২৪ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ফিফার শুনানিতে সেপ ব্লাটার


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সব ধরনের জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ফিফার এথিকস কমিটির শুনানিতে যোগ দিয়েছেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি সেপ ব্লাটার। বৃহস্পতিবার কালো রঙের মার্সিডিজ গাড়িতে ফিফার সদর দফতরে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি। এ সময় সেপ ব্লাটারের আইনজীবী লরেঞ্জ এর্নিও সঙ্গে ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরেই বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফার সদর দফতরে ব্লাটার পৌঁছার সঙ্গে সঙ্গেই সংবাদকর্মীদের ভিড় জমে। কিন্তু এ সময় মুখ খুলেননি ব্লাটার। তবে শুনানির পূর্বেই সেপ ব্লাটার ফিফার ২০৯ সদস্যের প্রতি একটি চিঠি লিখেন। যেখানে তিনি লিখেছেন, ‘প্রলম্বিত জেরা’।

বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফার এথিকস কমিটির শুনানি বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন উয়েফা সভাপতি মিশেল প্লাতিনি। তার অভিযোগ ইতোমধ্যে সংস্থাটির একজন মুখপাত্র গণমাধ্যমের রায় জানিয়ে দিয়েছেন। অথচ আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগই এখনও তাকে দেয়া হয়নি। আজ সুইজারল্যান্ডের জুরিখে ফিফা সদর দফতরে এই শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। আর এই শুনানিতে প্লাতিনি অংশ নিচ্ছেন না বলে ইতোমধ্যেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার আইনজীবী।

প্লাতিনি ও ফিফা সভাপতি সেপ ব্লাটার বর্তমানে ৯০ দিনের নিষেধাজ্ঞায় রয়েছেন। সুইস প্রসিকিউশনের এক তদন্ত চলাকালে তাদের সাময়িক বরখাস্তের কারণে ফিফার এথিকস কমিটি এই সিদ্ধান্ত নেয়। ২০১১ সালে মিশেল প্লাতিনিকে দুই মিলিয়ন ডলার অর্থ দিয়েছিলেন ফিফা সভাপতি সেপ ব্লাটার। এই লেনদেনেই মূলত অনিয়মের অভিযোগে তদন্ত চলছে। প্রাথমিক নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ আগামী ৫ জানুয়ারি শেষ হবে। আগামী সোমবার চূড়ান্ত রায় ঘোষণা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ফুটবলবোদ্ধাদের ধারণা যে এই রায়ে সব ধরনের ফুটবলীয় কার্যক্রম থেকে আজীবনের জন্য নিষিদ্ধ হতে পারেন মিশেল প্লাতিনি। অবশ্য প্লাতিনির অভিযোগ ফিফার পরবর্তী নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া থেকে বিরত রাখতেই তার বিরুদ্ধে এমন ষড়যন্ত্র।

গত এক বছর ধরেই বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফায় একের পর এক নাটকীয় চিত্রনাট্য দেখেছে ফুটবল বিশ্ব। বর্তমানে চলছে ফুটবলের দুই তুখোড় সংগঠক সেপ ব্লাটার এবং মিশেল প্লাতিনির শুনানি। তাদের এই শুনানির পর যে কী হতে পারে সেটা কেবল সময়ই বলতে পারে। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে ফিফার নির্বাচন। বিভিন্ন সূত্রের খবর এবং সংগঠনের কয়েকজন সিনিয়র সদস্য ইনিয়ে-বিনিয়ে-ফিনিয়ে জানিয়েছেন, সভাপতি নির্বাচনের তারিখ পিছিয়ে দেয়া হতে পারে। তবে শেষ পর্যন্ত কী ঘটতে পারে ভক্তদের সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা। তবে সভাপতি পদে প্রার্থী হিসেবে ইতোমধ্যেই ছয় জনের নাম নিশ্চিত করেছে ফিফা। প্রার্থীরা হলেনÑ জর্দানের প্রিন্স আলি বিন আল হুসেইন, ফ্রান্সের সাবেক কূটনীতিবিদ জেরোম শ্যাম্পেন, দক্ষিণ আফ্রিকার রাজনীতিবিদ ও ব্যবসায়ী টোকিও সেক্সওয়াল, এএফসি সভাপতি শেখ সালমান, উয়েফা মহাসচিব জিয়ান্নি ইনফানতিনো এবং লাইবেরিয়া ফুটবল এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মুসা বিলিতি। এ নির্বাচনে ১৯৯৮ সাল থেকে ফিফা সভাপতির দায়িত্ব পালন করা ব্লাটারের উত্তরসূরি বেছে নেয়া হবে। তবে ব্লাটারের উত্তরসূরি হিসেবে মিশেল প্লাতিনিকেই ফেবারিট মানছিলেন অনেকে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: