির এই বিষয়টি ইতোমধ্যে কার্টার মার্কিন কংগ্রেসকে অবহিত করেছেন। খবর ওয়েবসাইটের।

২০০২ সালের ১১ জানুয়ারি গুয়ানতানামো কারাগারে প্রথম ২০ জন বন্দী পাঠানো হয়। ধীরে ধীরে বন্দীর সংখ্যা ৭৮০তে উন্নীত হয়েছিল। কিউবায় যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক শিবিরে এ কারাগারটি স্থাপন করা হয়। এখানে যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে শত্রু শিবিরের যোদ্ধাদের আটক করে রাখা হতো। আটক বন্দীদের বেশিরভাগের বিরুদ্ধেই কোন অপরাধের অভিযোগ গঠন করা হয়নি কিংবা তাদের বিচার হয়নি। কার্টার সম্প্রতি ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, কম ঝুঁকিপূর্ণ ১৭ বন্দীকে পুনর্বাসনের পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে। পৃথকভাবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে যুক্তরাষ্ট্রের একজন জ্যেষ্ঠ প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা বলেছেন, আমরা ১৭ বন্দীর পুনর্বাসনের স্থান খুঁজে পেয়েছি। কয়েকটি দেশ তাদের গ্রহণ করার ব্যাপারে সম্মত হয়েছে বলেও তিনি জানান। নিউইয়র্কভিত্তিক একটি মানবাধিকার গোষ্ঠী এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার উদ্যোগের প্রশংসা করে মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গুয়ান্তানামো কারাগার বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে।

২০১৭ সালে প্রেসিডেন্ট পদ থেকে সরে যাওয়ার আগেই ওবামা গুয়ান্তানামো বে কারাগার বন্ধের চেষ্টা চালাচ্ছেন। ধারণা করা হচ্ছে ২০১৫ সালে ২০ জনেরও বেশি বন্দীকে বিভিন্ন দেশে পুনর্বাসিত করা হয়েছে। রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত কংগ্রেস বন্দীদের এ ধরনের পুনর্বাসনের ব্যাপারে কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রেখেছে। এ ধরনের কোন পদক্ষেপ গ্রহণের অন্ততপক্ষে ৩০ দিন আগে পেন্টাগনকে এ মর্মে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে যে, মুক্তি পেতে যাওয়া বন্দীরা নিরাপত্তার জন্য হুমকি হবেন না। যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরে কোন বন্দীর মুক্তি কিংবা পুনর্বাসনের যে কোন পদক্ষেপ আইনপ্রণেতারা প্রতিরোধ করে আসছেন। অস্থিতিশীল ও অনিরাপদ হওয়ার কারণে মুক্তিপ্রাপ্ত বেশিরভাগ বন্দীকে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানো সম্ভব হয় না। এ পর্যন্ত প্রায় ৫০টিরও বেশি দেশ গুয়ানতানামো বন্দীদের পুনর্বাসিত করেছে।

প্রকাশিত : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৫

১৯/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

বিদেশের খবর



শীর্ষ সংবাদ:
ঘূর্ণিঝড়, পাহাড় ধস, বন্যা ॥ দুর্যোগ পিছু ছাড়ছে না || বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্যের শিকার পরিবারগুলোকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান || বিটি প্রযুক্তির ব্যবহার দেশকে কৃষিতে ব্যাপক সাফল্য এনে দিয়েছে || রিজার্ভের চুরি যাওয়া অর্থ পুরো ফেরত পাওয়া যাবে || গ্রেনেড হামলা মামলার পলাতক ১৮ আসামিকে ফেরত আনার চেষ্টা || অনেক সড়ক মহাসড়ক পানির নিচে মহাদুর্ভোগের শঙ্কা || খাদ্য প্রক্রিয়াজাত শিল্পে ’২১ সালের মধ্যে বিলিয়ন ডলার রফতানি || নূর হোসেনের দম্ভোক্তি উবে গেছে, কালো মেঘে ছেয়েছে মুখ || জবাবদিহিতা না থাকা ও রাজনৈতিক প্রভাবে পাউবো প্রকল্পে দুর্নীতি || রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে আজ চূড়ান্ত রিপোর্ট দিচ্ছে আনান কমিশন ||