মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৫ আশ্বিন ১৪২৪, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

তাইওয়ানের কাছে অস্ত্র বিক্রি যুক্তরাষ্ট্রের ॥ বেজিংয়ের প্রতিবাদ

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫

যুক্তরাষ্ট্র তাইওয়ানের কাছে ১শ’ ৮৩ কোটি ডলার মূল্যের (১শ’ ২২ কোটি পাউন্ড) অস্ত্র বিক্রি করবে বলে ঘোষণা করেছে ওবামা প্রশাসন। কিন্তু চীন এ অস্ত্র বিক্রির তীব্র বিরোধিতা করেছে এবং এ বিক্রির সঙ্গে জড়িত মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে। খবর বিবিসি অনলাইনের।

যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, তাইওয়ানের সঙ্গে দীর্ঘদিনের অস্ত্র বিষয়ক নীতির সঙ্গে এ অস্ত্র বিক্রির চুক্তিটি সঙ্গতিপূর্ণ। দক্ষিণ চীন সাগরে চীনের কৃত্রিম দ্বীপ নির্মাণকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্র-চীন সম্পর্কে উত্তেজনা সৃষ্টির মুখে বেজিংয়ের কাছে ওয়াশিংটনের অস্ত্র বিক্রির সিদ্ধান্ত গত চার বছরের মধ্যে এটাই প্রথম। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর বুধবার বলেছে, এ অস্ত্র বিক্রি চুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে মার্কিন নৌবাহিনীতে ব্যবহৃত দুটি ফ্রিগেট, জ্যাভোলিন ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র, টিওডাব্লিউ টুবি ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র, এএভি- সেভেন উভচর এ্যাসল্ট যান ও অন্যান্য সামরিক সরঞ্জাম। কংগ্রেস বিরোধিতা না করলে চুক্তিটির অনুমোদন দেয়া হবে ৩০ দিনের মধ্যে। কিন্তু চীনের ক্রমবর্ধমান সামরিক শক্তি থেকে আত্মরক্ষার জন্য তাইওয়ানের সামর্থ্যরে ব্যাপারে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকানদের মধ্যে ক্রমবর্ধমান উদ্বেগ রয়েছে বলে কংগ্রেস বিরোধিতা চুক্তিটি না করার সম্ভাবনা রয়েছে। পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র জন কিরবি বলেছেন, ১৯৭৯ সালের তাইওয়ান রিলেশন্স এ্যাক্টের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ এ অস্ত্র বিক্রি। এ এ্যাক্টে উল্লেখ রয়েছে, তাইওয়ান যাতে নিজেকে রক্ষা করতে পারে সে জন্য যুক্তরাষ্ট্র দেশটিকে পর্যাপ্ত অস্ত্রশস্ত্র সরবরাহ করবে। মুখপাত্র রিপোর্টারদের বলেন, চীনের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কে যাতে কোন অমর্যাদাকর প্রভাব পড়ে, সে ধরনের কিছু করার প্রয়োজন নেই আমাদের। আমরা এ অঞ্চলে চীনের সঙ্গে আরও ভাল, আরও স্বচ্ছ, আরও ফলপ্রসূ সম্পর্ক প্রতিষ্ঠায় কাজ করতে চাই এখনও এবং আমরা এ লক্ষ্যে কাজ করা অব্যাহত রাখতে যাচ্ছি।

কিন্তু অস্ত্র বিক্রির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর জন্য বেজিংয়ের মার্কিন চার্জ দ্য এ্যাফেয়ার্সকে ডেকে পাঠায় চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে এক বিবৃতিতে বলা হয়। অস্ত্র বিক্রির বিষয়ে চীনের উপপররাষ্ট্র মন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের আনুষ্ঠানিক বৈঠক হয়েছে। চীনের সিনহুয়া সংবাদ সংস্থা উপপররাষ্ট্র ঝেং জেগুয়াংয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেছে, তাইওয়ান চীনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। তাইওয়ানের কাছে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র বিক্রির তীব্র বিরোধিতা করেছে চীন। তাইওয়ানকে চীনের একটি বিদ্রোহী প্রদেশ বলে মনে করে বেজিং এবং মূল ভূখ-ের সঙ্গে প্রদেশটি একদিন যুক্ত হবে। কিন্তু সম্প্রতি কয়েক সপ্তাহ ধরে তাদের মধ্যে সম্পর্ক উত্তেজনাকর হয়ে উঠেছে। ১৯৪৯ সালে গৃহযুদ্ধের পর প্রথমবারের মতো গত মাসে এক আলোচনায় বসেন দুই দেশের নেতারা। হোয়াইট হাউস বলেছে, এর আগে যুক্তরাষ্ট্র মোট ১ হাজার ২শ’ কোটি ডলার মূল্যের অস্ত্র বিক্রি করেছে তাইওয়ানের কাছে।

প্রকাশিত : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৫

১৮/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: