২৫ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

বগুড়ায় ভোটের মাঠে বাড়ছে মহিলা কর্মী


স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস ॥ বগুড়াসহ উত্তরে শীতের তীব্রতা ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। আর ভোটযুদ্ধের মাঠে প্রার্থীদের আরেক প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠেছে জাঁকিয়ে বসা শীত। শীতের হিমেল হাওয়া ভোটের ময়দানে থাকা প্রার্থীরা লড়াইয়ের শুরুতেই অদৃশ্য প্রতিদ্বন্দ্বী শীতের কারণে বিড়ম্বনায় পড়েছেন। পার করেছেন কঠিন সময়। বগুড়ায় নির্বাচনী পৌর এলাকাগুলোতে ভোটের লড়াই জমজমাট হয়ে উঠেছে। চলছে দেয়ালে পোস্টার সাটানো ও মাইকে প্রচার যুদ্ধ। সঙ্গে নানামুখী কৌশলী গণসংযোগ। এই প্রচার ও গণসংযোগে প্রার্থীদের পক্ষে ব্যস্ত সময় পার করছেন মহিলা কর্মীরা। সাধারণ গৃহিনী থেকে শুরু করে, নিন্ম আয়ের চাকরিজীবী মহিলা এবং কলেজের শিক্ষার্থী তরুণীরাও প্রার্থীর পক্ষে লিফলেট নিয়ে ছুটছেন এ বাড়ি থেকে ও বাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাজার সবখানে। এসব মহিলা কর্মীর মধ্যে বেশির ভাগই আবার দলীয় কর্মী বা প্রার্থীর স্বজন, বন্ধু নন। তারা কাজ করছেন বাড়তি আয়ের জন্য। ভোট অনেক নিম্নআয়ের মহিলাদের জন্য বাড়তি আয়ের সুযোগ করে দিয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এসব মহিলা কর্মীর বেশির ভাগই কাউন্সিলর প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করছেন ‘ভোটের আয়’ হিসেবে। প্রতি মহিলা কর্মী সকাল ১০টা থেকে দুপুর এবং বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রার্থীদের পক্ষে ভোট প্রার্থনা করে পচ্ছেন আড়াই শ’ টাকা। এক্ষেত্রে নিম্নআয়ের মহিলারা বেশি সময় পার করছেন প্রার্থীদের পক্ষে। তবে প্রার্থীদের দলীয় কর্মী বা স্বজন বন্ধুরাও গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন। শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখা গেছে, গৃহকর্মীর কাজ ছেড়ে অনেকে বহু মহিলা কর্মী প্রার্থীর পক্ষে লিফলেট বিতরণসহ ভোট প্রার্থনা করছেন। আর প্রার্থীরাও বসে নেই। ভোর থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত পার করেছেন ভোটের ক্যাম্পেনে। প্রার্থীদের মুখে ফুটছে নানা প্রতিশ্রুতি নিয়ে কথার ফুলঝুরি। আর কে কথা রেখেছে আর কে রাখেনি তা নিয়েই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা পরস্পরের বিপক্ষে কথামালা অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছেন। আর প্রার্থীর পক্ষে প্রত্যেক বাড়ি বাড়ি যাওয়ার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন মহিলা কর্মীরা।