২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

নির্মাণাধীন তিস্তা দ্বিতীয় সেতুর গার্ডার ভেঙ্গে পড়েছে


নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট, ১৭ ডিসেম্বর ॥ তিস্তা নদীর ওপর নির্মাণাধীন দ্বিতীয় তিস্তা সেতুর গার্ডার ভেঙ্গে পড়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলীসহ কয়েক শ্রমিক আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে তিস্তার দুর্গম চরাঞ্চল কাকিনা মহিপুরে নির্মাণাধীন তিস্তা সেতুর গার্ডারটি ভেঙ্গে পড়ে। এ সময় নির্মাণকাজের তত্ত্বাবধানে থাকা প্রকৌশলী ও কয়েক শ্রমিক অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেছেন। তবে নির্মাণাধীন গার্ডারটি দ্রুত হেলে ধসে পড়ার উপক্রম হলে প্রকেীশলীসহ নির্মাণ শ্রমিকরা নিরাপদ দূরত্বে দ্রুত চলে যাওয়ার সময় প্রকৌশলীসহ কয়েক শ্রমিক আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে প্রকৌশলীর আহত মারাত্মক বলে জানা যায়। তাকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় শত কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত সেতুটির নির্মাণকাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালের ১৯ অক্টোবর লালমনিরহাট সফরে এসে তিস্তা প্রথম সেতুর উদ্বোধন করেন। একই দিনে তিনি কাকিনা মহিপুরে দ্বিতীয় তিস্তা সেতু নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এতে ব্যয় ধরা হয় এক শ’ ২১ কোটি টাকা। চলতি বছরের ৩০ জুন কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পর পর দু’বার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নাভানা গ্রুপ ও ডাব্লিউএমসিজি কাজের মেয়াদ বাড়িয়ে নেয়। এর তত্ত্বাবধানে রয়েছে লালমনিরহাট এলজিইডি ও কালীগঞ্জ উপজেলা এলজিইডি।

এলজিইডির সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আব্দুর রহিম আকন্দ জানান, তিস্তা সেতুটির দৈর্ঘ্য ৮৫০ মিটার, প্রস্ত ২৪ ফিট হবে। গার্ডার হবে ৮৫টি, স্লাব হবে ১৭টি, দুই পারে সেতুটির গাইড লেন করা হয়েছে। পাঁচ বছরে তিস্তা দ্বিতীয় সেতুর মাত্র ২৬টি গার্ডার ও চারটি সøাবের নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি এখন নির্মাণসামগ্রীর দাম বৃদ্ধির অজুহাতে কাজ করছে অত্যন্ত ধীরগতিতে। নির্মাণসামগ্রী নিম্নমানের ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছে। মহিপুর ঘাটের স্থানীয় বাসিন্দা রমজান আলী (৫৬) জানান, বিকট শব্দে সেতুর গার্ডার ভেঙ্গে পড়েছে। স্থানীয়রা দৌড়ে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে। তিনি জানান, নদীর বালু দিয়ে কাজ করা হচ্ছে। শুনেছি পাটগ্রামের উন্নতমানের বালু ব্যবহারের কথা ছিল। রড, সিমেন্ট ব্যবহারে মানও নিয়ন্ত্রণ করা হয়নি। স্থানীয়রা জানান, ভেঙ্গে পড়া গার্ডারটি কয়েক মাস আগে নির্মাণ করা হয়েছিল।

জেলা এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী আল আমীন জানান, তিস্তা দ্বিতীয় সেতুর গার্ডার ভেঙ্গে পড়ার খবর সত্য। তবে বড় বড় নির্মাণকাজে এমন দুর্ঘটনা অস্বাভাবিক নয়। যন্ত্রপাতিতে ত্রুটি দেখা দিলে এমন হতেই পারে। দুর্ঘটনায় আহতদের চিকিৎসা চলছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: