২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ভাল খেলতে চাই ॥ ম্যাথুস


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মাত্র দুই টেস্টের সিরিজ। ইতোমধ্যেই প্রথম টেস্টে হেরে পিছিয়ে পড়েছে সফরকারী শ্রীলঙ্কা। তাই এবার সিরিজ বাঁচানোর লড়াই সফরকারীদের। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের উইকেটে যে কোন সফরকারী দলের জন্যই থাকে অগ্নিপরীক্ষা। ডুনিডিনে হওয়া প্রথম টেস্টে তা ভালভাবেই টের পেয়েছে লঙ্কানরা। এবার হ্যামিল্টনের সেডন পার্কেও বড় কোন চ্যালেঞ্জই অপেক্ষা করছে। ইতোমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে দ্বিতীয় টেস্ট। হার কিংবা ড্র কোনটাই সিরিজ পরাজয় ঠেকাতে পারবে না। তাই নিউজিল্যান্ডকে হারাতে হবে লঙ্কানদের। কিন্তু শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস মনে করছেন জয়-পরাজয় নিয়ে চিন্তা থাকাই উচিত নয়। তিনি জানিয়েছেন ভাল খেলা এবং জয়ের প্রচেষ্টা চালানোই যে কোন দলের লক্ষ্য হওয়া উচিত। সে লক্ষ্যেই দ্বিতীয় টেস্টে তার দল নামবে বলে আশাবাদ ম্যাথুসের।

হ্যামিল্টনে থাকছে ঘাসের উইকেট। তাই আবারও অনভিজ্ঞ শ্রীলঙ্কার জন্য নিশ্চিতভাবে বড় চ্যালেঞ্জ থাকছে। কিন্তু এটাকেই বরং নিজ দলের জন্য ইতিবাচক বলে মনে করছেন লঙ্কান অধিনায়ক ম্যাথুস। তার দাবি ফ্ল্যাট উইকেট গড়া হলে সেখান থেকে হয় তো ড্র করা সম্ভবপর হতো, কিন্তু সেটা সিরিজ পরাজয়টাই নিশ্চিত করত। তবে ঘাসে ঢাকা উইকেট লঙ্কান বোলারদের জন্যও বাড়তি একটা সুবিধা দেবে বলে মনে করছেন তিনি। কারণ প্রতিপক্ষের ২০ উইকেট তুলে নেয়ার মতো পেস বিভাগ আছে লঙ্কানদেরও। এ বিষয়ে ম্যাথুস বলেন, ‘যখন কিছুটা কঠিন উইকেটে খেলা হয় সেক্ষেত্রে উভয় দলেরই সমান সুযোগ থাকে জয় তুলে নেয়ার। ব্যাটিং করেন কিংবা বোলিং শুধু এটাই নিশ্চিত করা জরুরী যে ভালভাবে শুরু করতে হবে। আমরা অবশ্যই জেতার জন্য খেলব। ম্যাচ জয়ের চেষ্টা চালিয়েও যদি আমরা শেষ পর্যন্ত ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হেরে যাই সেটা কোন বিষয় না।’ নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এখন গত এক বছরে টানা তিন টেস্ট হার দেখেছে শ্রীলঙ্কা। কিন্তু অন্য দেশে ঠিকই পেসবান্ধব উইকেটে জয় পেয়েছে তারা। দুবাই ও হেডিংলিতে ফাস্ট বোলিংয়ের স্বর্গে জিতেছে শ্রীলঙ্কা। এ বিষয়ে ম্যাথুস বলেন, ‘আমাদের যদি জয় পাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করতে হয়, সেক্ষেত্রে উচিত হবে এ ধরনের উইকেট খেলা। কারণ আমি মনে করি আমাদের পেসাররাও কিছুটা সুবিধা নিতে পারবে। আমাদের খুব ভাল সুযোগ আছে। যখন আমরা ব্যাটিং করব তখন এটা শুধু নিজেদের সামর্থ্য মাঠে প্রয়োগের বিষয় হয়ে দাঁড়াবে। যদি কিছু ভাল রান করা সম্ভব হয় সেক্ষেত্রে আমাদের বোলাররা বাড়তি সুযোগ পাবে।’

ম্যাথুস জানিয়েছেন টস জিতে গেলে আগে বোলিং করার চিন্তা রয়েছে তার। ডুনেডিনে দলের পেসাররা যতটা ভাল করেছেন তিনি মনে করছেন হ্যামিল্টনে এরচেয়ে ভাল করবেন তারা। তিনি ভরসা রাখছেন তিন পেসার সুরাঙ্গা লাকমাল, নয়ান প্রদীপ ও দুশমন্ত চামিরার ওপর। এ বিষয়ে ম্যাথুস বলেন, ‘আমরা যদি প্রথমে বোলিংয়ের সুযোগ পাই সেক্ষেত্রে ডুনেডিনে যে ভুলগুলো করেছি সেসব সংশোধন করার প্রচেষ্টা চালাব। কারণ আমরা গত টেস্টে নিজেদের সেরাটার ধারে কাছেও ছিলাম না। এ বিষয়ে আমরা প্রচুর আলোচনা ও কাজ করেছি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: